You are here
Home > Author: Anup Sadi

বকুল এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগর তীরবর্তী এলাকার বৃক্ষ

বাংলা নাম: বকুল, বহুল, বুকাল, বাকুল, বাকাল। ইংরেজি নাম- Spanish cherry, Indian Medlar, and Bullet wood. জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণিবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae বিভাগ: Magnoliophyta শ্রেণী: Magnoliopsida বর্গ: Ericales পরিবার: Sapotaceae গণ: Mimusops প্রজাতি: Mimusops elengi L. পরিচিতি: বাংলা ভাষায় এদের নাম বকুল, বহুল, বুকাল, বাকুল, বাকাল। তবে বকুল নামেই বেশি পরিচিত। বকুলের আদি আবাস ওয়েস্ট ইন্ডিজ, আন্দামান ও বার্মা। তবে বর্তমানে এশিয়া

মিখাইল বাকুনিন একজন নৈরাজ্যবাদী বিপ্লবী

মিখাইল আলেকজান্দ্রোভিচ বাকুনিন (ইংরেজি: Mikhail Alexandrovich Bakunin) ছিলেন (১৮১৪-১৮৭৬) রাশিয়ার এক অভিজাত পরিবারের সন্তান। তার চিন্তার ভেতরে ছিলো একজন পেটিবুর্জোয়া বা মধ্যবিত্ত চরিত্রের রুশ বিপ্লবীপনা। নৈরাজ্যবাদ বা এ্যানার্কিজম মতবাদের প্রচারকারী হিসাবেই বাকুনিন বিখ্যাত হয়েছিলেন। বাকুনিনের মতাদর্শে বিভিন্ন দার্শনিক এবং রাষ্ট্রনৈতিক চিন্তাবিদদের প্রভাব পরিলক্ষিত হয়। গোড়ার দিকে তিনি জার্মান দার্শনিক ফিকটের চিন্তাধারায

বই পূজার বিরোধিতা করুন — মাও সেতুং

কমরেড মাও সেতুং দারুণ দিক নির্দেশনামূলক এই প্রবন্ধটি লিখে শেষ করেন মে ১৯৩০ সালে। এই প্রবন্ধের শুরুতেই তুলে ধরা হয়েছে সেই অবশ্য পালনীয় নীতি — তদন্ত ছাড়া কথা বলার অধিকার নেই। বই পূজাকে দ্বান্দ্বিকভাবে দেখা, বই পূজায় না মাতা অর্থাৎ পুরনো মত দ্বারা চালিত হওয়ার নীতিতে দীক্ষিত না হওয়া, কাজের

চীনা সমাজের শ্রেণি বিশ্লেষণ — মাও সেতুং

মার্চ ১৯২৬ কমরেড মাও সে তুং এই প্রবন্ধটি লিখেছিলেন ১৯২৬ সালের মার্চ মাসে। সে সময়ে পার্টির ভেতরে যে দু’ধরনের বিচ্যুতি ছিলো, তার বিরোধিতা করার জন্যই তিনি এই প্রবন্ধটি লিখেছিলেন। তৎকালে পার্টির ভেতরকার প্রথম বিচ্যুতির প্রবক্তা ছিল ছেন তুসিউ। এরা কেবলমাত্র কুওমিনতাঙের সঙ্গে সহযোগিতা করতেই মনোযোগ দিয়েছিল এবং কৃষকদেরকে ভুলে গিয়েছিল—এটা ছিল

উদারতাবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করুন — মাও সেতুং

আমরা সক্রিয় মতাদর্শগত সংগ্রামের পক্ষে, কারণ এটাই হচ্ছে আমাদের সংগ্রামের স্বার্থে পার্টির মধ্যে ও বিপ্লবী সংগঠনগুলোর মধ্যে ঐক্যকে সুনিশ্চিত করার হাতিয়ার। প্রত্যেক কমিউনিস্ট ও বিপ্লবীর এই হাতিয়ার গ্রহণ করা উচিত। কিন্তু উদারতাবাদ মতাদর্শগত সংগ্রামকে বাতিল করে দেয় এবং নীতিহীন শান্তির পক্ষ নেয়, এর ফলে ক্ষয়িষ্ণু ও অশিষ্ট মনোভাবের সৃষ্টি হয় এবং

