Main Menu

Tuesday, June 12th, 2018

 

মার্বেল কুনো ব্যাঙ বাংলাদেশের ন্যুনতম বিপদগ্রস্ত ব্যাঙ

বাংলা নাম: মার্বেল কুনো ব্যাঙ, ইংরেজি নাম: Indian marbled toad, Assam toad, Indus Valley toad, বা marbled toad, বৈজ্ঞানিক নাম/Scientific Name: Bufo stomaticus, জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Animalia বিভাগ/Phylum: Chordata শ্রেণী/Class: Amphibia বর্গ/Order: Anura পরিবার/Family:Bufonidae, গণ/Genus: Bufo, প্রজাতি/Species Name: Bufo stomaticus, Lütken, 1864 বর্ণনা: মার্বেল কুনো ব্যাঙ ব্যাঙের দেহ মাঝারি ধরনের বড়; তুন্ডের শীর্ষ থেকে পায়ু পর্যন্ত দেহের দৈর্ঘ্য ৭৫ মিলিমিটার। মাথার দৈর্ঘ্যের চেয়ে প্রস্থ বেশি, মাথার খাঁজ অনুপস্থিত। তুণ্ড ভোঁতা এবং অবতল। স্বভাব ও আবাসস্থল: এই প্রজাতির ব্যাঙ সমতলভূমি, তৃণভূমি, বনাঞ্চল, কৃষিজ জমি, স্বাদু পানি, গ্রাম অঞ্চলের বাগান, পুকুর এবংRead More


পোস্ট মডার্নিজম বা উত্তরাধুনিকবাদ প্রসঙ্গে — অভীক মজুমদার

পোস্ট-মডার্নিজম বলতে বোঝানো হয় আধুনিক-বাদ পরবর্তী দর্শন। এই দর্শন বিশেষ দৃষ্টিকোণ থেকে ব্যাখ্যা করতে চায় জীবন-জগৎ-ইতিহাস-সংস্কৃতি। এর পরিধিতে রয়েছে স্থাপত্য, সাহিত্য, ভাষা, চিত্রকলা, চলচ্চিত্র, ভিডিও, নৃত্য, সংগীত, ক্ষমতা, রাষ্ট্রশক্তি, মার্ক্সবাদ, যাবতীয় পূর্ববর্তী দর্শনচিন্তাও। তবে, প্রসঙ্গত একথা মনে রাখতে হবে যে, উত্তর-আধুনিক দর্শন আধুনিকবাদের নিছক সম্প্রসারণমাত্র নয় বরং আধুনিকবাদের সমালোচনা এবং তার বিরোধিতায় মুখর। ঐতিহাসিকভাবে দেখতে গেলে, উত্তর-আধুনিকবাদ বিশ শতকে তিন বা চারের দশক থেকেই নানা ক্ষেত্রে মাথা চাড়া দিতে শুরু করে। প্রথম এই মতবাদকে চিহ্নিত করা যায় নগর-স্থাপত্যের ক্ষেত্রে। পরবর্তীকালে বেশ কয়েকটি ঘটনাধারা উত্তরাধুনিক দর্শনের অভিমুখ নির্মাণ করে তোলে। এগুলিরRead More


বাংলা গুই বাংলাদেশের দুর্লভ আবাসিক সরীসৃপ

বৈজ্ঞানিক নাম: Varanus bengalensis বাংলা নামঃ বাংলা গুই, ইংরেজি নামঃ Bengal Monitor. জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্যঃ Animalia বিভাগঃ Chordata শ্রেণীঃ Reptilia বর্গ: Squamata, Oppel, 1811 পরিবারঃ Varanidae, Gray, 1827 গণঃ Varanus Merrem, 1820 প্রজাতিঃ Varanus bengalensis(Daudin, 1802) পরিচিতি: বাংলাদেশের সরীসৃপের তালিকায় বাংলা গুই এক চমৎকার  প্রাণি। এরা দুর্দান্ত সাহসী, জল-স্থল-বৃক্ষে চলতে সমান পারদর্শী। তুখোড় দৌড়বিদ ও বুদ্ধিমান গুইসাপের ইংরেজি নাম Bengal Monitor বৈজ্ঞানিক নাম Varanus bengalensis. শুধু শরীরের মাপ ১৭৫ সেন্টিমিটার লেজটি১০০ সেন্টিমিটার। দিবাচর। পানিরতলায় ডুব দিয়ে থাকতে পারে দীর্ঘ সময়। বড়গাছের মাথায় চড়তে পারে। বিষধর সাপ লেজ ধরে গাছে আছড়েRead More


