আপনি যা পড়ছেন

আলোকের দিন শুরু হলে মানুষের গল্প লেখা হবে

ঘুম থেকে জেগে একটি পাথরে হাত দিলে তৎক্ষণাৎ পাথর হয়ে যায় একটি ছুরির ফলা, শুরু হলও শিকার যুগের। শিকারি পশুর ছানা জন্ম হলে জন্ম হয় কৃষিজ ভূমি, নতুন ফসল ফলে নারীর আহ্বানে। পাথরের যুগ শেষ হলে গোত্রপিতার কলহে শুরু হয় নায়কী শোষণ, কোথায় হারিয়ে গেলো আমাদের মুক্ত হাতগুলো। একদিন যুদ্ধশেষে শান্তি

মগজের রোগ সেরে গেলে বাঁচতে ইচ্ছে করে আরো যুগ যুগ

রাষ্ট্রের মগজে ছোঁয়াচে এক রোগ ভিড় জমিয়েছে, আজকাল প্রায় সকলেই ভুগছে এ-রোগে, রোগের পূর্বাভাস পাওয়া মাত্রই আশাপাশের সবাই ভীত ও আক্রান্ত, কীভাবে সারবে রোগ, ভেবে ভেবে পেরোলাম কয়েক দশক। বাতাসটাও কেমন যেনো হিংস্র হয়ে তেড়ে আসে মুমুর্ষের দিকে, গোপন ক্ষোভের আগুন বেড়ে চলছে চরডাঙ্গার বস্তিতে, ভণ্ডরা বিদেশ থেকে ত্রাণ এনে খবরও নিচ্ছে ‘কেমন চলছে দিনকাল’, উন্নয়নের

জরুরি নির্দেশ

জরুরি খবর আমরা রাত এগারটার আগেই জানলাম এসেছে শক্তিধরের পুরোনো হুকুম হাঁটবে না রাস্তায়, হাঁটা নিষেধ তোমার প্রিয় পথটি জলপাই রঙের দখলে তোমার প্রিয় হাতব্যাগটি ছিনিয়ে নিলো জলপাই রঙের ট্রাক তোমার প্রিয় মাঠে এখন অস্ত্রধারি খেলোয়াড়েরা খেলা করে, প্রিয় লোকাল বাসটি ঠিক সময়ে ছাড়ে না রাতের ট্রেনে আর কোনোদিন তোমাকে নিয়ে শহরে ফিরব না ; তুমি কী কিছু

ময়মনসিংহে অবরুদ্ধ সময়ের কবিতা পাঠের আসর শুক্রবার

ময়মনসিংহের ব্রহ্মপুত্র পাড়ের একদল কবি সময়ের পোস্টমর্টেম করতে আয়োজন করেছেন প্রতিবাদী কবিতা পাঠের আসরের। আগামী ৩১ আগস্ট শুক্রবার ময়মনসিংহের মুসলিম ইন্সটিটিউট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে একটি কবিতা পাঠের অনুষ্ঠান। ‘অবরুদ্ধ সময়ের কবিতা’ নামে অনুষ্ঠানটি শুরু হবে বেলা তিনটায়। রাত আটটা পর্যন্ত চলবে অনুষ্ঠানটি। পৃথিবীতে যখনই নেমে এসেছে অবরুদ্ধ সময়, তার মুখোমুখি

পাতি মার্গেঞ্জার বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের অনিয়মিত পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Mergus গণে পৃথিবীতে ৫টি প্রজাতি রয়েছে এবং বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতিটির নাম হচ্ছে পাতি মার্গেঞ্জার। বর্ণনা: পাতি মার্গেঞ্জার লম্বা দেহ ও লম্বা লেজওয়ালা ছিপছিপে হাঁস (দৈর্ঘ্য ৬৬ সেমি, ওজন ১.২ কেজি, ডানা ২৭ সেমি, ঠোঁট ৫.৩ সেমি, পা ৪.৮ সেমি, লেজ ১১ সেমি)।

