You cannot copy content of this page
আপনি যা পড়ছেন

ন্যায় দর্শন প্রসঙ্গে

প্রাচীন ভারতীয় ভাববাদী দর্শনের একটি শাখার নাম ন্যায় দর্শন (ইংরেজি: Nyaya)। ন্যায় দর্শনের প্রধান জোর ছিল যুক্তি ও জ্ঞানতত্ত্বের উপর। প্রাচীন উপাখ্যানের ঋষি গৌতম ন্যায় দর্শনের প্রতিষ্ঠা করেছিলেন বলে মনে করা হয়। যুক্তি ও তর্কের পদ্ধতি নিয়ে তৈরি হয়েছে প্রাচীন ন্যায় দর্শন। আরো পড়ুন

নউস হচ্ছে প্রাচীন গ্রিক দর্শনে সকল চিন্তা ও চেতনা কেন্দ্রীভূত সত্তা

প্রাচীন গ্রিক দর্শনে সকল চিন্তা ও চেতনা কেন্দ্রীভূত সত্তাকে ‘নউস’ (ইংরেজি: Nous) বলা হতো। নউস, কখনও কখনও বুদ্ধি বা প্রজ্ঞার সমতুল্য। শব্দটি ধ্রুপদী দর্শনের একটি শব্দ। শব্দটিকে সত্য বা বাস্তব কি বোঝার জন্য প্রয়োজনীয় বলে মানব মনের বিভিন্ন এলাকার ক্ষেত্রেবিবেচনা করা হয়। আরো পড়ুন

ভারতের ইতিহাস প্রসঙ্গে

বিশ্বের সবচেয়ে প্রাচীন সভ্যতাগুলির একটির উৎপত্তি ঘটে ভারতে। এখানেই গড়ে ওঠে অত্যন্ত উচুস্তরের উন্নত এক সংস্কৃতি যা এই দেশের পরবর্তী বিকাশের ক্ষেত্রে এবং সমগ্রভাবে গােটা প্রাচ্যের, মধ্য ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার ও দূর প্রাচ্যের বহু, জাতির সংস্কৃতির অগ্রগতিতে বিপুল প্রভাব বিস্তার করে। প্রত্নতাত্ত্বিক আবিষ্কার, ইত্যাদির ফলে এখন প্রমাণ পাওয়া গেছে যে

নামবাদ কাকে বলে

ইউরোপের মধ্যযুগীয় দর্শনে সাধারণ ভাবকে বিশেষ বস্তুর নাম বলে আখ্যায়িত করার নাম নামবাদ বা নামসর্বস্বতাবাদ (ইংরেজি: Nominalism) বলে পরিচিত। রাম, রহিম, সক্রেটিস বিশেষ বিশেষ মানুষের নাম। কিন্তু মানুষ বলতে কি বুঝাবে, এটি দর্শনের একটি প্রশ্ন। এই প্রশ্নে দুটি অভিমতের প্রকাশ দেখা যায়। একটি হচ্ছে বাস্তববাদ। আরো পড়ুন

ব্রাহ্মী লতা গ্রাম বাংলার অতিপরিচিত ভেষজ গুণে ভরা শাক

ব্রাহ্মী

ব্রাহ্মী (বৈজ্ঞানিক নাম: Bacopa monnieri, ইংরেজি: waterhyssop, thyme-leafed gratiola, water hyssop, herb of grace, Indian pennywor) এক ধরণের লতা জাতীয় উদ্ভিদ। ভিজা মাটিতে লতিয়ে লতিয়েই এ লতার বৃদ্ধি ঘটে। লতার প্রত্যেকটি গাঁট থেকে শিকড় বের হয়। কাণ্ড খুবই নরম এবং রসযুক্ত। গায়ে খুব সরু লোম থাকে, পাতা আধা ইঞ্চি বা আরও একটু বড় হতে পারে। কাণ্ডের বিপরীত দিক থেকে যুগপত্র জন্মায়। পাতার বোটা কাণ্ডের সাথে প্রায় লেগে থাকে। পাতার কিনারায় কোনো খাজ থাকে না। সামনের দিকটা গোলাকার এবং বৃন্তদেশ ডিমের মতো। পাতার শিরাগুলো অস্পষ্ট। আরো পড়ুন

ভালবাসা মোরে ভিখারী করেছে তোমারে করেছে রাণী

ভালবাসা মোরে ভিখারী করেছে তোমারে করেছে রাণী, তোমারই দুয়ারে কুড়াতে এসেছি ফেলে দেওয়া মালাখানি, নয়নের জলে যে কথা জানাই, সে ব্যথা আমার কেহ বোঝে নাই, মেঘের মরমে যে মিনতি কাঁদে চাঁদ বুঝিবে না জানি, ভালবাসা মোরে ভিখারী করেছে তোমারে করেছে রাণী। আরো পড়ুন

নাস্তিত্ববাদ কাকে বলে?

