You cannot copy content of this page
আপনি যা পড়ছেন

ভাঁট বা ঘেঁটুর নানা ভেষজ গুণ

ঘেঁটু অথবা ভাঁট (Clerodendrum infortunatum) গুল্মজাতীয় উদ্ভিদ হলেও উচ্চতায় প্রায় চার ফুট পর্যন্ত হয়। শীতের শেষর দিকে গাছে ফুল ফোঁটে এবং গরমকালে ফল ধরে। অযত্নে বেড়ে ওঠা এই গাছে ফুল অনেকের দৃষ্টি আকর্ষন করে। এই গাছের পাতা, মূল ব্যবহার করা হয় পেটের অসুখ, চর্মরোগ ইত্যাদি রোগের ঘরোয়া ভেষজ ওষুধ হিসাবে। আরো

ভুঁই আমলার ভেষজ উপকারিতা

ভুঁই আমলা (Phyllanthus niruri) বর্ষজীবী এবং গুল্মজাতীয় উদ্ভিদ। খুব ছোট, লম্বায় আট ইঞ্চির মতো লম্বা হয়ে থাকে বা বাড়ে। গাছের ডাল খাড়াভাবে বের হয়। ওপরের শাখা শিরাযুক্ত ও নরম লোম থাকে। ফুলের আকার ছোট এবং গোলাকার। এই গাছের পাতা, মূল ভেষজ ঔষুধ হিসাবে ব্যবহৃত হয়। জ্বর, ঘা, ক্ষত, পেট ইত্যাদির

রাধাচূড়া আলংকারিক ও ঔষধি উদ্ভিদ

ভূমিকা: রাধাচূড়া (বৈজ্ঞানিক নাম: Caesalpinia pulcherrima, ইংরেজি: Peacock Flower, Paradise Flower, Barbados Pride, Flower-fence, Dwarf Poinciana.) হচ্ছে Fabaceae পরিবারের Caesalpinia গণের  একটি সপুষ্পক গুল্ম। এটিকে বাংলাদেশে আলংকারিক উদ্ভিদ হিসেবে বাগানে বা গৃহে চাষাবাদ করা হয়। বৈজ্ঞানিক নাম: Caesalpinia pulcherrima (L.) Swartz, Obs. Bot. Ind. Occ.: 166 (1791). সমনাম: Poinciana pulcherrima L. (1753). ইংরেজি নাম:  Peacock Flower, Paradise Flower,

শিয়ালকাঁটা ভেষজ গুণে ভরা কাঁটাযুক্ত গুল্ম

ভূমিকা: শিয়ালকাঁটা বা শেয়ালকাঁটা ( বৈজ্ঞানিক নাম: Argemone mexicana,ইংরেজি নাম:Mexican poppy, Mexican prickly poppy, flowering thistle, cardo or cardosanto) হচ্ছে Papaveraceae   পরিবারের Argemone  গণের একটি সপুষ্পক বীরুৎ। এটি বাংলাদেশে রাস্তার ধারে, ঝোপে বা জঙ্গলে অযত্নে প্রচুর জন্মে থাকে। এটি আকারে বেশি বড় হয় না এবং কাঁটাযুক্ত। বৈজ্ঞানিক

ক্যাকটাস চাষ বাড়ির নান্দনিকতা বাড়িয়ে তোলে

ত্রিশিরা ফণিমনসা > নাগফনা > ফণিমনসা > ক্যাকটাস। বৈজ্ঞানিক নাম Cactus বা Opuntia dillenii Haw. এরা Cactaceae পরিবারের সদস্য। ইংরেজি নাম Prickly pear, slipper Thorn. এদের চাকমা সম্প্রদায় বলেন ‘নাগফনা’ বা ‘বিদব। শিরদাঁড়ার কাঁটাওয়ালা বন্ধু । এরা আসলে ‘জঙ্গল উদ্ভিদ’। আমাদের গ্রামে এদের ফণিমনসা বা ত্রিশিরা ফণিমনসা বলে ডাকা হয়। এদের পাতার