সজনে গাছের বহুবিধ উপকারিতা ও গুনাগুণ

সজনে বা সজনা বা সাজিনা (বৈজ্ঞানিক নাম: Moringa oleifera) হচ্ছে মোরাসি পরিবারের মোরিঙ্গা গণের একটি বৃক্ষ জাতীয় গাছ। বাংলাদেশ ও ভারতে একটি বহুল পরিচিত বৃক্ষ, যার কাঁচা লম্বা ফল সবজি হিসেবে খাওয়া হয়, পাতা খাওয়া হয় শাক হিসেবে। সজনা গাছের কাঠ অত্যন্ত নরম, বাকলা আঠাযুক্ত ও কর্কি। সজিনা তিন প্রকারের হয়ে থাকে; নীল, শ্বেত ও রক্ত সজিনা। সজনে গাছ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পড়ুন: সজনা বা সজনে একটি বহুমুখী উপকারি বৃক্ষ সজনে গাছের রয়েছে নানাবিধ গুনাগুণ যা নিম্নে সংক্ষেপে উল্লেখ করা হলো।  (১) সজনের পাতা: শাকের মতো রান্না করে (কিন্তু ভাজা নয়)Read More


জিয়াপুরা দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পুর্ব এশিয়ার বৃক্ষ

বৈজ্ঞানিক নাম: Putranjiva roxburghii. সমনাম: Drypetes roxburghii (Wall.) Hurusawa (1954). ইংরেজি নাম: জানা নেই। স্থানীয় নাম: জিয়াপুরা। জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae বিভাগ: Angiosperms অবিন্যাসিত: Edicots অবিন্যাসিত: Rosids বর্গ: Malpighiales   পরিবার: Putranjivaceae গণ: Putranjiva প্রজাতি: Putranjiva roxburghii. বর্ণনা:  চিরহরিৎ বৃক্ষ, প্রায় ১৫ মিটার উঁচু, বাকল মসৃণ, সাদা থেকে ফ্যাকাশে হলুদ, পল্লব হীরকাকার, খাঁজযুক্ত রোমশ, পত্র সোপপত্রিক, উপপত্র ১.৯-১.৫ মিমি লম্বা, আশুপাতী, সবৃন্তক, বৃন্ত ৩-৭ মিমি লম্বা, রোমশ বা রোমশ বিহীন, দ্বিসারী, পত্র ফলক উপবৃত্তাকার থেকে দীর্ঘায়ত উপবৃত্তাকার বা উপবৃত্তাকার-ভল্লাকার, ৩.৫-১৩.৫ x ১.৫- ৪.৫ সেমি, সূক্ষ্মাগ্র বা স্থূলাগ্র, নিম্নাংশ তির্যক, প্রান্তRead More


পুত্রঞ্জীব পুত্রঞ্জীবাসি পরিবারের একটি গণের নাম

গণের বৈজ্ঞানিক নাম: Putranjiva Wall., Tent. Fi, Nep. 2: 61 (1826). জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae অবিন্যাসিত: Angiosperms অবিন্যাসিত: Eudicots অবিন্যাসিত: Rosids বর্গ: Malpighiales পরিবার: Phyllanthaceae গোত্র: Putranjivaceae গণ: Putranjiva, Wall., Tent. Fi, Nep. 2: 61 (1826). বর্ণনা: পুত্রঞ্জীব হচ্ছে পুত্রঞ্জীবাসি পরিবারের একটি গণের নাম। ভিন্নবাসী চিরহরিৎ বৃক্ষ বা গুল্ম । পত্র সরল, একান্তর, সবৃন্তক, অখন্ড, সূক্ষ্ম দন্ডযুক্ত, পশিরাল, সোপপত্রিক। পুষ্প বিন্যাস কাক্ষিক, গুচ্ছাকার বা পুষ্প একল বা জোড়াবদ্ধ, চাকতি অনুপস্থিত। পুংপুষ্প: বৃন্ত খাটো, বৃতি ৪-৬ খন্ডিত, খন্ড অসম, প্রান্তআচ্ছাদী, পাপড়ি অনুপস্থিত, পুংকেশর ২-৪টি, মুক্ত বা যুক্ত, পরাগধানী বহির্মুখী, অনুদৈর্ঘ্য বিদারী।Read More


বাগানের জন্য লন তৈরি ও রক্ষণাবেক্ষণ পদ্ধতি

লন (Lawn) বা বাগভূমি হচ্ছে সৌন্দর্য তৈরির জন্য ঘাস আচ্ছাদিত ভূমি। বাগানের গাছপালা ও অন্যান্য উপকরণ মিলিয়ে যদি একটি ছবি কল্পনা করা যায়, তাহলে লন হচ্ছে তার পটভূমি। এ পটভূমি যত সবুজ ও মসৃণ হবে বাগানের সৌন্দর্য ততো বৃদ্ধি পাবে। সৌন্দর্য বৃদ্ধি ছাড়াও লনের বহুবিধ ব্যবহার রয়েছে। বিশ্রাম নেয়া, খেলাধুলা, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের জন্য লন ব্যবহৃত হয়। উৎকৃষ্ট লন কার্পেটের মতো আরামদায়ক হবে। এজন্য কতকগুলো নিয়মকানুন অনুসরণ করে লন তৈরি করতে হয়। তৈরির সময় ভুল করলে পরে তা শোধরানো কষ্টসাধ্য। বাগভূমি প্রস্তুত প্রক্রিয়া সারাদিন সূর্যের আলো পড়ে এমন স্থানেইRead More


