You cannot copy content of this page
আপনি যা পড়ছেন
মূলপাতা > প্রাণ > উদ্ভিদ > বৃক্ষ > শিউলি বা শেফালী গাছের ভেষজ গুণ

শিউলি বা শেফালী গাছের ভেষজ গুণ

শিউলি

শিউলি ফুল (বৈজ্ঞানিক নাম: Nyctanthes arbor-tristis, ইংরেজি: night-flowering jasmine বা parijat) হচ্ছে নিক্টান্থেস (Nyctanthes) প্রজাতির বৃক্ষ। শিউলি গাছ দক্ষিণ এশিয়ার দক্ষিণ-পূর্ব থাইল্যান্ড থেকে পশ্চিমে বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল, ও পাকিস্তান অঞ্চল জুড়ে বিস্তৃত। এটি শেফালী নামেও পরিচিত। এই ফুল শরৎ ঋতুতে ফোটে। এর ফুলগুলি রাতে ফোটে এবং সকালে ঝরে যায়। ভেষজ ঔষধ হিসাবে শিউলির পাতা, বীজ, ছাল, মূল ব্যবহার করা হয়।

আরো পড়ুন: শিউলি বা শেফালী বাংলাদেশ ভারতের আলংকারিক সুগন্ধি ফুল

বিভিন্ন অসুখে ব্যবহার:

পৈত্তিক জ্বরে: শিউলি পাতার রস ৩ চামচ করে দিনে তিনবার খেলে পৈত্তিক জ্বর দ্রুত ভালো হয়ে যায়।

বিষম ও অবিরাম জ্বরে: শিউলি গাছের ৬টি থেকে ৮টি পাতা সামান্য পানির সাথে বেটে তার মধ্যে টাটকা আদার রস মিশিয়ে রোগীকে খেতে দিলে তাহলে উভয় জ্বরে আরাম পাবে। এ ওষুধ প্রয়োগের সময় শাক সবজি বেশি করে খাওয়া প্রয়োজন।

মাথার খুকিতে: শিউলির বীজের গুড়া গোসল করতে যাবার ২ থেকে ৩ ঘণ্টা আগে সামান্য পানিতে গুলে মাথার সব জায়গায় ভালোভাবে ঘষে মাখতে হবে। এভাবে কয়েকদিন মাখার পর মাথার খুকি সব চলে যাবে।

পিত্ত বাড়লে: শিউলির ৮ থেকে ১০টি পাতা সামান্য গাওয়া ঘিয়ে ভেজে খেলে খুব উপকার পাওয়া যায়। তিন থেকে চার দিন খাওয়া দরকার। ভাতের সাথে অন্য কিছু খাবার আগে শিউলি পাতা মেখে প্রথমেই খেতে হবে।

কোমরের বাতে: টাটকা ১৫ থেকে ২০টি শিউলি গাছের পাতা দুই কাপ পানিতে সিদ্ধ করে আধা কাপ থাকতে আঁচ থেকে নামিয়ে ফেলতে হবে। সে পানি সকালে এবং একইভাবে সন্ধ্যায় খাওয়া দরকার। কিছুদিন নিয়ম করে খেলে বাত রোগ আরোগ্য হয়।

ঘন সর্দি অথবা হলুদ শ্লেষ্ময়: শিউলি গাছের মূল ১ গ্রাম পানের সাথে চিবিয়ে দিনে একবার খেলে সর্দি অথবা শ্লেষ্ম ভিতর থেকে বের হয়ে যায়।

আরো পড়ুন:  শ্যাওড়া গাছের ভেষজ গুণ

ছোটদের ক্রিমি রোগে: শিউলি পাতার ৪ চামচ রসে আধা চামচ চিনি মিশিয়ে ছোট ছেলে ও মেয়েদের খাওয়ালে পেটের বড় ক্রিমি বের হয়ে যায়। অনেক ক্ষেত্রে মরা ক্রিমিও মলের সাথে বের হয়ে আসে।

 বি: দ্র: মাথার খুসকি ছাড়া অন্যান্য রোগে শিউলি পাতা, মূলের ছাল ও ত্বক ব্যবহার করা হলে, খাদ্যের ব্যাপারে কিছু নিয়ম পালন করতে হবে। ওষুধ যে ক’দিন ব্যবহার করবে ঐ সময় মাছ, মাংস, ডিম ও পিয়াজ খাওয়া উচিত নয়।

সতর্কীকরণ: ঘরে প্রস্তুতকৃত যে কোনো ভেষজ ওষুধ নিজ দায়িত্বে ব্যবহার করুন।

তথ্যসূত্র:

১. আঃ খালেক মোল্লা সম্পাদিত;লোকমান হেকিমের কবিরাজী চিকিৎসা; মণিহার বুক ডিপো, ঢাকা, অক্টোবর ২০০৯; পৃষ্ঠা ৬৯-৭০।

Dolon Prova
জন্ম ৮ জানুয়ারি ১৯৮৯। বাংলাদেশের ময়মনসিংহে আনন্দমোহন কলেজ থেকে বিএ সম্মান ও এমএ পাশ করেছেন। তাঁর প্রকাশিত প্রথম কবিতাগ্রন্থ “স্বপ্নের পাখিরা ওড়ে যৌথ খামারে”। বিভিন্ন সাময়িকীতে তাঁর কবিতা প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়া শিক্ষা জীবনের বিভিন্ন সময় রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক কাজের সাথে যুক্ত ছিলেন। বর্তমানে রোদ্দুরে ডট কমের সম্পাদক।

Leave a Reply

Top