You cannot copy content of this page
আপনি যা পড়ছেন

ঐতিহাসিকতাবাদ কাকে বলে?

ঐতিহাসিকতাবাদ (ইংরেজি: Historicism) হচ্ছে ইতিহাসের বাস্তব অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে কোনো বস্তু বা বিষয়ের উদ্ভব এবং বিকাশের অনুধাবন। ঐতিহাসিকতাবাদ বৈজ্ঞানিক গবেষণার একটি মৌলিক পদ্ধতি। জগৎ ও সমাজের প্রশ্নে আধুনিক বিজ্ঞানের বিকাশের পূর্ব পর্যন্ত প্রচলিত পদ্ধতির বৈশিষ্ট্য ছিল দার্শনিক কল্পনা ও বিশ্লেষণ। এ পদ্ধতিতে সমস্যা মাত্রকে নিরপেক্ষ এবং স্বাধীন মনে করা হতো। ফলে, বাস্তব

ইতিহাসের অর্থনৈতিক ব্যাখ্যা প্রসঙ্গে

ইতিহাসের মার্কসবাদী ব্যাখ্যাকে অনেক সময়ে ইতিহাসের অর্থনৈতিক ব্যাখ্যা (ইংরেজি: Economic Interpretation of History) বলে অভিহিত করা হয়। বস্তুত মার্কসবাদের মূল সূত্র তিনটি বলে পরিচিত ১. বস্তুবাদ তথা দ্বন্দ্বমূলক বস্তুবাদ ২. ঐতিহাসিক বস্তুবাদ বা ইতিহাসের ব্যাখ্যায় দ্বন্দ্বমূলক বস্তুবাদের প্রয়োগ ঐতিহাসিক দ্বন্দ্বমূলক বস্তুবাদ; ৩. সমাজের অর্থনৈতিক বিশ্লেষণ। কার্ল মার্কস মানুষকেই ইতিহাসের নির্মাতা

হিপোক্রেটিস প্রাচীন গ্রিসের চিকিৎসাবিদ ছিলেন

হিপোক্রেটিস বা হিপোক্রাটিস বা কসের হিপোক্রেটিস (Hippocrates of Kos) প্রাচীন গ্রিসের চিকিৎসাবিদ ছিলেন। চিকিৎসাবিজ্ঞানের জনক বলে তিনি পরিচিত। সততার সঙ্গে মানুষের সেবাই হবে একজন চিকিৎসকদের নীতি বা ধর্ম – এই মর্মে চিকিৎসকের শপথ নেওয়ার যে কথা তিনি বলেচিলেন তা আজো ‘হিপোক্রেটিসের শপথ’ বলে সম্মানিত। হিপোক্রেটিস তাঁর জীবনকালে গ্রিসের বিভিন্ন অঞ্চল পরিভ্রমণ করে

ইসবগুল নিত্য প্রযোজনীয় ভেষজ গুল্ম

ভূমিকা: ইসবগগাল > ঈষদৃগোলাম > ইসেবগুল > ইসপগুল > ঈসবগুল। বৈজ্ঞানিক নাম Plantago ovata Forsk. এরা Plantaginaceae পরিবারের Plantago গনের সদস্য। এটি এক ধরণের ভেষজ গুল্ম জাতীয় উদ্ভিদ। বিবরণ: ঈসবগুল বর্ষজীবী উদ্ভিদ। ফার্সী অপ বা অশ্ব আর গুল বা ফুল এই দুটি শব্দ থেকে ইসেবগুল। অশ্বকর্ণের মতো পাতা ও বীজ বলে নাম ঈসবগুল। আরো পড়ুন

হিন্দু ধর্ম প্রসঙ্গে

হিন্দু ধর্ম বা হিন্দুত্ববাদ (ইংরেজি: Hinduism) ভারতবর্ষের প্রাচীন ধর্ম। বর্তমানকালেও পৃথিবীর প্রচলিত ধর্মসমূহের অন্যতম ধর্ম হচ্ছে হিন্দু ধর্ম। ‘হিন্দুদের ধর্ম’ হিসাবেও শব্দটির ব্যবহার করা হতো। এবং এদিক থেকে ‘ইণ্ডাস’ অঞ্চলের অধিবাসীদের ধর্মকে হিন্দু ধর্ম বলা হতো। এ থেকে বুঝতে পারা যায় হিন্দু ধর্ম দ্বারা কোনো সীমাবদ্ধ সুনির্দিষ্ট একক বিশ্বাসের বদলে প্রাচীন ভারতের