হলুদ লাপছো বা হলুদ পোউ মধ্য ও দক্ষিণ আমেরিকার বৃক্ষ

হলুদ লাপছো, হলুদ পোউ বৈজ্ঞানিক নাম: Handroanthus serratifolius সমনাম: Bignonia serratifolia Vahl; Tecoma serratifolia (Vahl) G.Don; Handroanthus araliaceus (Cham.) Mattos সাধারণ নাম: Yellow Lapacho, Pau D'arco , Yellow Poui, Yellow Ipe, Pau D'arco Amarelo বাংলা নাম: হলুদ লাপছো জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae বিভাগ: Angiosperms অবিন্যাসিত: Eudicots অবিন্যাসিত: Asterids বর্গ: Lamiales পরিবার: Bignoniaceae গণ: Handroanthus প্রজাতি: Handroanthus serratifolius (Vahl) S.O. Grose পরিচিতি: হলুদ লাপছো

লাল শিমুল বাংলাদেশের উপকারি ফুল বৃক্ষ

বৈজ্ঞানিক নাম: Bombax ceiba সমনাম: Bombax malabaricum DC. Gossampinus malabaricus (DC.) Merr. Salmalia malabarica (DC.) Schott & Endl. বাংলা নাম: শিমুল, শিমুল তুলা, লালশিমুল ইংরেজি নাম: Silk Cotton Tree. আদিবাসি নাম: Pongchong (Bawm), Chamful Gaith (Tanchangya), Lakh Pine (Marma), Chapang (Khumi), Man-chow (Mandi, Garo) জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae - Plants উপরাজ্য: Tracheobionta - Vascular plants অধিবিভাগ: Spermatophyta -

ত্রি-খিলা স্থল কাইট্টা বাংলাদেশের বিপন্ন ও পৃথিবীর সংকটাপন্ন কাইট্টা

বৈজ্ঞানিক নাম: Melanochelys tricarinata; বাংলা নাম: ত্রি-খিলা স্থল কচ্ছপ বা ত্রিশিরা শিলা কাইট্টা, ইংরেজি নাম: Tricarinate Hill Turtle,. জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস শ্রেণী: Reptilia পরিবার: Geoemydidae গণ: Melanochelys প্রজাতি: Melanochelys tricarinata. ভূমিকা: বাংলাদেশের কচ্ছপের তালিকায় মোট ২৯ প্রজাতির কচ্ছপ, কাইট্টা ও কাছিম আছে। এদের মধ্যে আমাদের আলোচ্য ত্রি-খিলা স্থল কচ্ছপ হচ্ছে একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং সংকটাপন্ন প্রজাতি। বর্ণনা: ত্রি-খিলা স্থল কচ্ছপ বা

ফ্রিডরিখ এঙ্গেলসের কয়েকটি উদ্ধৃতি

০১. মার্কস সবার আগে ছিলেন বিপ্লববাদী। তাঁর জীবনের আসল ব্রত ছিল পুঁজিবাদী সমাজ এবং এই সমাজ যেসব রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান সৃষ্টি করেছে তার উচ্ছেদে কোনো না কোনো উপায়ে অংশ নেওয়া, আধুনিক প্রলেতারিয়েতের মুক্তিসাধনের কাজে অংশ নেওয়া, একে তিনিই প্রথম তার নিজের অবস্থা ও প্রয়োজন সম্বন্ধে, তার মুক্তির শর্তাবলী সম্বন্ধে সচেতন করে

মাও সেতুংয়ের কয়েকটি উদ্ধৃতি

০১. বিষয়ীবাদ, সংকীর্ণতাবাদ ও ছকে বাঁধা পার্টিগত রচনা — এই তিনটিই মার্কসবাদবিরোধি এবং এইগুলি শ্রমিকশ্রেণির নয়, শোষকশ্রেণিসমুহেরই স্বার্থসাধন করে। ছকে বাধা পার্টিগত রচনার বিরোধিতা করুন; ৮ ফেব্রুয়ারি, ১৯৪২ ০২. নির্ভুল সর্বদাই ভুলের সঙ্গে সংগ্রাম করে বিকশিত হয়। সত্য, মঙ্গল ও সুন্দর সব সময়ই মিথ্যা, অমঙ্গল ও কুৎসিতের সঙ্গে তুলনার মধ্য দিয়ে

Top