হাঁ বাচক বা অস্তিবাচক সবকিছুকে অস্বীকার করা হচ্ছে নাস্তিত্ববাদের (ইংরেজি:Nihilism) বৈশিষ্ট্য। নিহিলিজম বা নাস্তিত্ববাদ শব্দের ব্যবহার দেখা যায় রুশ সাহিত্যিক তুর্গেনিভের উপন্যাসে। ঊনবিংশ শতকে রাশিয়ায় গণতান্ত্রিক আন্দোলনের বিকাশে প্রতিক্রিয়াশীল শক্তি গণতান্ত্রিক আন্দোলনের কর্মীদের নাস্তিত্ববাদী বলে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করে। আরো পড়ুন

সাহিত্য কাকে বলে?

ব্যাপক অর্থে সাহিত্য হচ্ছে যে কোনো লিখিত অথবা মুদ্রিত বিষয়। বিশেষ অর্থে সাহিত্য হচ্ছে মানুষের চিন্তাভাবনা ও অনুভূতির বহিঃপ্রকাশ। সাহিত্যকে মানব অভিজ্ঞতার নন্দনতাত্ত্বিক বহিঃপ্রকাশ হিসেবে দেখা হয়। এই অর্থে উপন্যাস, ছোটোগল্প, মহাকাব্য, কবিতা এবং নাটক সাহিত্যের পর্যায়ে পড়ে।[১] আরো পড়ুন

সাহিত্য প্রসঙ্গে লেনিনবাদ

সাহিত্য-বিচারের ক্ষমতা নিয়ে মানুষ জন্ম নেয় না। বিচার-ক্ষমতার জন্যে চর্চার প্রয়োজন। সুতরাং একজন পাঠকের কাছে সাহিত্য শুধু একটি বিশেষ কাল বা পরিবেশের হাতে তুলে দেওয়া ইতিবৃত্ত মাত্র নয়। পাঠকের সঙ্গে সাহিত্যের সম্পর্ক মানবিক, তাই ‘শিল্পীসুলভ সংস্কার নিয়ে গড়ে ওঠা বলতে মার্কস খুব ছোট কথা বলেন নি। সাহিত্যরস আস্বাদনের জন্যে সাহিত্য চর্চা, সাহিত্য বোঝা, সাহিত্যের সংস্কার গড়ে তোলা এ সবই মার্কস বুঝিয়েছেন। আরো পড়ুন

মহুয়া গাছের ভেষজ গুণ

মহুয়া ( বৈজ্ঞানিক নাম: Madhuca longifolia ) বেশ বড় ধরনের গাছ। লম্বায় এটি প্রায় ৩৫ থেকে ৪০ ফুট পর্যন্ত হয়। মহুয়া গাছের উপরের ছাল মোটা এবং ধূসর। পাতা লম্বা ধরনের এবং চওড়ায় প্রায় পাঁচ ইঞ্চির মতো হয়। কনকচাঁপার পাতার সাথে এর মিল আছে। আগাটা চাপার মতো সূচালো নয়, বেশ ভোতা। ডালের আগায় ছাতার মতো ছড়িয়ে থাকে। অনেকটা ছাতিমের মতো। ফাল্গুন চৈত্র মাসের মধ্যে গাছে ফুল ফুটতে শুরু করে। গরমে সময় ফল ধরে। ফলের আকৃতি সুপারির মতো। ফলের ভিতরটা শাঁসে ভরা থাকে। প্রথম দিকে ফলের রং সবুজ থাকে। পরে পেকে গেলে রং পাল্টে ফিকে হলুদে পরিণত হয়। মহুয়া গাছের ছাল, বীজ, ফুল, বীজের তেল ঔষধ হিসাবে ব্যবহার করা হয়। আরো পড়ুন

Top