আপনি যা পড়ছেন
মূলপাতা > প্রাণ > উদ্ভিদ > গুল্ম > পাতি অলকনন্দা গ্রীষ্মমণ্ডলের শোভাবর্ধনকারী গাছ

পাতি অলকনন্দা গ্রীষ্মমণ্ডলের শোভাবর্ধনকারী গাছ

বৈজ্ঞানিক নাম: Allamanda cathartica L., Mant. Pl. 2: 214 (1771).. সমনাম: Allamanda aubletii Pohl; Allamanda chelsonii K.Koch nom. inval.; Allamanda grandiflora (Aubl.) Lam. nom. illeg.; Allamanda hendersonii W.Bull ex Dombrain; Allamanda latifolia C.Presl; Allamanda linnaei Pohl; Allamanda salicifolia hort.; Allamanda schottii Hook. nom. illeg.; Allamanda wardleyana Lebas; Allamanda williamsii auct.; Echites salicifolius Willd. ex Roem. & Schult.; Echites verticillatus Sessé & Moc.; Orelia grandiflora Aubl. nom. illeg. ইংরেজি নাম: Common Allamanda, Golden Trumpet. স্থানীয় নাম: হারকাকরা, পাতি অলকনন্দা। জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae – Plants শ্রেণী: Eudicots উপশ্রেণি: Asterids বর্গ: Gentianales পরিবার: Apocynaceae গণ: Allamanda প্রজাতি: Allamanda cathartica

ভূমিকা: পাতি অলকনন্দা বা হারকাকরা (প্রজাতি: Allamanda cathartica ইংরেজি নাম golden trumpet, common trumpetvine, বা yellow allamanda)  এপোসিনাসি পরিবারের অ্যালামান্ডা গণের একটি সপুষ্পক চিরহরিৎ, আরোহী গুল্ম।

বিবরণ: পাতি অলকনন্দার পাতা একটি আবর্তে ৩৫টি, অঙ্কীয় পৃষ্ঠ মসৃণ, পুষ্পবৃন্ত খর্ব, অনুর্ধ্ব ৪ মিমি লম্বা, পত্রফলক ১১-১৫ X ৪.০-৫.২ সেমি, আয়তাকার বা বল্লমাকার, নিম্নাংশ কীলকাকার, শীর্ষ দীর্ঘাগ্র। সাইম কাক্ষিক, যৌগিক মঞ্জরীবিশিষ্ট।

পুষ্প বৃহৎ, দর্শণীয়, অনূর্ধ্ব ৭ সেমি লম্বা, উজ্জ্বল হলুদ। বৃতি নিম্নাংশ থেকে খন্ডিত। দলমণ্ডল কুপি-আকৃতির, দলমণ্ডলের দলফলক ব্যাসে ৬.৫ সেমি এর উর্ধ্বে, নল বেলনাকার, নিম্নাংশ প্রশস্ত নয়, কণ্ঠদেশ রোমশ। ফল কণ্টকযুক্ত ক্যাপসিউল, প্রায় গোল, ৩-৭ X ৩-৫ সেমি, এককোষ্ঠী। বীজ বহু সংখ্যক, একটি বৃত্তাকার পক্ষ বিশিষ্ট, গুচ্ছরোম বিহীন। ফুল ও ফল ধারণ ঘটে সারা বৎসর, ফল সাধারণত শীতকালে হয় ।

পাতি অলকনন্দার ক্রোমোসোম সংখ্যা: ২n = ১৮ (Kumar and Subramaniam, 1986)।

চাষাবাদ ও আবাসস্থল: বাগানে আবাদ করা হয়। বংশ বিস্তার হয় বীজ এবং কাণ্ডের কাটিং দ্বারা।

বিস্তৃতি: গ্রীষ্মমণ্ডলীয় আমেরিকার দেশজ। বাংলাদেশ, ভারত, মায়ানমার, নেপাল, পাকিস্তান এবং শ্রীলংকার আর্দ্র অঞ্চলে ব্যাপকভাবে শোভাবর্ধনকারী গাছ হিসেবে জন্মানো হয় এবং মাঝে মাঝে প্রকৃতিজাতকরণ করা হয়। বাংলাদেশে ইহা দেশের সর্বত্র পাওয়া যায়।

অর্থনৈতিক ব্যবহার ও গুরুত্ব: শোভাবর্ধনকারী গুণ সম্পন্ন বলে চাষ করা হয়। বাকল এবং পাতার ঔষধী গুণাগুন রয়েছে (Deb, 1983)।

অন্যান্য তথ্য: বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষের ৬ঠ খণ্ডে (আগস্ট ২০১০) পাতি অলকনন্দা প্রজাতিটির সম্পর্কে বলা হয়েছে যে, এদের শীঘ্র কোনো সংকটের কারণ দেখা যায় না এবং বাংলাদেশে এটি আশঙ্কামুক্ত হিসেবে বিবেচিত। বাংলাদেশে পাতি অলকনন্দা সংরক্ষণের জন্য কোনো পদক্ষেপ গৃহীত হয়নি। প্রজাতিটি সম্পর্কে প্রস্তাব করা হয়েছে যে শীঘ্র সংরক্ষণের পদক্ষেপ গ্রহণের প্রয়োজন নেই।

তথ্যসূত্র:

১. এম আতিকুর রহমান, (আগস্ট ২০১০)। “অ্যানজিওস্পার্মস ডাইকটিলিডনস”  আহমেদ, জিয়া উদ্দিন; হাসান, মো আবুল; বেগম, জেড এন তাহমিদা; খন্দকার মনিরুজ্জামান। বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ। ৬ (১ সংস্করণ)। ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। পৃষ্ঠা ১৮৫। আইএসবিএন 984-30000-0286-0

আরো পড়ুন

Anup Sadi
অনুপ সাদির প্রথম কবিতার বই “পৃথিবীর রাষ্ট্রনীতি আর তোমাদের বংশবাতি” প্রকাশিত হয় ২০০৪ সালে। তাঁর মোট প্রকাশিত গ্রন্থ ১০টি। সাম্প্রতিক সময়ে প্রকাশিত তাঁর “সমাজতন্ত্র” ও “মার্কসবাদ” গ্রন্থ দুটি পাঠকমহলে ব্যাপকভাবে সমাদৃত হয়েছে। ২০১০ সালে সম্পাদনা করেন “বাঙালির গণতান্ত্রিক চিন্তাধারা” নামের একটি প্রবন্ধগ্রন্থ। জন্ম ১৬ জুন, ১৯৭৭। তিনি লেখাপড়া করেছেন ঢাকা কলেজ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। ২০০০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে এম এ পাস করেন।

Leave a Reply

Top