আপনি যা পড়ছেন
মূলপাতা > সংকলন

ময়মনসিংহে অবরুদ্ধ সময়ের কবিতা পাঠের অনুষ্ঠানে পঠিত বিবৃতি

ভারতের শ্রমিক কৃষক নিপীড়িত জাতিসত্তাসহ শোষিত নির্যাতিত অপমানিত বঞ্চিত মানুষের সার্বিক মুক্তির সংগ্রামে যে সকল কবি লেখক আইনজীবী, মানবাধিকার কর্মী, বুদ্ধিজীবী, সাংবাদিকরা নিরলস সংগ্রাম ও সংগঠন করে আসছেন—বর্তমান ভারতের ক্ষমতাসীন উগ্র হিন্দুত্ববাদী নরেন্দ্র মোদী সরকার তাদের দমনে এক রাষ্ট্রীয় অভিযানে নেমেছে। গত ২৮ আগস্ট ভারতের হায়দ্রাবাদ, মুম্বাই, পুনা, দিল্লিসহ বিভিন্ন শহরে আরো পড়ুন

খুলনায় অবরুদ্ধ সময়ের কবিতা পাঠের অনুষ্ঠানে পঠিত বিবৃতি

আমরা অবরুদ্ধ সময়ের কবিতা সাম্প্রতিক সময়কে ধারণ করে আগামীকে নির্মাণ করার লড়াই করছি। বাংলাদেশে বর্তমানে চকবাজার, বনানীসহ বিভিন্ন স্থানে অগ্নিকাণ্ডে মানুষের মৃত্যুকে আমরা রাষ্ট্রের গণহত্যা হিসাবে দেখতে চাই। অপরিকল্পনা এবং অব্যবস্থাপনার বিপক্ষে আমাদের সংগ্রাম অব্যাহত আছে। দেশে দেশে গণতন্ত্রের সংকট, ভিন্নমত দমন, বাক স্বাধীনতার উপর হস্তক্ষেপ এখন নিত্যনৈমিত্তিক বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। আরো পড়ুন

দাদামশাইয়ের বৈঠকখানা

এক্কা দোক্কা তিন তেরেক্কা/ মা গিয়েছে দক্ষিণেশ্বর/ মামা গেছে ফারাক্কা/ চোখ পিটপিট, গা কুটকুট/ কুড়র মুড়র ঝাল বিস্কুট/ কার পকেটে/ কান পেতে শোন টক্কা টরে/ দরজাতে কে শব্দ করে/ তেরে কেটে তাক তেরে কেটে/ চোর না পুলিশ/ দেখে খুলিস। আরো পড়ুন

ওঠাপড়া

এইও! কাউকে বলবে না/ পাহাড়ে উঠছে বানরসেনা/ একপা দু-পা-তিন-পা/ সবার আগে শের পা/ যেই না পথ ফুরোয়/ পৌঁছে যায় চুড়োয়/ চেঁচিয়ে কয়, নামো নামো/ ল্যাজ আনিনি, আরে রামো/ কাজেই আবার এক-পা দু-পা/ হুপ পা হুপ, হুপ পা হুপা। আরো পড়ুন

দেয়ালের লিখন

বাবু হয়ে ব’সে গদিতে।/ ভুলে গেছে ভুয়ে পা দিতে।/ দেশের লোকের ছাড়ছে নাড়ি।/ বাড়ছে দলের গাড়ি বাড়ি।।/ মন্ত্রী মশাই, করেন কী ?/ পরের ধনে পোদ্দারি।/ হাকিমসাহেব, করেন কী ?/ খোদার ওপর খোদারি।/ আহা আহা, করেন কী ?/ ঢের হয়েছে, গোটান এবার/ পাততাড়ি।। আরো পড়ুন

সখা হে

থামাও রথ, কেশব !/ দিয়েছ আমায় তত্ত্বজ্ঞান যেসব/ ফুরিয়ে গেছে/ দিন তার !/ নারকী এই কুরুক্ষেত্র ছেড়ে/ চাই এবার/ পায়ের নিচে মাটি/ রাজ্যলোভ, রক্ত, কাটাকাটি/ আর নয়।/ নরোত্তম, তোমার হাত ধ’রে/ ভুবন ভ’রে/ দর্শন দিক/ সমন্বয়,/ সুখশান্তি,/ যোগক্ষেম,/ প্রেম। আরো পড়ুন

এখন কে যায়?

ফুলকপি শেষ হয়ে আসছে/ উঠবে উঠবে করছে নতুন পটল/ দূর ! এখন কে যায় ?/ তোমার কথা মনে হলেই/ মাটির তলা দিয়ে তলা দিয়ে/ ঠেলে উঠব।/ এ-মুড়া থেকে ও-মুড়োয়/ দুদিকের দুই সুড়ঙ্গ/ শুধু জুড়তে যা সময়।/ মাঝগঙ্গায় আর একটু শুধু ফাঁক/ বাড়ানো দুহাত এক করতে পারলেই/ ওপারে আমার মেজো মেয়েকে দেখে আরো পড়ুন

কিংবদন্তী

শেষ করেছে পেয়ালা।/ বুড়োর এখন দেয়ালা।।/ হেঁড়ে গলা, মুখ গোমরা।/ নিশ্চয় কোনো হোমরা-চোমরা ॥/ ওঠবার জন্যে মই।/ পড়বার জন্যে বই।।/ সকলেই ভেড়ের ভেড়ে,/ সকলেই এক রা।/ তাতে গণতন্ত্রের/ থাকে নাকো ফ্যাকড়া।। আরো পড়ুন

উড়ো চিঠি

বসে রয়েছি পা ছড়িয়ে/ খরায়/ স্মৃতির নৌকো আটকে আছে/ হাঁটুজলের চড়ায়/ শুকনো ডালে হলদে পাতার/ মাটিতে চোখ/ যেখানে রক্ত, ছিন্নভিন্ন/ পাখির পালক/ / হৃদয়ের লাল ডাকবাক্‌সে/ ফেলা চিঠিতে আরো পড়ুন

বুড়ি বসন্ত

ফুল থাক ফুলের মতো/ খাঁড়া খাঁড়ার মতো/ ফুল তুলে কেউ যেন আমাকে কাটতে/ খাড়া তুলে কেউ আমাকে/ যেন গন্ধ শোঁকাতে না আসে/ যার যে জায়গা/ সেখানেই সে যেন/ মাটি কামড়ে প’ড়ে থাকে/ জল থাক জলের মতো/ আগুন আগুনের মতো/ এ ওর পা মাড়িয়ে দিয়ে/ জল যেন জ্বালাতে/ আগুন যেন জুড়োতে না চায় আরো পড়ুন

Top