You are here
Home > প্রাণ > উদ্ভিদ > গুল্ম > আদা একটি ঔষধি কন্দজ গুল্ম

আদা একটি ঔষধি কন্দজ গুল্ম

বৈজ্ঞানিক নাম: Zingiber officinale Rosc., Trans. Linn. Soc. Lond. 8: 348 (1807).

সমনাম: Amomum singiber L. (1753).

ইংরেজী নাম: Ginger.

স্থানীয় নাম: আদা

ব্যবহারযোগ্য আদা, আলোকচিত্র: Bff, cc-by-sa-3.0

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস

জগৎ/রাজ্য: Plantae

বিভাগ: Angiosperms

অবিন্যাসিত: Monocots

অবিন্যাসিত: Commelinids

বর্গ: Zingiberales

গোত্র: Zingiberaceae

গণ: Zingiber

প্রজাতি: Zingiber officinale Rosc., Trans. Linn. Soc. Lond. 8: 348 (1807).

বর্ণনা: আদা জিঞ্জিবার গণের ছোট রাইজোমসমৃদ্ধ বীরুৎ, রাইজোম সুগন্ধী, ঝাঁঝালো স্বাদ, ভিতরে ফিকে হলুদ। পত্রল-কান্ড প্রায় ০.৫- ১.০ মিটার লম্বা। পাতা অবৃন্তক, রেখ-ল্যান্সাকার, দ্বীর্ঘাগ্র, মসৃণ বা অতি রোমশ, নিচে মধ্যশিরা বরাবর, লিগিউল ২৪ মিমি লম্বা, ঝিল্লিবৎ, অগভীরভাবে দ্বিখন্ড। স্পাইক মুলজ, ৪.৫-৭.০ X ২.০-২.৫ সেমি, ডিম্বাকার, মঞ্জরীদন্ড ১০-২০ সেমি লম্বা, খাড়া, ৩-৫ সেমি লম্বা ল্যান্সাকার সীথ দ্বারা আবৃত। মঞ্জরীপত্র উপবৃত্তাকার, কাসপিডেট, প্রায় ২.৫ x ৩.০ সেমি, সবুজ, কিনারা ক্রীম-হলুদ, নিচেরটি সাধারণত মিউক্রোনেট, ঘনভাবে প্রান্ত-আচ্ছাদী, উপমঞ্জরীপত্র মোটামুটি মঞ্জরীপত্রের সমান, প্রায় ২.৪ সেমি লম্বা কিন্তু অপেক্ষাকৃত চিকন, ঝিল্লিবৎ, পেচানো। বৃতি স্ফীত, ১০-১২ মিমি লম্বা, ৩-দন্তুর, একপাশ বিদীর্ণ। দলনল ২.২-২.৫ সেমি লম্বা, পাপড়ি ৩টি, ক্রীম-হলুদ, পিঠেরটি প্রায় ২০ x ৮ মিমি, মাথার দিকে ক্রমান্বয়ে সরু। লেবেলাম বিডিম্বাকার, প্রায় ১.৫x১.০ সেমি, গাঢ় বেগুনী, মাঝে মাঝে ক্রীম-হলুদ ছোপ, অগ্র খাঁজকাটা। ষ্টেমিনোড ২, ডিম্বাকার, ৬-৭ X ৩-৪ মিমি, প্রায় নীচ পর্যন্ত মুক্ত। পুংদন্ড প্রায় ১-২ মিমি লম্বা, পরাগধানী প্রায় ৮.৫ মিমি লম্বা, ক্রীম-হলুদ, ঠোট ৭-৮ মিমি লম্বা, কালচে বেগুনী। গর্ভাশয় ৩.০ x ২.৫ মিমি, মসৃণ, গর্ভমুন্ড ফানেলাকৃতি, কিনারা সিলিয়াযুক্ত, গর্ভাশয় উপরস্থ গ্রন্থি রেখাকার, প্রায় ৫ মিমি লম্বা, মুক্ত। ফুল ধারণ ঘটে সেপ্টেম্বর-নভেম্বর।

ক্রোমোসোম সংখ্যা : 2n = ২২ (Kumar and | Subramanium, 1986).

