You cannot copy content of this page
আপনি যা পড়ছেন

প্রথম বিশ্বযুদ্ধ হচ্ছে ইউরোপে ১৯১৪ থেকে ১৯১৮ সাল পর্যন্ত স্থায়ী বিশ্বযুদ্ধ

প্রথম বিশ্ব যুদ্ধ চলাকালীন ব্যবহৃত অস্ত্র

প্রথম বিশ্বযুদ্ধ বা বিশ্ব যুদ্ধ প্রথম বা মহাযুদ্ধ বা প্রথম সাম্রাজ্যবাদী বিশ্বযুদ্ধ (প্রায়শই ইংরেজিতে: First World War বা সংক্ষিপ্তরূপে WWI বা WW1), হচ্ছে ইউরোপে সংঘটিত একটি বিশ্বযুদ্ধ যা ২৮ জুলাই ১৯১৪ থেকে ১১ নভেম্বর ১৯১৮ সাল পর্যন্ত স্থায়ী ছিল। এই মহাযুদ্ধ ৬ কোটি ইউরোপীয়সহ ৭ কোটিরও বেশি সামরিক কর্মীকে একত্রিত করেছিল যা এটিকে তৎকালীন সময়ে ইতিহাসের বৃহত্তম যুদ্ধ হিসাবে পরিণত করেছিল। আরো পড়ুন

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ হচ্ছে একটি বিশ্বযুদ্ধ যা ১৯৩৯ থেকে ১৯৪৪ সাল পর্যন্ত স্থায়ী ছিল

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ বা বিশ্ব যুদ্ধ দ্বিতীয় (প্রায়শই ইংরেজিতে: Second World War বা সংক্ষিপ্তরূপে WWII বা WW2), হচ্ছে একটি বিশ্বযুদ্ধ যা ১৯৩৯ থেকে ১৯৪৪ সাল পর্যন্ত স্থায়ী ছিল। সমস্ত মহাশক্তিশালী দেশসহ বিশ্বের সবগুলো দেশের অধিকাংশ— মিত্রশক্তি এবং অক্ষশক্তি নামে অবশেষে দুটি বিরোধী সামরিক জোট গঠন করেছিল। আরো পড়ুন

অ্যান্টার্কটিকা দক্ষিণ গোলার্ধের অ্যান্টার্কটিক অঞ্চলে অবস্থিত পৃথিবীর দক্ষিণতম মহাদেশ

অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশ

অ্যান্টার্কটিকা (ইংরেজি: Antarctica) বা কুমেরু হচ্ছে পৃথিবীর দক্ষিণতম মহাদেশ। এখানে ভৌগোলিক দক্ষিণ মেরু রয়েছে। অ্যান্টার্কটিকা দক্ষিণ গোলার্ধের অ্যান্টার্কটিক অঞ্চলে অবস্থিত এবং অ্যান্টার্কটিক চক্রের প্রায় পুরো দক্ষিণে অবস্থিত। এই মহাদেশ দক্ষিণ মহাসাগর দ্বারা বেষ্টিত রয়েছে। অ্যান্টার্কটিকার আকার ১৪,২০০,০০০ বর্গকিলোমিটার বা ৫,৫০০,০০০ বর্গমাইল এবং এটি পৃথিবীর পঞ্চম বৃহত্তম মহাদেশ এবং অস্ট্রেলিয়ার

শীতকালীন মৌসুমী ফুলের মধ্যে ডালিয়া চাষের পদ্ধতি ও পরিচর্যা

আজকাল ফুলের চাষ অনেক ক্ষেত্রেই বাণিজ্যিকভাবে শুরু হয়ে গেছে। অবশ্য পারিবারিক ভাবে টবে, ছাদে বা বারান্দায়ও চাষ হয়ে থাকে। প্রায় সকল মৌসুমী ফুলই টবে চাষ সম্ভব অন্ততঃ পারিবারিক চাহিদা পূরণের উদ্দেশ্যে। বাণিজ্যিক ভিত্তিতে চাষ জমিতেই সুবিধাজনক। পরিচ্ছেদসমূহডালিয়া ফুলের চাষ: ডালিয়ার জাত:জমির মাটি তৈরী:ডালিয়ার চারা তৈরী ও লাগানো:পরিচর্যা ও যত্ন: ফুল সংগ্রহ: তথ্যসূত্র: ডালিয়া ফুলের চাষ: শীতকালীন

অস্ট্রেলিয়া পৃথিবীর দক্ষিণ ও পূর্ব গোলার্ধে অবস্থিত একটি মহাদেশ

অস্ট্রেলিয়া মহাদেশ

অস্ট্রেলিয়া মহাদেশ (ইংরেজি: Continent of Australia) অস্ট্রেলিয়ার মহাদেশীয় প্লেটের স্থলভূমিব্যাপী গঠিত পৃথিবীর দক্ষিণ ও পূর্ব গোলার্ধে অবস্থিত। কখনও কখনও এটিকে অস্ট্রেলিয়া রাষ্ট্র থেকে আলাদা করার জন্য সাহুল, অস্ট্রেলিনিয়া বা মেগনেসিয়া নামে পরিভাষাগত প্রসঙ্গে পরিচয় করানো হয়। এই মহাদেশের মধ্যে রয়েছে মূল ভূখণ্ড অস্ট্রেলিয়া, তাসমানিয়া এবং নিউ গিনি দ্বীপ; নিউ গিনি আবার পাপুয়া নিউ গিনি এবং দুটি ইন্দোনেশিয়ান প্রদেশ সমন্বয়ে গঠিত হয়েছে। আরো পড়ুন

