Main Menu

Tuesday, July 17th, 2018

 

তোড়া চন্দ্রমল্লিকা টবে বা বাগানের শোভাবর্ধনকারী বিরুৎ

ভূমিকা: তোড়া চন্দ্রমল্লিকা বা তাজ চন্দ্রমল্লিকা (বৈজ্ঞানিক নাম: Chrysanthemum coronarium ইংরেজি নাম: Chrysanthemum, Crown Daisy) হচ্ছে এ্যাসটারাসি পরিবারের ক্রিসেনথিমাম গণের একটি সপুষ্পক বিরুৎ। এটিকে বাংলাদেশে আলংকারিক উদ্ভিদ হিসেবে বাগানে বা গৃহে চাষাবাদ করা হয়। বাড়ির টবে বা বাগানের শোভাবর্ধন করতে এই  বিরুৎ লাগানো হয়। বর্ণনা: এই প্রজাতিটি দেখতে ঋজু, ঘন ক্ষুদ্র কোমল রোমাবৃত ও বহুবর্ষজীবী বীরুৎ। উচ্চতায় ৯০ সেমি পর্যন্ত লম্বা হয় বা অধিক লম্বা। পত্র পক্ষবৎ খন্ডিত বা ব্যবচ্ছেদিত। এদের ফুল থোকা থোকা হয়ে ডালের আগাতে ফুটে থাকে। একেকটি ফুল পৃথক পৃথক থাকে,  অসম জননকোষী, ব্যাস ১.৫-৮.০ সেমি, পুষ্পদন্ডবিশিষ্ট,Read More


মালী’র চন্দ্রমল্লিকা টবে বা বাগানের শোভাবর্ধনকারী বিরুৎ

ভূমিকা: মালী’র চন্দ্রমল্লিকা (বৈজ্ঞানিক নাম: Chrysanthemum morifolium  ইংরেজি নাম: Chrysanthemum, Florist’s Daisy) হচ্ছে এ্যাসটারাসি পরিবারের ক্রিসেনথিমাম গণের একটি সপুষ্পক বিরুৎ। এটিকে বাংলাদেশে আলংকারিক উদ্ভিদ হিসেবে বাগানে বা গৃহে চাষাবাদ করা হয়। বাড়ির টবে বা বাগানের শোভাবর্ধন করতে এই  বিরুৎ লাগানো হয়। বর্ণনা: ক্রিসেনথিমাম গণের এই প্রজাতিটি দেখতে ঋজু, ঘন ক্ষুদ্র কোমল রোমাবৃত ও বহুবর্ষজীবী বীরুৎ। উচ্চতায় ৯০ সেমি পর্যন্ত লম্বা হয়। এদের পাতা সবৃন্তক, ব্যাপকভাবে খন্ডিত। এদের ফুল থোকা থোকা হয়ে ডালের আগাতে ফুটে থাকে। একেকটি ফুল পৃথক পৃথক থাকে অসম জননকোষী, মঞ্জরীদন্ডবিশিষ্ট, প্রশাখায় প্রান্তীয়। ব্যাস ৭ সেমি বা অধিক,Read More


তিন রঙা চন্দ্রমল্লিকা টবে বা বাগানের শোভাবর্ধনকারী বিরুৎ

ভূমিকা: তিন রঙা চন্দ্রমল্লিকা (বৈজ্ঞানিক নাম: Chrysanthemum carinatum, ইংরেজি নাম: Tricolor Chrysanthemum) হচ্ছে এ্যাসটারাসি পরিবারের ক্রিসেনথিমাম গণের একটি সপুষ্পক বিরুৎ। এটিকে বাংলাদেশে আলংকারিক উদ্ভিদ হিসেবে বাগানে বা গৃহে চাষাবাদ করা হয়। বাড়ির টবে বা বাগানের শোভাবর্ধন করতে এই  বিরুৎ লাগানো হয়। বর্ণনা: এই উদ্ভিদের বহু শাখা বিন্যাসিত ও মসৃণ একবর্ষজীবী বীরুৎ, হিসাবে পরিচিত। এটি ১.৪ মিটার পর্যন্ত লম্বা হয়। এদের পাতা অতি মাত্রায় পাখার মতো ভাগ করা ও বোটাহীন। এদের ফুল থোকা থোকা হয়ে ডালের আগাতে ফুটে থাকে। একেকটি ফুল পৃথক পৃথক থাকে ব্যাস ৪-৫ সেমি, অসম জননকোষী, পুষ্পদন্ডবিশিষ্ট, পত্রাবরণRead More


