You cannot copy content of this page
আপনি যা পড়ছেন

বকফুল বাংলাদেশের আলংকারিক ফুল

পরিচিতি: বকফুল, বক, বকে, বগ, বগফুল, অগস্তা, অগাতি ইত্যাদি নামে পরিচিত ফেবাসি পরিবারের সেসবানিয়া গণের এই উদ্ভিদটি একটি সপুষ্পক উদ্ভিদ প্রজাতি। বিবরণ: বকফুল শিম বা মটর গোত্রীয় গাছ। কিন্তু গাছ দেখতে মোটেই শিম বা মটরের মত নয়। ফুলের গড়নে কিছুটা মিল থাকলেও পাতা ও গাছের সাথে মিল নেই। তবে ধৈঞ্চা গাছের

ভোলাটুকি বাংলাদেশের ঔষধি ফল গাছ

ভূমিকা: ভোলাটুকি, ভল্লাত, ভল্লাতক হচ্ছে এনাকারডিয়াসি পরিবারের সেমেকারপাস গণের একটি সপুষ্পক উদ্ভিদ। ময়মনসিংহে এই ফলটির নাম বাওলা, অন্য নাম ভোলা। বিবরণ: ভোলাটুকি ছোট আকারের পাতাঝরা স্বভাবের বৃক্ষ। গাছের মাথায় প্রচুর শাখা-প্রশাখা ও পাতা থাকায় তা ছাতার মতো দেখায়। ময়মনসিংহ, ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবানের শুষ্ক বনাঞ্চলে ভোলাটুকির গাছে দেখা

মুড়মুড়ি বাংলাদেশের অপ্রচলিত ফল

পরিচিতি: মুড়মুড়ি বা আমঝুম হচ্ছে এনোনাসি পরিবারের পলিয়ালথিয়া গণের একটি সপুষ্পক উদ্ভিদ। এদের আদি নিবাস ভারত মায়ানমার ও শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের খুলনা, নড়াইল, যশোর, মাগুরা, কুষ্টিয়া, পাবনা প্রভৃতি এলাকায় মুড়মুড়ির গাছ দেখা যায়। এদেশের বন জংগলে জন্মে। ছোট আকারের বৃক্ষ অথবা গুল্ম। বাকল বেশ পুরু, ঝোপাল ডালপালা। পাতা অবডিম্বাকার, পাতার অগ্রভাগ সূচাল

ফিনল্যাণ্ড বনজশিল্পের সামগ্রী উৎপাদনকারী রাষ্ট্র

ফিনল্যাণ্ড বন, হ্রদ ও পাথরের দেশ। এর দুই-তৃতীয়াংশই বনাচ্ছন। বহু নদীপ্রপাত সহ ছোট ছোট নদীর মাধ্যমে যুক্ত এর অসংখ্য হ্রদগুলিই দেশের প্রায় এক-দশমাংশ ভূভাগের অধিকারী। ফিনল্যান্ডের নির্ধারিত জলবিদ্যুতের পরিমাণ প্রায় ৩০ লক্ষ কিলোওয়াট। বিপুলে কাষ্ঠসম্ভার এদেশের প্রধান সম্পদ। এখানে লোহা, তামা ও নিকেল আকরিক এবং সোনা, দস্তা, সীসা ও অন্যান্য ধাতুর খনি আবিষ্কৃত হয়েছে। আরো পড়ুন

তুরস্ক পুঁজিবাদ অনুসারী শোষণনির্ভর এশিয়ার রাষ্ট্র

তুরস্ক বা তুরস্ক প্রজাতন্ত্র (ইংরেজি: Republic of Turkey) একাধারে পশ্চিম এশীয় ও দক্ষিণ-পূর্ব ইউরােপীয় দেশ। এশীয় এবং ইউরােপীয় তুরস্ক (পূর্ব ফ্রাকিয়া) কৃষ্ণ সাগরের প্রণালী (বসফোরাস, মর্মর সাগর ও দার্দানেলিস) দ্বারা পরস্পরবিচ্ছিন্ন। ১৯৭৩ সালে বসফোরাসের উপর ইউরােপ ও এশিয়া সংযােজক এক ঝুলন্ত সেতু স্থাপিত হয়েছে। আরো পড়ুন

ইতালি ইউরোপের সাম্রাজ্যবাদী শোষণমূলক শিল্পোন্নত রাষ্ট্র

মাত্র কয়েক দশক আগেও ইতালি একটি দরিদ্র অনগ্রসর দেশ ছিল। অর্থনীতিতে কৃষিপ্রাধান্য এবং দেশে খনিজ কাঁচামালের ও জ্বালানির অভাব তার শিল্প ও অর্থনীতির বিকাশকে প্রহত করেছিল। তবু ইতালীয় সাম্রাজ্যবাদের আপেক্ষিক দুবলতা থেকে কোনোক্রমেই তার আক্রমণাত্মক লক্ষ্যের সীমাবদ্ধতা প্রমাণিত হয় না। ইতালি সম্পর্কে লেখার সময় লেনিন লক্ষ্য করেন যে এই শতকের গোড়ার দিকেই সে ভিন্নদেশ শোষণকারী রাষ্ট্র, ‘নির্মম, বিভৎস ধরনের প্রতিক্রিয়াশীল ও লণ্ঠনকারী বুর্জোয়াদের রাষ্ট্র হয়ে উঠেছিল। এই বুর্জোয়ারাই ফ্যাসিবাদের জন্ম দিয়েছিল যাতে ইতালীয় সমরবাদের হঠকারিতা ও আক্রমণের প্রবণতা সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছয়। আরো পড়ুন

ইরান সাম্রাজ্যবাদ দ্বারা নিপীড়িত পুঁজিবাদ অনুসারী দেশ

ইরান বা পারস্য বা ইরান ইসলামি প্রজাতন্ত্র (ইংরেজি: Islamic Republic of Iran) এশিয়ার অভ্যন্তরে অবস্থিত মধ্যপ্রাচ্যের কেন্দ্রবর্তী দেশ। ইরানের উত্তরে আর্মেনিয়া, আজারবাইজান, কাস্পিয়ান সাগর ও তুর্কমেনিস্তান; তার দক্ষিণ ভারত মহাসাগরধৌত। ট্রান্স-ইরানীয় রেলপথ কাস্পিয়ান সাগরতীরের বন্দর-শাহকে পারস্য উপসাগর তীরের বন্দর-শাহপুরের সঙ্গে যুক্ত করার ফলে ভারত মহাসাগরে ইরানের প্রবেশপথ তৈরি হয়েছে। আরো পড়ুন

আফগানিস্তান পুঁজিবাদ অনুসারী নিপীড়িত দেশ

আফগানিস্তান বা আফগানিস্তান ইসলামি প্রজাতন্ত্র (ইংরেজি: Islamic Republic of Afghanistan) দক্ষিণ এশিয়াস্বৈরতন্ত্র শাসিত পর্বতময় দেশ। রাশিয়া, ইরান, পাকিস্তান ও চীনের সঙ্গে তার সাধারণ সীমান্ত রয়েছে। রাশিয়া থেকে ভারতে এবং ইউরােপ থেকে এশিয়ায় যাওয়ার সংক্ষিপ্ততম পথটি আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের মধ্য দিয়ে এগিয়ে গেছে। আরো পড়ুন

Top