আলু বোখারা ভেষজ গুণে ভরা রসালো ফল

বৈজ্ঞানিক নাম: Prunus domestica সমনাম: Druparia insititia Clairv, Druparia prunus Clairv, Prunus communis Huds, Prunus insititia L, Prunus italica Borkh, Prunus oeconomica Borkh. ইংরেজি নাম: Plum. স্থানীয় নাম: আলু বোখারা। জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae বিভাগ: Angiosperms অবিন্যাসিত: Eudicots   বর্গ: Rosales   পরিবার: Rosaceae    গণ: Prunus    প্রজাতি: Prunus domestica. ভূমিকা: আলু বোখারা আরুক > আড়ু > আলু বোখারা (বৈজ্ঞানিক নাম Prunus

ইসবগুল নিত্য প্রযোজনীয় ভেষজ গুল্ম

বৈজ্ঞানিক নাম: Plantago ovata Forsk. সমনাম: Plantago brunnea Morris, Plantago fastigiata Morris, Plantago gooddingii A.Nels. & Kennedy, Plantago insularis Eastw, Plantago minima A.Cunningham ইংরেজি নাম: blond plantain, desert Indianwheat, blond psyllium, and ispaghul,. স্থানীয় নাম: ঈসবগুল। জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae বিভাগ: Angiosperms অবিন্যাসিত: Edicots বর্গ: Lamiales পরিবার: Plantaginaceae   গণ: Plantago   প্রজাতি: Plantago ovata

শুঁঠের নানাবিধ উপকারিতা

শুঁঠ (শুকনা আদা) জোলাপের কাজ করে। শুঁঠ বা শুকনা আদা রান্নায় বেশি ব্যবহার না করা হলেও ঘরোয়া ওষুধ হিসেবে প্রয়োজনীয়। পাকা ও পুষ্ট বা পুরুষ্টু আদা শুকিয়ে ভাল শুঁঠ তৈরি করা হয়। শুঁঠ যকৃতে (লিভায়ে) পিত্তের স্রাব বেশি পরিমাণে করায়। শুঁঠ কনসটিপেশান সারাবার গুণ থাকায় বিরচনের (জোলাপের) ওষুধে মেশানো হয়। শুঁঠ পাচনতন্ত্রে (হজমের) পক্ষে অত্যন্ত উপযোগী। বৃদ্ধ বয়সে হজম ভাল হয় না, পেটে বা উৎপন্ন হয়, কফের প্রকোপ বেড়ে যায়। মন অস্থিভাব বা একটুতেই ঘাবড়ে যাওয়ার ভাবও দেখা দেয়। হাত পা ব্যথা করতে থাকে। এই রকম অবস্থায় রোজ নিয়ম করে শুঁঠ চূর্ণ বা দুধ মিশ্রিত শুঁঠের ক্বাথ খেলে উপকার পাওয়া যাবে। কফ এবং বায়ুর সব রকম বিকালে এবং হার্টের রোগীদের পক্ষে শুঠ খুবই উপকারী। আরো পড়ুন

হিংয়ের এগারটি ভেষজ গুণ

পেটের অসুখ সারাতে হিং উপকারি। হিং এমন একটি মশলা যার প্রয়োজন হয় সাধারণত তরকারিতে বা ডালে ফোড়ন দেওয়ার নন্য। হিন্দিতে ফোড়ন দেওয়াকে বলা হয় ‘বধারনা’। হিং ফোড়ন দেওয়ার কাজে ব্যবহার করা হয় বলে একে বলা হয় ‘বধারনী’ । অনেক সময় পেয়াজের বদলেও হিং ব্যবহার করা হয়। অরুচি, গ্যাস, পেটের নানা

আদার রসের বহুবিধ উপকারিতা ও ব্যবহার

আদা বা আর্দ্রক (বৈজ্ঞানিক নাম: Zingiber officinale) হচ্ছে জিঞ্জিবারাসি পরিবারের জিঞ্জিবার গণের ছোট রাইজোমসমৃদ্ধ বীরুৎ। এদের রাইজোম সুগন্ধী, ঝাঁঝালো স্বাদ, ভিতরের রং ফিকে হলুদ। আদা গাছের পত্রল-কান্ড প্রায় ০.৫- ১.০ মিটার লম্বা। আদার রস রোগ সারাতে বহুবিধ কাজে লাগে। আদার রসের উপকারিতা: ১ নতুন সর্দি, কাশি ও জ্বর ভাব: আদার রসে একটু

Top