Main Menu

Friday, September 7th, 2018

 

ধলাঘাড় মাছরাঙা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Todiramphus গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ২১টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত এবং আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে ধলাঘাড় মাছরাঙা। বর্ণনা: ধলাঘাড় মাছরাঙা সাদা গলাবন্ধওয়ালা সুন্দর নীল জলার পাখি (দৈর্ঘ্য ২৪ সেমি., ডানা ১০ সেমি.,ঠোঁট ৪.৩ সেমি., পা ১.৫ সেমি., লেজ ৬.৫ সেমি.)। পিঠ সবুজাভ-নীল ও দেহতল সাদা। মাথার চাঁদি, কানের কোর্ভাট ও ম্যান্টল নীল-সবুজ এবং সরু ভ্রু সাদা। গলাবন্ধ স্পষ্ট সাদা। ডানা ও লেজ নীল। থুতনি, গলা, বুক, পেট ও অবসারণী সাদা রঙের। চোখ গাঢ় বাদামি এবং পা ও পায়ের পাতা স্লেট-কালো। ঠোঁট দু’রঙের:Read More


ধলাগলা মাছরাঙা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Halcyon গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৩টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১১টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি তিনটি হচ্ছে ১. লাল মাছরাঙা, ২. কালাটুপি মাছরাঙা ও ৩. ধলাগলা মাছরাঙা। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে ধলাগলা মাছরাঙা। বর্ণনা: ধলাগলা মাছরাঙা সাদা গলার বিশ্বজনীন মাছরাঙা (দৈর্ঘ্য ২৮ সেমি, ডানা ১১.৮ সেমি, ঠোঁট ৬ সেমি, পা ১.৬ সেমি, লেজ ৭.৫ সেমি)। পূর্ণবয়স্ক পাখির পিঠ নীলকান্তমণি-নীল ও দেহতল চকলেট-বাদামি। মাথা ও ঘাড় চকলেট-বাদামি এবং পাছা ও লেজসহ পিঠ উজ্জ্বল নীলকান্তমণি-নীল। থুতনি, গলা ও বুকের মাঝামাঝি পর্যন্ত বিস্তৃত উজ্জ্বল সাদা রঙ সামনে স্পষ্ট জামারRead More


লাল মাছরাঙা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সংকটাপন্ন আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Halcyon গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৩টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১১টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি তিনটি হচ্ছে ১. লাল মাছরাঙা, ২. কালাটুপি মাছরাঙা ও ৩. ধলাগলা মাছরাঙা। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে লাল মাছরাঙা। বর্ণনা: লাল মাছরাঙা বনের লাল রঙের জলার পাখি (দৈর্ঘ্য ২৬ সেমি, ডানা ১১.৩ সেমি, ঠোঁট ৬.২ সেমি, পা ২ সেমি, লেজ ৬.৫ সেমি)। প্রাপ্তবয়স্ক পাখির পিঠ লাল-কমলা ও দেহতল ফ্যাকাসে লাল। মাথায় দারুচিনি বা উজ্জ্বল লাল-তামাটে রঙ ও ঘাড়ে লাল বেগুনির সৌÍন্দর্য ফুটে উঠেছে। পিঠের নিচে ও পাছায় ফ্যাকাসে নীলের ওপর সাদা আমেজRead More


মেঘহও মাছরাঙা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের দুর্লভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Pelargopsis গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ২টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৩টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি দুটি হচ্ছে ১. খয়রাপাখ মাছরাঙা ও ২. মেঘহও মাছরাঙা। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে মেঘহও মাছরাঙা। বর্ণনা: মেঘহও মাছরাঙা লাল ঠোঁট ও নীল ডানার মাছ শিকারি (দৈর্ঘ্য ৩৮ সেমি, ডানা ১৫.৭ সেমি, ঠোঁট ৯ সেমি, পা ২ সেমি, লেজ ১০ সেমি)। প্রাপ্তবয়স্ক পাখির মাথার টুপি উজ্জ্বল বাদামি; গলবন্ধ কমলা-পীতাভ; কাঁধ-ঢাকনি বাদামি-নীল; ডানা নীল-সবুজ; পিঠ ও কোমর নীল; গলা ফ্যাকাসে পীতাভ; বুক, পেট ও অবসারণী কমলা পীতাভে মেশানো; ডানার প্রান্ত-পালকের গাঢ় নীল রঙRead More


খয়রাপাখ মাছরাঙা বিশ্বে প্রায়-বিপদগ্রস্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Pelargopsis গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ২টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৩টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি দুটি হচ্ছে ১. খয়রাপাখ মাছরাঙা ও ২. মেঘহও মাছরাঙা। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে খয়রাপাখ মাছরাঙা। বর্ণনা: খয়রাপাখ মাছরাঙা প্রকাণ্ড লাল ঠোঁট ও বাদামি ডানার মাছ শিকারি (দৈর্ঘ্য ৩৬ সেমি, ডানা ১৫ সেমি, ঠোঁট ৭.৬ সেমি, পা ২ সেমি, লেজ ৯.২ সেমি)। প্রাপ্তবয়স্ক পাখির মাথা ও ঘাড় বাদামি-কমলা; কাঁধ-ঢাকনি ও ডানা কালচে বাদামি; পিঠ ও কোমর নীল; প্রান্ত-পালক ডানার বাকি অংশের চেয়ে গাঢ় বাদামি; গলা, বুক পেট ও অবসারণী একই রকম বাদামি-কমলা।Read More


