আপনি যা পড়ছেন

রাজ ধনেশ বিশ্বে প্রায়-বিপদগ্রস্ত এবং বাংলাদেশের মহাবিপন্ন আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Buceros গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৩টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতিটি হচ্ছে আমাদের আলোচ্য রাজ ধনেশ। বর্ণনা: রাজ ধনেশ অতিকায় ঠোঁট আর বিশালদেহী বৃক্ষচারী পাখি (দৈর্ঘ্য১৩০ সেমি, ডানা ৫২.৫ সেমি, ঠোঁট ৩৫.২ সেমি, পা ৭.৪ সেমি, লেজ ৪০.৫ সেমি)।এর পিঠ ও দেহতল পাকরা; নিচের

সংস্কৃতির স্বরূপ প্রসঙ্গে

সংস্কৃতি বা কৃষ্টি (ইংরেজি: Culture) হচ্ছে মানুষের সর্বপ্রকার বৈষয়িক এবং আত্মিক সৃজন ও সম্পদের ব্যাপক অর্থবহ শব্দ। অনেক সময় সাহিত্য, শিল্প, দর্শন, সামাজিক আচরণ ও নীতি—অর্থাৎ মানুষের ভাবগত সৃষ্টিকর্মকে কেবল সংস্কৃতি বলে বিবেচনা করা হয়। কিন্তু মানুষের সৃষ্টির সম্পূর্ণ অর্থে আর্থিক ও কারিগরি সৃজন কর্ম এবং তার ফসল অর্থাৎ উৎপাদনের

উদয়ী পাকরাধনেশ বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের বিপন্ন আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Anthracoceros গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৫টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত এবং আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে উদয়ী পাকরাধনেশ। বর্ণনা: উদয়ী পাকরাধনেশ বা উদয়ী পাকড়া ধনেশ হচ্ছে বড় সাদাকালো দেহ আর হলদে ঠোঁটের পাখি (দৈর্ঘ্য ৯০ সেমি, ডানা ২৯.৫ সেমি, ঠোঁট ১২.৫ সেমি, পা ৬.২

বড় বসন্ত বৌরী বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের বিরল আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Psilopogon গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৫টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ২৪টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতিগুলো হচ্ছে ১. নীলগলা বসন্ত, ২. নীলকান বসন্ত, ৩. সেকরা বসন্ত, ৪. দাগি বসন্ত ও ৫. বড় বসন্ত। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে বড় বসন্ত। বর্ণনা: বড় বসন্ত বা বড় বসন্তবৌরী বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বসন্ত

দাগি বসন্ত বৌরী বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Megalaima গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৫টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ২৪টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতিগুলো হচ্ছে ১. নীলগলা বসন্ত, ২. নীলকান বসন্ত, ৩. সেকরা বসন্ত, ৪. দাগি বসন্ত ও ৫. বড় বসন্ত। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে দাগি বসন্ত। বর্ণনা: দাগি বসন্ত বা দাগি বসন্তবৌরী সবুজ রঙের মাঝারি

সেকরা বসন্ত বৌরী বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Megalaima গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৫টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ২৪টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতিগুলো হচ্ছে ১. নীলগলা বসন্ত, ২. নীলকান বসন্ত, ৩. সেকরা বসন্ত, ৪. দাগি বসন্ত ও ৫. বড় বসন্ত। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে সেকরা বসন্ত। বর্ণনা: সেকরা বসন্ত সবুজ রঙের খুদে বৃক্ষচারী পাখি (দৈর্ঘ্য

নীলকান বসন্ত বৌরী বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের দুর্লভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Megalaima গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৫টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ২৪টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতিগুলো হচ্ছে ১. নীলগলা বসন্ত, ২. নীলকান বসন্ত, ৩. সেকরা বসন্ত, ৪. দাগি বসন্ত ও ৫. বড় বসন্ত। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে নীলকান বসন্ত। বর্ণনা: নীলকান বসন্ত বা নীলকান বসন্ত বৌরী ছোট আকারের

নীলগলা বসন্ত বৌরী বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Megalaima গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৫টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ২৪টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতিগুলো হচ্ছে ১. নীলগলা বসন্ত, ২. নীলকান বসন্ত, ৩. সেকরা বসন্ত, ৪. দাগি বসন্ত ও ৫. বড় বসন্ত। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে নীলগলা বসন্ত। বর্ণনা: নীলগলা বসন্ত বা নীলগলা বসন্তবৌরী বা বড় বসন্ত বাউরি, বড়

Top