You are here
Home > প্রাণ > প্রাণী > স্তন্যপায়ী

মুরার স্যডলব্যাক বানর ব্রাজিলের সংকটাপন্ন স্তন্যপায়ী

বৈজ্ঞানিক নাম: Saguinus fuscicollis mura, সমনাম: নেই বাংলা নাম: মুরার স্যডলব্যাক বানর, ইংরেজি নাম: Mura’s Saddleback Tamarin. জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Animalia বিভাগ: Chordata শ্রেণী: Mammalia পরিবার: Callitrichidae গণ: Saguinus, Hoffmannsegg, 1807; প্রজাতি: Saguinus fuscicollis উপ প্রজাতি: Saguinus fuscicollis mura, বর্ণনা: মুরার স্যডলব্যাক বানর দেখতে খুবই ছোট। এরা লম্বায় ৯.৪ ইঞ্চি, তবে লেজের দৈর্ঘ্য শরীরের চেয়ে বেশি। লেজ প্রায় ১২.৬ ইঞ্চি লম্বা হয়।

চায়না বনরুই বাংলাদেশের স্তন্যপায়ী মহাবিপন্ন প্রাণী

বাংলা নাম: চায়না বনরুই, ইংরেজি নাম/Common Name: Chinese Pangolin. বৈজ্ঞানিক নাম/Scientific Name: Manis pentadactyla সমনাম:    জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্যKingdom: Animalia বিভাগ/Phylum: Chordata শ্রেণী/Class: Mammalia বর্গ/Order: Pholidota পরিবার/Family: Manidae, গণ/Genus: Manis, Linnaeus, 1758; প্রজাতি/Species: Manis pentadactyla Linnaeus, 1758  ভূমিকা: বাংলাদেশের স্তন্যপায়ী প্রাণিদের মধ্যে চায়না বনরুই এক ধরনের আঁইশযুক্ত স্তন্যপায়ী। পৃথিবীতে ৭ প্রজাতির বনরুই রয়েছে, তন্মধ্যে এশিয়ায় আছে তিন প্রজাতির আর এই তিনটিই বাংলাদেশে

দেশি বনরুই বাংলাদেশের দুর্লভ আবাসিক প্রাণি

বাংলা নাম: দেশি বনরুই, ইংরেজি নাম/Common Name: Indian Pangolin. বৈজ্ঞানিক নাম/Scientific Name: Manis crassicaudata সমনাম:   জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্যKingdom: Animalia বিভাগ/Phylum: Chordata শ্রেণী/Class: Mammalia বর্গ/Order: Pholidota পরিবার/Family: Manidae, গণ/Genus: Manis, Linnaeus, 1758; প্রজাতি/Species: Manis crassicaudata (Gray, 1827) বর্ণনা: বাংলাদেশের স্তন্যপায়ী প্রাণিদের মধ্যে দেশি বনরুই দীর্ঘ ও সরু দেহের একটি প্রাণি। বনরুই ওজনে ২ থেকে ৯ কেজি পর্যন্ত হয়ে থাকে।  পৃথিবীতে ৭ প্রজাতির

বাংলাদেশের বিলুপ্ত স্তন্যপায়ী প্রাণীর তালিকা

বাংলাদেশ থেকে প্রতিনিয়ত অনেক প্রাণি বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। দেশের ভেতরে দশ বছর আগেও যেসব প্রাণী দেখা যেত তা আর এখন দেখা যায় না। যেসব প্রাণি মাঝে মাঝে দেখা যায় সেগুলোর অনেকগুলোই পার্শবর্তী দেশ থেকে পথ ভুলে বাংলাদেশে আসে এবং এদেশের মানুষের হাতে মারা পড়ে। ফলে সেসব প্রাণি যে বাংলাদেশে আছে

জাভাদেশীয় গণ্ডার বাংলাদেশের বিলুপ্ত স্তন্যপায়ি

বাংলা নাম: জাভা গণ্ডার, জাভাদেশীয় গণ্ডার ইংরেজি নাম/Common Name: Javan Rhinoceros. বৈজ্ঞানিক নাম/Scientific Name: Rhinoceros sondaicus সমনাম: Rhinoceros javanicus, Rhinoceros floweri.   জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্যKingdom: Animalia বিভাগ/Phylum: Chordata শ্রেণী/Class: Mammalia বর্গ/Order: Perissodactyla পরিবার/Family: Rhinocerodae, গণ/Genus: Rhinoceros, Linnaeus, 1758; প্রজাতি/Species: Rhinoceros sondaicus (Desmarest, 1822) বর্ণনা: বাংলাদেশের স্তন্যপায়ীদের মধ্যে গণ্ডার ছিলো তিন প্রজাতির। এদের মধ্যে আমাদের আলোচ্য গণ্ডারের নাম জাভা গণ্ডার। মাথাসহ জাভা গণ্ডারের