উদয়ী বামনরাঙা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের অনিয়মিত পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Ceyx গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৭টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত ও আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে উদয়ী বামনরাঙা। বর্ণনা: উদয়ী বামনরাঙা বা উদয়ী বামন মাছরাঙা হচ্ছে আগুন রঙের মাছ শিকারি (দৈর্ঘ্য ১৩ সেমি, ডানা ৫.৭ সেমি, ঠোঁট ৩.৫ সেমি, পা ০.৮ সেমি, লেজ ২.২ সেমি)। প্রাপ্তবয়স্ক পাখির মাথা, মাথার চাঁদি ও ঘাড় কমলা রঙের; পিঠ, কাঁধ-ঢাকনি, ডানা-ঢাকনি ও ডানার পালক-ঢাকনি নীলচে কালো; কোমর ও লেজ কমলা রঙের; গলা সাদা ও চোখের উপরে বা ঘাড়ের পাশে সাদা ফুটকি আছে; পেট কমলা-হলুদ যা ক্রমান্বয়ে নিচেরRead More


নীলকান মাছরাঙা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের বিরল আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Alcedo গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৩টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১৫টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি ৩টি হচ্ছে ১.পাতি মাছরাঙা, ২. ব্লাইদের মাছরাঙা ও ৩. নীলকান মাছরাঙা,আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে নীলকান মাছরাঙা। বর্ণনা: নীলকান মাছরাঙা বাদামি চোখ ও নীল কান-ঢাকনি পড়া মাছ শিকারি (দৈর্ঘ্য ১৬ সেমি, ওজন ২৭ গ্রাম, ডানা ৬.৮ সেমি, ঠোঁট ৪.৪ সেমি, পা ১ সেমি, লেজ ৩ সেমি )। প্রাপ্তবয়স্ক পাখির পিঠ ঘন নীল ও দেহতল গাঢ় কমলা; গালের চারিপাশ, ঘাড় ও ডানা-ঢাকনি বেগুনে-নীল; পিঠের নিচ থেকে লেজবরাবর নীল টান নেমে গেছে; গলা ওRead More


ব্লাইদের মাছরাঙা বিশ্বে প্রায়-বিপদগ্রস্ত ও বাংলাদেশে বিপন্ন পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Alcedo গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৩টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১৫টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি ৩টি হচ্ছে ১.পাতি মাছরাঙা, ২. ব্লাইদের মাছরাঙা ও ৩. নীলকান মাছরাঙা,আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে নীলকান মাছরাঙা। বর্ণনা: ব্লাইদের মাছরাঙা বনবাসী এক রক্তচক্ষু মাছশিকারি (দৈর্ঘ্য ২০ সেমি, ডানা ১০ সেমি, ঠোঁট ৫ সেমি, পা ১ সেমি, লেজ ৪.৫ সেমি। প্রাপ্তবয়ষ্ক পাখির পিঠ কালচে নীল ও দেহতল কমলা; মাথার ঘন সবুজ চাঁদিতে পাথালি নীল ফুটকির লাইন; কাঁধ-ঢাকনি ও ডানা কালচে সবুজাভ-নীল; ডানার পালক-ঢাকনিতে নীল ফুটকি; ডানার অন্যসব পালকের তুলনায় ডানার প্রান্তপালক কালচে। ওড়ারRead More


পাতি মাছরাঙা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Alcedo গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৩টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১৫টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি ৩টি হচ্ছে ১. পাতি মাছরাঙা, ২. ব্লাইদের মাছরাঙা ও ৩. নীলকান মাছরাঙা, আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে নীলকান মাছরাঙা। বর্ণনা: পাতি মাছরাঙা কমলা পেট ও নীল পিঠওয়ালা খুদে মাছ শিকারি (দৈর্ঘ্য ১৮ সেমি, ওজন ২৫ গ্রাম, ডানা ৭.২ সেমি, ঠোঁট ৪.৪ সেমি, পা ১ সেমি, লেজ ৩.৩ সেমি)। প্রাপ্তবয়ষ্ক পাখির পিঠ সবুজাভ নীল ও দেহতল কমলা; মাথার চাঁদি, কাঁধ-ঢাকনি ও ডানা ফ্যাকাসে সবুজাভ-নীল; পিঠের নিচ, পাছা ও লেজ বরাবর নীল টান নেমেRead More


পাহাড়ি নীলকণ্ঠ বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশে মহাবিপন্ন পরিযায়ী পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Eurystomus গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৪টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতিটি হচ্ছে আমাদের আলোচ্য পাহাড়ি নীলকণ্ঠ। বর্ণনা: পাহাড়ি নীলকণ্ঠ লাল ঠোঁট ও পা-ওয়ালা কালচে নীল পাখি (দৈর্ঘ্য ৩০ সেমি, ওজন ১৫০ গ্রাম, ডানা ১৮.৫ সেমি, ঠোঁট ৩ সেমি, পা ২ সেমি, লেজ ১০সেমি)। প্রাপ্তবয়স্ক পাখির পুরো দেহ কালচে নীল; মাথা, ওড়ার পালক ও লেজওপর-ঢাকনি কালচে থেকে প্রায় বাদামি; গলায় নীল আভা; ওড়ার সময় ডানার প্রান্ত-পালকের গোড়ার রূপালী-সাদা গোল ছোপ চোখে পড়ে, যা দেখে এর ইংরেজী নামকরণ হয়েছে। এর চোখ হলদে-বাদামি এবং চোখের বলয়;Read More