প্রতীকবাদ প্রসঙ্গে

প্রতীকবাদ (ইংরেজি: Theory of Symbols or Hieroglyphs) জ্ঞানের প্রশ্নে একটি বিশেষ তত্ত্ব। ইন্দ্রিয়ের অনুভূতির মাধ্যমে আমরা বস্তু জগতের প্রতিচ্ছবি লাভ করি। এই প্রতিচ্ছবি মিলিয়ে মন বস্তু জগতের জ্ঞান তৈরি করে। এটি হচ্ছে জ্ঞানের সাধারণ গৃহীত তত্ত্ব। কিন্তু প্রতীকবাদ জ্ঞানের এই তত্ত্বকে স্বীকার করে না। প্রতীকবাদের মতে ইন্দ্রিয়ানুভূতি আমাদের মনে বস্তুর

বংশগতি কাকে বলে?

জন্ম থেকে সন্তানে জীবনের চরিত্র বা বৈশিষ্ট্যের ধারাবাহিকতাকে বংশগতি বা বংশানুক্রমিকতা (ইংরেজি: Heredity) বলা হয়। জীববিদ্যায় বংশগতির মাধ্যমের প্রশ্ন একটি বিতর্কিত এবং বিশেষ আলোচিত প্রশ্ন। বিপরীত যৌনের সম্মেলনে জীবের উৎপাদন। কিন্তু জনকের গুণ সন্তানে কীভাবে প্রভাহিত হয় তার ধারণা পূর্বে স্পষ্ট ছিল না। কোষময় জীবের সৃষ্টি ধারায় পুরুষ ও নারীর ভূমিকার

হেরাক্লিটাস ছিলেন প্রাচীন গ্রিসের অন্যতম বিখ্যাত দার্শনিক

হেরাক্লিটাস (ইংরেজি: Heraclitus; ৫৩৫-৪৭৫ খ্রি. পূ.) ছিলেন প্রাচীন গ্রিসের অন্যতম বিখ্যাত দার্শনিক। বিরামহীন পরিবর্তনের ব্যাখ্যাতা হিসাবে তাঁর বিশেষ পরিচয়। এক নদীতে কেউ দুবার অবগাহন করতে পারে না, এ উক্তি বিখ্যাত হেরাক্লিটাসের বলেই পরিচিত। হেরাক্লিটাস মনে করতেন, বিশ্বের মূল বস্তু হচ্ছে আগুন। আগুন প্রবাহ ও পরিবর্তনের উত্তম দৃষ্টান্ত। সমগ্র বিশ্ব এবং

হেরাক্লিডাস পন্টিকাস ছিলেন প্রাচীন গ্রিসের একজন দার্শনিক

হেরাক্লিডাস পন্টিকাস (ইংরেজি: Heraclides Ponticus; আনু. ৩৯০ - ৩১০ খ্রি পূ.) ছিলেন প্রাচীন গ্রিসের একজন দার্শনিক। প্লেটোর একাডেমীর সদস্য এবং তাঁর শিষ্য হিসেবে তিনি পরিচিত ছিলেন। কিন্তু দার্শনিক মতামতের ক্ষেত্রে হেরাক্লিডসের নিজস্ব বৈশিষ্ট্য ছিল। পদার্থবিদ্যা, সঙ্গীত, ব্যাকরণ, ছন্দ এবং ইতিহাস প্রভৃতি বিভিন্ন বিষয়ে তাঁর রচনার নমুনা গবেষকগণ আবিস্কার করেন। বিশ্বজগতের মূল

সৌরকেন্দ্রিক মতবাদ প্রসঙ্গে

সৌরকেন্দ্রিক মতবাদ বা সৌরকেন্দ্রিকতাবাদ বা সূর্যকেন্দ্রিকতা (ইংরেজি ভাষায়: Heliocentrism বা heliocentricism) এমন একটি জ্যোতির্বৈজ্ঞানিক মডেল যাতে ধরে নেয়া হয় যে, স্থির সূর্য মহাবিশ্বের কেন্দ্রে অবস্থিত এবং তাকে কেন্দ্র করে পৃথিবী ও অন্যান্য গ্রহ আবর্তিত হয়। সূর্যকেন্দ্রিকতা ও ভূকেন্দ্রিকতা হচ্ছে পৃথিবী ও সূর্যের মধ্যকার সম্পর্ক এবং মহাবিশ্ব সম্পর্কে দুটি

Top