আপনি যা পড়ছেন
মূলপাতা > শিল্প > সঙ্গীত > দুঃখে যাদের জীবন গড়া তাদের আবার দুঃখ কি রে?

দুঃখে যাদের জীবন গড়া তাদের আবার দুঃখ কি রে?

দুঃখে যাদের জীবন গড়া তাদের আবার দুঃখ কি রে?

হাসবি তোরা বাঁচবি তোরা, মরণ যদি আসেই ফিরে।

অন্ধকারের শিশু তোরা আলোর তৃষায় মিছে ঘোরা,

আপন হৃদয় জ্বালিয়ে দিয়ে জ্বালবি সবার প্রদীপটিরে।।

 

তোদের প্রাণে বন্দি হয়ে কাঁদে ভুখা ভগবান।

মুখে তবু খেলার বাঁশি যখন বুকে রয় পাষাণ।

হেলায় হেসে নিলি মরণ তাইতো মরণ পেলো লাজ।

ধুলির সাথে মিশে তোরা সোনার মতো হলি আজ।।

 

এবার যে রে প্রভাত আসে, রাতের আঁধার গেল টুটে,

ভোরের আলোর তিলক প’রে বাহিরপানে আয় রে ছুটে।

দুঃখ তোদের জয়ের মালা দুঃখ হলো মুকুট শিরে।

বাঁধন হলো হাতের রাখী মুক্তি এলো নয়ন-নীরে।।

আরো পড়ুন

অজয় ভট্টাচার্য
একজন বিখ্যাত বাঙালি আধুনিক রোমান্টিক গানের গীতিকার ও কবি <a href="http://www.roddure.com/biography/ajoy-vottacharya/"><strong>অজয় ভট্টাচার্য</strong></a> (জুলাই, ১৯০৬ - ২৪শে ডিসেম্বর, ১৯৪৩)  বাঙালি মধ্যবিত্তের প্রেম, আশা আর মনোবেদনার কানাগলিতে বিশ শতকের প্রথমার্ধে বিচরণ করেছেন। হিমাংশু দত্ত সুরসাগরের সুরে তাঁর লেখা গান চল্লিশ দশকের কলকাতার সংগীতপ্রেমীদের মধ্যে বিপুল সাড়া জাগায়। বাংলা সবাক চলচ্চিত্রের শুরু থেকেই তাঁর লেখা গান রাইচাঁদ বড়াল, পঙ্কজ মল্লিক, শচীন দেববর্মণ ও অনুপম ঘটকের সুরে সারা দেশে বারে বারে উচ্চকিত হয়ে ওঠে। বাংলা গানে, কাজী নজরুল ইসলাম ও রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পরে অজয় ভট্টাচার্য্য সব থেকে বেশি গানের কলি লিখেছেন।

Leave a Reply

Top