আবাসস্থল: উচ্চভূমিতে চাষ করা হয়। বিস্তৃতি ও গ্রীষ্মমন্ডলীয় এশিয়ায় ব্যাপক চাষ হয়। বাংলাদেশে এটি সারাদেশেই চাষ হয়।

অর্থনৈতিক ব্যবহার/গুরুত্ব/ক্ষতিকর দিক: রাইজোম উত্তেজক, বায়ু নাশক, হজমকারক, পাকস্থলীর শক্তি বর্ধক, যৌনশক্তি বর্ধক, রুচিকারক, মূত্র বর্ধক। মনে করা হয় এটি স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করে, ঠান্ডা, কফ, ব্রঙ্কাইটিস ও হাঁপানির  প্রতিকার করে। বদহজম, পেটফাঁপা, বমি, খিচুনি এবং পাকস্থলির অন্যান্য যন্ত্রণাময় দেওয়া হয়। এটি পিত্তরোগ, গলার ঘা, স্বরভঙ্গ এবং বাকশক্তি ব্যবহার হয়। এর রাইজোম একটি জনপ্রিয় মসলা, তরকারী, চাটনি ও অন্যান্য খাবার তৈরীতে ব্যবহার হয়। এর থেকে আচার করা হয় এবং বিভিন্ন পানীয় সুগন্ধী করতে ব্যবহার করা হয়। আদা চিবালে রুচি বাড়ে। আদার ভেষজ গুনাগুণ সম্পর্কে বিস্তারিত পড়ুন

আদা ও শুঠের ১০টি ভেষজ গুণাগুণ

জাতিতাত্বিক ব্যবহার: লবণসহ আদা চিবালে বায়ুজনিত পেট ব্যথা উপশম হয়। আদা চা ইনফ্লুয়েঞ্জা, সর্দি এবং গলাব্যথা উপশমে একটি জনপ্রিয় পানীয়।

বংশ বিস্তার: রাইজোম দ্বারা বংশ বিস্তার হয়।

প্রজাতিটির সংকটের কারণ: কোনো সংকট নাই।

সংরক্ষণ ও বর্তমান অবস্থা: আশংকা মুক্ত (lc)।

গৃহীত পদক্ষেপ: সংরক্ষণের কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

প্রস্তাবিত পদক্ষেপ: প্রয়োজন নাই।

তথ্যসূত্র:

১. মোহাম্মদ ইউসুফ, (আগস্ট ২০১০)। অ্যানজিওস্পার্মস ডাইকটিলিডনস”  আহমেদ, জিয়া উদ্দিন; হাসান, মো আবুল; বেগম, জেড এন তাহমিদা; খন্দকার মনিরুজ্জামান। বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ। ১২ (১ সংস্করণ)। ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। পৃষ্ঠা ৪৯১-৪৯২। আইএসবিএন 984-30000-0286-0

আরো পড়ুন

Anup Sadi
অনুপ সাদির প্রথম বই প্রকাশিত হয় ২০০৪ সালে। তাঁর মোট প্রকাশিত গ্রন্থ ১০টি। সাম্প্রতিক সময়ে প্রকাশিত তাঁর সমাজতন্ত্র মার্কসবাদ গ্রন্থ দুটি পাঠকমহলে ব্যাপকভাবে সমাদৃত হয়েছে। ২০১০ সালে সম্পাদনা করেন বাঙালির গণতান্ত্রিক চিন্তাধারা নামের একটি প্রবন্ধগ্রন্থ। জন্ম ১৬ জুন, ১৯৭৭। তিনি লেখাপড়া করেছেন ঢাকা কলেজ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। ২০০০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে এম এ পাস করেন।

Leave a Reply

Top