লতা ছিটকি দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পুর্ব এশিয়ার গুল্ম

বৈজ্ঞানিক নাম: Phyllanthus virgatus. সমনাম: Phyllanthus simplex Retz. (1788). ইংরেজি নাম: Seed Under Leaf, Virgate leaf-flower. স্থানীয় নাম: লতা ছিটকি। জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae অবিন্যাসিত: Angiosperms অবিন্যাসিত: Eudicots অবিন্যাসিত: Rosids বর্গ: Malpighiales পরিবার: Phyllanthaceae গোত্র: Phyllantheae উপগোত্র: Flueggeinae গণ: Phyllanthus প্রজাতি: Phyllanthus virgatus. বর্ণনা: লতা ছিটকি ফাইলান্থুস গণের বর্ষজীবী বা বহুবর্ষজীবী, ঋজু বা শায়িত সহবাসী রোমশ বিহীন বীরুৎ, প্রায় ৮০ সেমি লম্বা, শাখাসমূহ কোণাকৃতি, চাপা, মসৃণ। পত্র সোপপত্রিক, উপপত্র ১ মিমি লম্বা, ঝিল্লিযুক্ত, শীর্ষ ডিম্বাকার, দীর্ঘা, মূলীয় অংশ কর্ণসদৃশ অভিক্ষেপ যুক্ত, বাদামী বর্ণযুক্ত, বৃন্ত ০.৬-০.৮ মিমি লম্বা, পত্র ফলক রৈখিকRead More


কালো ছিটকি দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পুর্ব এশিয়ার গুল্ম

বৈজ্ঞানিক নাম: Phyllanthus urinaria. সমনাম: Phyllanthus leprocarpus Wight (1852). ইংরেজি নাম: Chamber Bitter. স্থানীয় নাম: হাজারমণি, কালো ছিটকি। জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae অবিন্যাসিত: Angiosperms অবিন্যাসিত: Eudicots অবিন্যাসিত: Rosids বর্গ: Malpighiales পরিবার: Phyllanthaceae গোত্র: Phyllantheae উপগোত্র: Flueggeinae গণ: Phyllanthus প্রজাতি: Phyllanthus urinaria. বর্ণনা: কালো ছিটকি সহবাসী, বর্ষজীবী বা কখনও বহুবর্ষজীবী, ঋজু বা আরোহী রোমশ বিহীন বা অণুরোমশ বীরুৎ। এরা প্রায় ৫০ সেমি উঁচু। কান্ড অতিশয় শাখান্বিত, ক্ষুদ্র শাখা ৩-১০ সেমি লম্বা, চ্যাপ্টা, পক্ষল । পত্র একান্তর, উপপত্র ডিম্বাকার-ভল্লাকার,প্রায় ১.৫ মিমি লম্বা, দীর্ঘা, মূলীয় অংশ কর্ণসদৃশ অভিক্ষেপ যুক্ত, বৃন্ত অতিশয় খাটো, ০.৫Read More


সিকিম লালফুলী ছিটকি দক্ষিণ ও দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার উদ্ভিদ

বৈজ্ঞানিক নাম: Phyllanthus sikkimensis. সমনাম: Phyllanthus hamiltonianus Muell.-Arg. (1865), Eriococcus haimiltonianus (Muell.-Arg.) Hurusawa & Ya (1966). ইংরেজি নাম: Sikkim Leaf-Flower। স্থানীয় নাম: সিকিম লালফুলী ছিটকি, ট্রংসা (ভুটান) জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae অবিন্যাসিত: Angiosperms অবিন্যাসিত: Eudicots অবিন্যাসিত: Rosids বর্গ: Malpighiales পরিবার: Phyllanthaceae গোত্র: Phyllantheae উপগোত্র: Flueggeinae গণ: Phyllanthus প্রজাতি: Phyllanthus sikkimensis. বর্ণনা: ছোট গুল্ম, প্রায় ১মিটার উঁচু, ক্ষুদ্র শাখা সরু, গোলাকার, রোমশ বিহীন বা সামান্য রোমশ। পত্র একান্তর, উপপত্র তুরপুন আকার, বৃন্ত ১-২ মিমি, পাতলা ঝিল্লিযুক্ত, পত্রফলক তির্যক ডিম্বাকার, ২-৫ x ১-৩ সেমি, অখন্ড, সূক্ষাগ্র, নিচের পৃষ্ঠ উজ্জ্বল, উভয় পৃষ্ঠ অণুরোমশ।Read More