দক্ষিণ আমেরিকা পশ্চিম গোলার্ধ, উত্তর গোলার্ধ এবং দক্ষিণ গোলার্ধে অবস্থিত একটি মহাদেশ

দক্ষিণ আমেরিকা

দক্ষিণ আমেরিকা (ইংরেজি: South America) পশ্চিম গোলার্ধে অবস্থিত পৃথিবীর একটি মহাদেশ। উত্তর গোলার্ধের তুলনামূলকভাবে ছোট অংশসহ এই মহাদেশের বেশিরভাগ অঞ্চল দক্ষিণ গোলার্ধে অবস্থিত। আমেরিকার স্প্যানিশ এবং পর্তুগিজ ভাষী অঞ্চলে এটিকে কীভাবে দেখা হয় তার ভিত্তিতে, এটি উভয় আমেরিকার উপমহাদেশ হিসাবে বিবেচিত হতে পারে। বিশেষত ব্রাজিলের উত্থানের ফলশ্রুতিতে ভূ-রাজনৈতিক পরিবর্তনশীলতার কারণে

উত্তর আমেরিকা সম্পূর্ণরূপে উত্তর গোলার্ধ এবং প্রায় অংশই পশ্চিম গোলার্ধে অবস্থিত একটি মহাদেশ

উত্তর আমেরিকা

উত্তর আমেরিকা (ইংরেজি: North America) সম্পূর্ণরূপে উত্তর গোলার্ধে এবং প্রায় সবটুকুই পশ্চিম গোলার্ধের মধ্যে অবস্থিত পৃথিবীর একটি মহাদেশ। এটিকে কেউ কেউ আমেরিকার উত্তর উপমহাদেশ হিসাবেও বিবেচনা করে। এর উত্তরে সুমেরু মহাসাগর, পূর্বে আটলান্টিক মহাসাগর, পশ্চিমে এবং দক্ষিণে প্রশান্ত মহাসাগর এবং দক্ষিণ-পূর্বে দক্ষিণ আমেরিকা এবং ক্যারিবিয়ান সাগর দ্বারা পরিবেষ্টিত। আরো পড়ুন

আফ্রিকা উত্তর-দক্ষিণ গোলার্ধে অবস্থিত আকারে ও জনসংখ্যায় পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম মহাদেশ

আফ্রিকা মহাদেশ

আফ্রিকা (ইংরেজি: Africa) উত্তর ও দক্ষিণ গোলার্ধে অবস্থিত আকারে ও জনসংখ্যায় পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম মহাদেশ। আফ্রিকা মহাদেশ আয়তনে ইউরােপের তিন গুণ, কিন্তু এর জনসংখ্যা ইউরােপের চেয়ে প্রায় দেড় গুণ কম। স্মরণ করা যেতে পারে যে, আফ্রিকা ঔপনিবেশিকতার জোয়ালে বাঁধা পড়ার আগে এর জনসংখ্যা ইউরােপের চেয়ে বেশি ছিলো। আরো পড়ুন

এশিয়া পূর্ব এবং উত্তর গোলার্ধে অবস্থিত পৃথিবীর একটি মহাদেশ

এশিয়া

এশিয়া (ইংরেজি: Asia) পৃথিবীর বৃহত্তম এবং সর্বাধিক জনবহুল মহাদেশ, প্রধানত পূর্ব এবং উত্তর গোলার্ধে অবস্থিত। পৃথিবীর স্থলভাগের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ ব্যাপ্ত এশিয়া মহাদেশের জনসংখ্যা ২০১৭ সালে ছিলো প্রায় ৪৪৬ কোটি ২৭লক্ষ, অর্থাৎ পৃথিবীর মােট জনসংখ্যার ষাট শতাংশ। ১৯৮০ সালে এশিয়ার মোট জনসংখ্যা ছিলো ২৬৩ কোটি। আরো পড়ুন

ইসরায়েল সাম্রাজ্যবাদী সন্ত্রাসবাদী পুঁজিবাদী এশিয়ার অবৈধ নিপীড়ক দেশ

ইসরায়েল

ইসরায়েল বা ইজরায়েল বা ইজরাইল (ইংরেজি: Israel) মধ্যপ্রাচ্যে অবস্থিত একটি শিল্প-কৃষিসমৃদ্ধ সাম্রাজ্যবাদী সন্ত্রাসবাদী পুঁজিবাদী দেশ। এর মোট ৪০ লক্ষ জনসংখ্যার মধ্যে প্রায় ৫ লক্ষ আরব। তেল আবিব দেশের প্রধান অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র। জেরুসালেমকে সে বেআইনীভাবে তার রাজধানী ঘোষণা করেছে। আরো পড়ুন