স্মিউ হাঁস বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের অনিয়মিত পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Mergellus গণে পৃথিবীতে ১টি প্রজাতি রয়েছে এবং বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি। পৃথিবীর ও বাংলাদেশের একমাত্র প্রজাতিটি হচ্ছে স্মিউ হাঁস। বর্ণনা: স্মিউ হাঁস বর্গাকার মাথাওয়ালা খুদে হাঁস (দৈর্ঘ্য ৪৬ সেমি, ওজন ৬৮০ গ্রাম, ডানা ১৯ সেমি, ঠোঁট ৩ সেমি, পা ৩ সেমি, লেজ ৭.৫ সেমি)। ছেলে ও

পাতি সোনাচোখ বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের অনিয়মিত পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Bucephala গণে পৃথিবীতে ৩টি প্রজাতি রয়েছে এবং বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি। বাংলাদেশের প্রজাতিটি হচ্ছে পাতি সোনাচোখ। বর্ণনা: পাতি সোনাচোখ মাঝারি আকারের ডুবুরি হাঁস (দৈর্ঘ্য ৪৬ সেমি, ওজন ৮০০ গ্রাম, ডানা ২১ সেমি, ঠোঁট ৩ সেমি, পা ৩.৬ সেমি, লেজ ৮.৫ সেমি)। প্রজনন ঋতুতে ছেলেহাঁসের পিঠ পাকরা

লোকসংস্কৃতি— বিকাশ চক্রবর্তী

লোক শব্দটির ইংরেজি প্রতিশব্দ Folk. ঐতিহাসিকভাবেই লোকসংস্কৃতি সম্বন্ধে আগ্রহ ও চর্চার সূত্রপাত ঘটে ইউরোপ মহাদেশে। ঊনবিংশ শতকের গোড়ার দিক থেকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পর্যন্ত ইউরোপে লোক বলতে মনে করা হত মূলত গ্রামীণ নিরক্ষর কৃষকদের, যাদের সমাজব্যবস্থার নিয়মকানুন, রীতিনীতি, প্রথা, শিল্পকলা প্রভৃতি সমস্ত কিছুই প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে বাহিত হয়ে এসেছে মৌখিক উত্তরাধিকারের

নারীবাদ— যশোধরা বাগচী

নারীবাদের (ইংরেজি: Feminism) কোনো একক সংজ্ঞা আজকের দুনিয়ায় দেওয়া সম্ভব নয়। কিন্তু তার গোড়ার কথার মধ্যে যদি প্রবেশ করবার চেষ্টা করি, তাহলে হয়ত নারীবাদ সম্পর্কে আমাদের ধারণা একটু স্বচ্ছ হতে পারে। পশ্চিম ইউরোপে বুর্জোয়া শ্রেণির অভ্যুত্থানের মধ্যেই আজকের নারীবাদের বীজ নিহিত আছে। বুর্জোয়া শ্রেণি যে ধনতান্ত্রিক উৎপাদন ব্যবস্থার ওপরে দাঁড়িয়েছিল,

বেয়ারের ভুতিহাঁস বিশ্বে মহাবিপন্ন এবং বাংলাদেশের বিরল পরিযায়ী পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায়  Aythya গণে পৃথিবীতে রয়েছে ১২টি প্রজাতি এবং বাংলাদেশে রয়েছে ৫টি প্রজাতি। সেগুলো হচ্ছে, ১. বেয়ারের ভুতিহাঁস, ২. পাতি ভুতিহাঁস, ৩. টিকি হাঁস, ৪. বড় স্কপ ও ৫. মরচেরঙ ভুতিহাঁস। আমাদের আলোচ্য এই হাঁসটি হচ্ছে বেয়ারের ভুতিহাঁস। বর্ণনা: বেয়ারের ভুতিহাঁস মাঝারি আকারের তামাটে-বাদামি হাঁস (দৈর্ঘ্য ৪৬ সেমি, ডানা

Top