সুমাত্রার গণ্ডার পৃথিবীর মহাবিপন্ন গণ্ডার

সুমাত্রার গণ্ডার পৃথিবীর মহাবিপন্ন স্তন্যপায়ী প্রাণী। এদের বৈজ্ঞানিক নাম (Dicerorhinus sumatrensis) এবং সাধারণ নাম হচ্ছে Sumatran rhinoceros. পৃথিবীতে যে তিন প্রজাতির গণ্ডার পাওয়া যায় তার ভেতর এটি সবচেয়ে ছোট এবং এটির বিলুপ্তির ঝুঁকিও সবচেয়ে বেশি। এই প্রজাতির গণ্ডার এখন শুধু ইন্দোনেশিয়াতে পাওয়া যায়। যদিও অতীতে এরা ভুটানের হিমালয় অঞ্চল, উত্তর-পূর্ব

দেশি গণ্ডার দক্ষিণ এশিয়ার মহাবিপন্ন স্তন্যপায়ী আবাসিক প্রাণী

বৈজ্ঞানিক নাম: Rhinoceros unicornis সমনাম: নেই বাংলা নাম: দেশি গণ্ডার, ভারতীয় গণ্ডার ইংরেজি নাম: Indian rhinoceros. জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Animalia বিভাগ: Chordata শ্রেণী: Mammalia বর্গ: Perissodactyla পরিবার: Rhinocerotidae গণ: Rhinoceros প্রজাতি: Rhinoceros unicornis Linnaeus, 1758 বর্ণনা: ভারতীয় গণ্ডার, বা দেশি গণ্ডার (ইংরেজি: Indian rhinoceros) (Rhinoceros unicornis), অথবা বৃহত্তর এক শৃঙ্গযুক্ত গণ্ডার অথবা ভারতীয় এক শৃঙ্গযুক্ত গণ্ডার গণ্ডার পরিবারের অন্তর্ভুক্ত। এটি অরক্ষিত প্রজাতি

গোলাপি ডলফিন বিলুপ্তির পথে

গোলাপি ডলফিন বা Indo-Pacific Hump-backed Dolphin, যার বৈজ্ঞানিক নাম  Sousa chinensis, বাংলাদেশে দেখার কোনো রেকর্ড না থাকলেও বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণি জ্ঞানকোষে এটিকে বাংলাদেশের স্তন্যপায়ী প্রানির তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ধরে নেয়া যায় এটি একদা বঙ্গোপসাগরেও পাওয়া যেত। কিন্তু এই  গোলাপি ডলফিন আজ বৈশ্বিকভাবেই মহাবিপন্ন। “গত দশকে আমরা দেখেছি ভয়ানকভাবে

বাংলাদেশে বনরুই খুবই কমে গেছে, নতুন গবেষণার ফলাফল

বিশ্বের সবচেয়ে পাচারকারী স্তন্যপায়ী প্রাণী বনরুই, দ্রুত পৃথিবী থেকে বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। তবুও, আমরা এই নিঃসঙ্গ প্রাণীদের সম্পর্কে খুব সামান্যই জানি। এমনকি বনরুইদের সংখ্যা সম্পর্কেও মৌলিক তথ্যের গুরুতরভাবে অভাব রয়েছে। বৈজ্ঞানিকরা বলছেন, এই প্রাণীদের সংখ্যা না জানার কারণে এদের সংরক্ষণের জন্য কর্ম পরিকল্পনা করা কঠিন হচ্ছে। এখন, বাংলাদেশে মোরো আদিবাসীদের সহায়তায়, গবেষকরা

বাংলাদেশে চিতাবাঘের বর্তমান অবস্থা

চিতাবাঘ বাংলাদেশ থেকে বিলুপ্ত হয়ে গেছে। বাংলাদেশে প্রাপ্ত স্তন্যপায়ী প্রাণীর মধ্যে এটি সুদর্শন এবং প্রাপ্ত ৮ প্রজাতির বিড়ালদের ভেতরে দ্বিতীয় বৃহত্তম। তবে বাংলাদেশে মাঝে মধ্যে যদিও কোথাও চিতাবাঘ দেখার কথা শোনা যায় সেগুলো মূলত চিতাবিড়াল। আর যদি দুএকটি সত্যিই দেখা যায় তবে সসেগুলো অবশ্যই পরিযায়ী। পথ ভুলে পাসের দেশ থেকে

Top