আপনি যা পড়ছেন
মূলপাতা > প্রাণ > প্রাণী > সাপ > নকশি ঢোড়া দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার সাপ

নকশি ঢোড়া দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার সাপ

বৈজ্ঞানিক নাম: Xenochrophis piscator (Schneider, 1799) সমনাম: Hydrus piscator Schneider, 1799; Natrix piscator Smith, 1943; Xenochrophis piscator Malnate and Minton, 1965.; বাংলা নাম: নকশি ঢোড়া সাপ, ধোরা সাপ; ইংরেজি নাম: checkered keelback বা Asiatic water snake. জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Animalia বিভাগ: Chordata উপপর্ব: Vertebrata শ্রেণী: Reptilia বর্গ: Squamata উপবর্গ: Serpentes পরিবার/গোত্র: Colubridae গণ: Xenochrophis, Günther, 1864, প্রজাতি:  Xenochrophis piscator (Schneider, 1799)

ভূমিকা: নকশি ঢোড়া সাপ বা ঢোড়া সাপ বা গুড়ি সাপ বা ধোরা সাপ (বৈজ্ঞানিক নাম: Xenochrophis piscator ইংরেজি: checkered keelback বা Asiatic water snake) কলুব্রিডি পরিবারের জেনোক্রোফিস গণের সাপের একটি প্রজাতি। ঢোড়া সাপের প্রজাতিগুলোর ভেতরে এটি একটি। বাংলাদেশের সাপের তালিকাজেনোক্রোফিস গণে যে দুইটি প্রজাতি পাওয়া যায় এটি তার একটি।

বর্ণনা: নকশি ঢোড়া সাপের দেহের দৈর্ঘ্য ৬০ সেমি, দেহের সর্বোচ্চ দৈর্ঘ্য ১.৭৫ মিটার পর্যন্ত উল্লেখ করা হয়েছে। এদের দেহ চকচকে জলপাই সবুজ রঙের, জলপাই বাদামী রঙের, হলুদ, বাদামী, ধূসর বা কালাে রঙের, শরীরের নকসা checkered যা হালকা থেকে কালাে দাগের হতে পারে, অনেক সময় গাঢ় পাশাপাশি দাগ বা cheeks থাকতে পারে। মাথা গ্রীবার চেয়ে প্রশস্ত। এদের দুইটি কালাে স্টাইক থাকে—একটি নিচের দিকে এবং অপরটি মুখের কোণে অবস্থিত। গালে কখনাে লাল বা গােলাপী রঙের দাগ থাকে। দেহের অঙ্কীয়ভাগ সম্পূর্ণ সাদা।

নকশি ঢোড়া সাপের আঁইশের বিন্যাস: আঁইশ শিরযুক্ত, উজ্জ্বল এবং দেহের মধ্যভাগে ১৯ সারিতে সাজানাে থাকে: অঙ্কীয় আঁইশের সংখ্যা ১২২-১৫৮টি, পায়ুর আঁইশ বিভক্ত, কখনাে অবিভক্ত; নি-পুচ্ছের আঁইশের সংখ্যা ৭০-৯৭টি, জোড়ায় অবস্থান করে; আন্তঃনাসিকা সামনের দিকের অংশে সরু; সুপ্রাল্যব্রিয়াল ৯টি, ৪র্থ এবং ৫ম টি চোখের কাছাকাছি অবস্থিত; প্রিঅকুলার ১ টি পােষ্টঅকুলার ৩টি; টেম্পােরাল ২+২টি বা ২+৩টি (Whitaker and Captain, 2004) ।

স্বভাব ও আবাসস্থল: নকশি ঢোড়া সাপ হ্রদ, পুকুর, নদী, নিমজ্জিত ধানক্ষেত এবং ভুমিতে বাস করে। এরা দিনের বেলায় ও রাতে সক্রিয় থাকে, খাদ্য হিসেবে মাছ, ব্যাঙ কখনাে ইঁদুর ও পাখি ভক্ষণ করে তবে অপ্রাপ্ত সাপ বিভিন্ন প্রাণী ডিম, ব্যাঙাচি এবং জলজ কীটপতঙ্গ গ্রহণ করে। এরা উত্তেজিত হলে হিংস্র প্রকৃতির হয়। এরা কখনাে কামড়ায় না তবে অসর্তকভাবে নড়াচড়া করার সময় কামড়াতে পারে।

এদের মাথা চ্যাপ্টা, গ্রীবার পাঁজর পর্যন্ত প্রসারিত এবং rears up। এদের প্রজননকাল ডিসেম্বর-মার্চ। এরা গর্তে, দেয়ালের ফাটলে ১০০টি পর্যন্ত ডিম পাড়ে। স্ত্রী সাপ ডিম পাহাড়া দেয়, ডিম পরিস্ফুটনের জন্য ৩৭-৯০ দিন সময় লাগে (Das, 2002)।

বিস্তার: নকশি ঢোড়া সাপ বাংলাদেশ, ভারত, আফগানিস্তান, পাকিস্তান, চীনের দক্ষিণ অংশ এবং থাইল্যান্ডে দেখা যায়। (Das, 2002; Whitaker and Captain, 2004)। বাংলাদেশে এই প্রজাতির সাপ ব্যাপক বিস্তৃত (IUCN-Bangladesh, 2003)।

বর্তমান অবস্থা: নকশি ঢোড়া সাপ আইইউসিএন কর্তৃক বিশ্বব্যাপী মূল্যায়িত নয় এবং বাংলাদেশে সংকটাপন্ন। (IUCN-Bangladesh, 2003) ।

ছবির ইতিহাস: নকশি ঢোড়া সাপের ছবিটি Harikrishnan S তুলেছেন সেপ্টেম্বর ২০১৭ সময়ে ভারত থেকে।

তথ্যসূত্র:

১. এম কামরুজ্জামান, জিয়া উদ্দিন আহমেদ (প্রধান সম্পা.), বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ: উভচর প্রাণী ও সরীসৃপ, খণ্ড: ২৫ (ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি, ২০০৯), পৃ. ১৬৪-১৬৫।

আরো পড়ুন

Anup Sadi
অনুপ সাদির প্রথম কবিতার বই “পৃথিবীর রাষ্ট্রনীতি আর তোমাদের বংশবাতি” প্রকাশিত হয় ২০০৪ সালে। তাঁর মোট প্রকাশিত গ্রন্থ ১০টি। সাম্প্রতিক সময়ে প্রকাশিত তাঁর “সমাজতন্ত্র” ও “মার্কসবাদ” গ্রন্থ দুটি পাঠকমহলে ব্যাপকভাবে সমাদৃত হয়েছে। ২০১০ সালে সম্পাদনা করেন “বাঙালির গণতান্ত্রিক চিন্তাধারা” নামের একটি প্রবন্ধগ্রন্থ। জন্ম ১৬ জুন, ১৯৭৭। তিনি লেখাপড়া করেছেন ঢাকা কলেজ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। ২০০০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে এম এ পাস করেন।

Leave a Reply

Top