You are here
Home > প্রাণ > উদ্ভিদ > বৃক্ষ > হলুদ লাপছো বা হলুদ পোউ মধ্য ও দক্ষিণ আমেরিকার বৃক্ষ

হলুদ লাপছো বা হলুদ পোউ মধ্য ও দক্ষিণ আমেরিকার বৃক্ষ

হলুদ লাপছো, হলুদ পোউ

বৈজ্ঞানিক নাম: Handroanthus serratifolius

সমনাম: Bignonia serratifolia Vahl; Tecoma serratifolia (Vahl) G.Don; Handroanthus araliaceus (Cham.) Mattos

সাধারণ নাম: Yellow Lapacho, Pau D’arco , Yellow Poui, Yellow Ipe, Pau D’arco Amarelo বাংলা নাম: হলুদ লাপছো

হলুদ লাপছো, আলোকচিত্র: Forest & Kim Starr

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস

জগৎ/রাজ্য: Plantae

বিভাগ: Angiosperms

অবিন্যাসিত: Eudicots

অবিন্যাসিত: Asterids

বর্গ: Lamiales

পরিবার: Bignoniaceae

গণ: Handroanthus

প্রজাতি: Handroanthus serratifolius (Vahl) S.O. Grose

পরিচিতি: হলুদ লাপছো বা হলুদ পোউ হচ্ছে বিগ্নোনিয়াসি পরিবারের একটি উদ্ভিদ। এই গাছ অনেক বড় হয় এটি বনভূমি এবং বাগানের বা ফার্মের প্রজাতি হিসেবে এখন পরিচিত।

বিবরণ: এদের ফুল ফেব্রুয়ারির শেষ থেকে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে ফোটে। ফুলের কুড়ি আসার ঠিক আগেরদিন সব পুরনো পাতা ঝরে যায়। একদিনের মধ্যেই কুড়ি গুলো পূর্নাঙ্গ ভাবে ফুটন্ত ফুলে পরিনত হয়। গাছের দিকে তাকালে চোখে পড়বে শুধুই ফুল আর ফুল। বছরের অন্যান্য সময়ে গাছে সবুজ পাতায় আচ্ছন্ন থাকে।

এটি ১৫০ ফুট (৪৬ মিটার) লম্বা পর্যন্ত ক্রমবর্ধমান ক্রান্তীয় বনভূমির বৃহত্তম এবং শক্তিশালীতম একটি গাছের মধ্যে অন্যতম। এটি ভিত্তিটি ৪-৭ ফুট (১.২-২.১ মিটার) ব্যাসে হতে পারে। এটা একটি গুরুতর শক্ত কাঠ এবং আগুন এবং কীটপতঙ্গ প্রতিরোধের জন্য বিখ্যাত। ফলে বাণিজ্যিক খামারে এটি লোহাকাঠ হিসেবে ব্যবসা করা হয়।

বিস্তৃতি: বাংলাদেশে ঢাকার সাভারে সাভার ডেন্ড্রোরিয়ামে এই গাছ আছে। ময়মনসিং বোটানিক্যাল এবং ময়মনসিংহ বন বিভাগের কার্যালয়ে এই গাছ আছে।  এটি মধ্য ও দক্ষিণ আমেরিকার বনভূমির একটি স্থানীয় প্রজাতি। এই উদ্ভিদ জন্মায় ব্রাজিলে, ফরাসি গুয়ানা, বলিভিয়া, প্যারাগুয়ে এবং উত্তর আর্জেন্টিনা পর্যন্ত পৌঁছেছে।

আরো পড়ুন

Anup Sadi
অনুপ সাদির প্রথম বই প্রকাশিত হয় ২০০৪ সালে। তাঁর মোট প্রকাশিত গ্রন্থ ১০টি। সাম্প্রতিক সময়ে প্রকাশিত তাঁর সমাজতন্ত্র মার্কসবাদ গ্রন্থ দুটি পাঠকমহলে ব্যাপকভাবে সমাদৃত হয়েছে। ২০১০ সালে সম্পাদনা করেন বাঙালির গণতান্ত্রিক চিন্তাধারা নামের একটি প্রবন্ধগ্রন্থ। জন্ম ১৬ জুন, ১৯৭৭। তিনি লেখাপড়া করেছেন ঢাকা কলেজ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। ২০০০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে এম এ পাস করেন।

Leave a Reply

Top