আপনি যা পড়ছেন

ধলাঘাড় মাছরাঙা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Todiramphus গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ২১টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত এবং আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে ধলাঘাড় মাছরাঙা। বর্ণনা: ধলাঘাড় মাছরাঙা সাদা গলাবন্ধওয়ালা সুন্দর নীল জলার পাখি (দৈর্ঘ্য ২৪ সেমি., ডানা ১০ সেমি.,ঠোঁট ৪.৩ সেমি., পা ১.৫ সেমি., লেজ ৬.৫ সেমি.)। পিঠ সবুজাভ-নীল ও

ধলাগলা মাছরাঙা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Halcyon গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৩টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১১টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি তিনটি হচ্ছে ১. লাল মাছরাঙা, ২. কালাটুপি মাছরাঙা ও ৩. ধলাগলা মাছরাঙা। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে ধলাগলা মাছরাঙা। বর্ণনা: ধলাগলা মাছরাঙা সাদা গলার বিশ্বজনীন মাছরাঙা (দৈর্ঘ্য ২৮ সেমি, ডানা ১১.৮ সেমি, ঠোঁট

লাল মাছরাঙা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সংকটাপন্ন আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Halcyon গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৩টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১১টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি তিনটি হচ্ছে ১. লাল মাছরাঙা, ২. কালাটুপি মাছরাঙা ও ৩. ধলাগলা মাছরাঙা। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে লাল মাছরাঙা। বর্ণনা: লাল মাছরাঙা বনের লাল রঙের জলার পাখি (দৈর্ঘ্য ২৬ সেমি, ডানা ১১.৩ সেমি,

মেঘহও মাছরাঙা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের দুর্লভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Pelargopsis গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ২টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৩টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি দুটি হচ্ছে ১. খয়রাপাখ মাছরাঙা ও ২. মেঘহও মাছরাঙা। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে মেঘহও মাছরাঙা। বর্ণনা: মেঘহও মাছরাঙা লাল ঠোঁট ও নীল ডানার মাছ শিকারি (দৈর্ঘ্য ৩৮ সেমি, ডানা ১৫.৭ সেমি, ঠোঁট

খয়রাপাখ মাছরাঙা বিশ্বে প্রায়-বিপদগ্রস্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Pelargopsis গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ২টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৩টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি দুটি হচ্ছে ১. খয়রাপাখ মাছরাঙা ও ২. মেঘহও মাছরাঙা। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে খয়রাপাখ মাছরাঙা। বর্ণনা: খয়রাপাখ মাছরাঙা প্রকাণ্ড লাল ঠোঁট ও বাদামি ডানার মাছ শিকারি (দৈর্ঘ্য ৩৬ সেমি, ডানা ১৫ সেমি,

উদয়ী বামনরাঙা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের অনিয়মিত পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Ceyx গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৭টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত ও আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে উদয়ী বামনরাঙা। বর্ণনা: উদয়ী বামনরাঙা বা উদয়ী বামন মাছরাঙা হচ্ছে আগুন রঙের মাছ শিকারি (দৈর্ঘ্য ১৩ সেমি, ডানা ৫.৭ সেমি, ঠোঁট ৩.৫ সেমি, পা ০.৮ সেমি, লেজ ২.২

নীলকান মাছরাঙা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের বিরল আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Alcedo গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৩টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১৫টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি ৩টি হচ্ছে ১.পাতি মাছরাঙা, ২. ব্লাইদের মাছরাঙা ও ৩. নীলকান মাছরাঙা,আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে নীলকান মাছরাঙা। বর্ণনা: নীলকান মাছরাঙা বাদামি চোখ ও নীল কান-ঢাকনি পড়া মাছ শিকারি (দৈর্ঘ্য ১৬ সেমি, ওজন ২৭

ব্লাইদের মাছরাঙা বিশ্বে প্রায়-বিপদগ্রস্ত ও বাংলাদেশে বিপন্ন পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Alcedo গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৩টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১৫টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি ৩টি হচ্ছে ১.পাতি মাছরাঙা, ২. ব্লাইদের মাছরাঙা ও ৩. নীলকান মাছরাঙা,আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে নীলকান মাছরাঙা। বর্ণনা: ব্লাইদের মাছরাঙা বনবাসী এক রক্তচক্ষু মাছশিকারি (দৈর্ঘ্য ২০ সেমি, ডানা ১০ সেমি, ঠোঁট ৫ সেমি,

পাতি মাছরাঙা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Alcedo গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৩টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১৫টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি ৩টি হচ্ছে ১. পাতি মাছরাঙা, ২. ব্লাইদের মাছরাঙা ও ৩. নীলকান মাছরাঙা, আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে নীলকান মাছরাঙা। বর্ণনা: পাতি মাছরাঙা কমলা পেট ও নীল পিঠওয়ালা খুদে মাছ শিকারি (দৈর্ঘ্য ১৮ সেমি,

পাহাড়ি নীলকণ্ঠ বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশে মহাবিপন্ন পরিযায়ী পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Eurystomus গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৪টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতিটি হচ্ছে আমাদের আলোচ্য পাহাড়ি নীলকণ্ঠ। বর্ণনা: পাহাড়ি নীলকণ্ঠ লাল ঠোঁট ও পা-ওয়ালা কালচে নীল পাখি (দৈর্ঘ্য ৩০ সেমি, ওজন ১৫০ গ্রাম, ডানা ১৮.৫ সেমি, ঠোঁট ৩ সেমি, পা ২ সেমি, লেজ ১০সেমি)। প্রাপ্তবয়স্ক

Top