ছোটপাতা আকন্দ এশিয়া আফ্রিকা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের ভেষজ গুল্ম

ভূমিকা: ছোটপাতা আকন্দ এপোসিনাসি পরিবারের ক্যালোট্রপিস গণের একটি গুল্ম জাতীয় সপুষ্পক উদ্ভিদ। এরা বাংলাদেশ ভারতের একটি জনপ্রিয় ভেষজ উদ্ভিদ। এদের পাতার আকার বড় ও মাঝারি আকন্দের চেয়ে ছোট বিধায় এদেরকে ছোটপাতা আকন্দ বলা হয়। বিবরণ: ছোটপাতা আকন্দ বৃহৎ প্যাঁচানো গুল্ম। এদের কাণ্ড ঈষৎ কাষ্ঠল ও গোড়ায় বহু শাখা বিন্যাসিত, কচি শাখা ও পত্রের অঙ্কীয় পৃষ্ঠ সাদা পশমতুল্য ঘন ক্ষুদ্র কোমল রোমাবৃত। পাতা প্রায় অবৃন্তক, ডিম্বাকার-আয়তাকার, শীর্ষ সূচ্যগ্র, নিম্নাংশ সংকীর্ণভাবে হৃৎপিন্ডাকার, পত্রফলক ৯.০-১১.৫ x ৫.৫-৭.০ সেমি, পুরু, মাংসল। সাইম পার্শ্বীয়, আম্বেলেট, রোম দ্বারা আবৃত, অধিকাংশ ক্ষেত্রে পর্বে একল, পুষ্পদন্ড ৫.০-৮.৫ সেমিRead More


মাঝারি আকন্দ ভারত নেপাল বাংলাদেশের ভেষজ উদ্ভিদ

ভূমিকা: মাঝারি আকন্দ বা পাহাড়ি আকন্দ হচ্ছে এপোসিনাসি পরিবারের ক্যালোট্রপিস গণের নাম একটি উদ্ভিদ। পাহাড়ি আকন্দ হচ্ছে এক প্রকারের ঝোপ ও গুল্ম জাতীয় ছোট ধরনের ওষধি গাছ। বিবরণ: মাঝারি আকন্দ খাড়া, বীরুৎ বা ছোট গুল্ম। কাণ্ড গোড়া থেকে বহু শাখা বিন্যাসিত। কচি অংশ পশমতুল্য-ঘন ক্ষুদ্র কোমল রোমাবৃত। পত্র সবৃন্তক, পত্রবৃন্ত ০.৮-১.৫ সেমি লম্বা, তুলাতুল্য-ঘন ক্ষুদ্র কোমল রোমাবৃত, পত্রফলক ডিম্বাকার বিবল্লমাকার, ৯-১৮ X ৫-৯ সেমি, পুরু, মসৃণ, কচি অবস্থায় অঙ্কীয় পৃষ্ঠ তুলাতুল্য-ঘন ক্ষুদ্র কোমল রোমাবৃত, মধ্যশিরা স্থূলাকার, শীর্ষ ঈষৎ তীক্ষ্মাগ্র, নিম্নাংশের দিকে ক্রমান্বয়ে সরু, নিম্নাংশ কীলকাকার, পার্শ্ব শিরা ৬-৭ জোড়া। ফুলRead More