You are here
Home > সংকলন > মাও সেতুং

৪ঠা মে’র আন্দোলন — মাও সেতুং

মে, ১৯৩৯[১] বিশ বছর আগে সংঘটিত ৪ঠা মে’র আন্দোলন সাম্রাজ্যবাদ ও সামন্ততন্ত্রের বিরুদ্ধে চীনের বুর্জোয়া গণতান্ত্রিক বিপ্লবের একটি নতুন স্তর চিহ্নিত করে দিয়েছে। ৪ঠা মে’র আন্দোলন থেকে সাংস্কৃতিক সংস্কারের আন্দোলন জন্ম নিয়েছিল, যেটা ছিল এই বিপ্লবেরই অন্যতম অভিব্যক্তি। সে সময়ে নতুন সামাজিক শক্তিগুলির উন্মেষ ও বিকাশের সংগে সংগে বুর্জোয়া গণতান্ত্রিক

বই পূজার বিরোধিতা করুন — মাও সেতুং

কমরেড মাও সেতুং দারুণ দিক নির্দেশনামূলক এই প্রবন্ধটি লিখে শেষ করেন মে ১৯৩০ সালে। এই প্রবন্ধের শুরুতেই তুলে ধরা হয়েছে সেই অবশ্য পালনীয় নীতি — তদন্ত ছাড়া কথা বলার অধিকার নেই। বই পূজাকে দ্বান্দ্বিকভাবে দেখা, বই পূজায় না মাতা অর্থাৎ পুরনো মত দ্বারা চালিত হওয়ার নীতিতে দীক্ষিত না হওয়া, কাজের

উদারতাবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করুন — মাও সেতুং

আমরা সক্রিয় মতাদর্শগত সংগ্রামের পক্ষে, কারণ এটাই হচ্ছে আমাদের সংগ্রামের স্বার্থে পার্টির মধ্যে ও বিপ্লবী সংগঠনগুলোর মধ্যে ঐক্যকে সুনিশ্চিত করার হাতিয়ার। প্রত্যেক কমিউনিস্ট ও বিপ্লবীর এই হাতিয়ার গ্রহণ করা উচিত। কিন্তু উদারতাবাদ মতাদর্শগত সংগ্রামকে বাতিল করে দেয় এবং নীতিহীন শান্তির পক্ষ নেয়, এর ফলে ক্ষয়িষ্ণু ও অশিষ্ট মনোভাবের সৃষ্টি হয় এবং

মাও সেতুংয়ের কয়েকটি উদ্ধৃতি

০১. বিষয়ীবাদ, সংকীর্ণতাবাদ ও ছকে বাঁধা পার্টিগত রচনা — এই তিনটিই মার্কসবাদবিরোধি এবং এইগুলি শ্রমিকশ্রেণির নয়, শোষক শ্রেণিসমুহেরই স্বার্থসাধন করে। ছকে বাধা পার্টিগত রচনার বিরোধিতা করুন; ৮ ফেব্রুয়ারি, ১৯৪২ ০২. নির্ভুল সর্বদাই ভুলের সঙ্গে সংগ্রাম করে বিকশিত হয়। সত্য, মঙ্গল ও সুন্দর সব সময়ই মিথ্যা, অমঙ্গল ও কুৎসিতের সঙ্গে তুলনার মধ্য

‘চীনের শ্রমিক’ পত্রিকার পরিচয় প্রসঙ্গে — মাও সেতুং

৭ ফেব্রুয়ারি, ১৯৪০ ‘চীনের শ্রমিক’[১] পত্রিকার প্রকাশ একটা প্রয়োজন মেটাল। নিজের রাজনৈতিক পার্টি, চীনের কমিউনিস্ট পার্টি, কর্তৃক পরিচালিত হয়ে চীনের শ্রমিকশ্রেণি গত কুড়ি বছর ধরে বীরত্বপূর্ণ সংগ্রাম পরিচালনা করে এসেছেন, জনগণের মধ্যেকার রাজনৈতিকভাবে সবচেয়ে সজাগ অংশে পরিণত হয়েছেন, এবং হয়ে উঠেছেন চীন বিপ্লবের নেতা। সাম্রাজ্যবাদ ও সামন্তবাদের বিরুদ্ধে কৃষক জনসাধারণ এবং

অধ্যয়ন — মাও সেতুং

সভাপতি মাও সে-তুঙের উদ্ধৃতি ৩৩. অধ্যয়ন *** অনগ্রসর কৃষিপ্রধান চীনকে একটি অগ্রসর শিল্পায়ত্ত চীনে পরিবর্তিত করার জন্য আমাদের অত্যন্ত কঠোর কাজের সম্মুখীন হতে হবে, আমাদের অভিজ্ঞতাও মোটেই যথেষ্ট নয়, আমাদের অবশ্যই তাই শিক্ষা গ্রহণে নিপুণ হতে হবে। “চীনা কমিউনিস্ট পার্টির অষ্টম জাতীয় কংগ্রেসে প্রদত্ত উদ্বোধনী ভাষণ” (১৫ সেপ্টেম্বর, ১৯৫৬) *** অবস্থা নিরন্তরই

মহান অক্টোবর বিপ্লবের মস্কো উদযাপন সভায় বক্তৃতা — মাও সেতুং

প্রিয় কমরেডগণ,* মহান নভেম্বর সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের ৪০তম বার্ষিকী উপলক্ষে চীনের ন্যাশনাল পিপলস কংগ্রেস, জনগণতান্ত্রিক চীনের কেন্দ্রীয় কাউন্সিল, চীনের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটি, পার্টি সদস্য ও দেশের সমস্ত মানুষের প্রতিনিধি হিসেবে আমি এবং চীনের প্রতিনিধিদলের অন্যান্য সদস্যরা মহান সোভিয়েত ইউনিয়নের কমিউনিস্ট পার্টি, সরকার, এদেশের মানুষ এবং এখানে উপস্থিত সমস্ত কমরেড ও বন্ধুদের

শ্রেণি ও শ্রেণিসংগ্রাম — মাও সেতুং

সভাপতি মাও সেতুং-এর উদ্ধৃতি ২. শ্রেণি ও শ্রেণিসংগ্রাম *** শ্রেণি সংগ্রাম - কতকগুলো শ্রেণি জয়লাভ করে, আর কতকগুলো বা ধ্বংস হয়। এটাই ইতিহাস, এটাই হাজার হাজার বছরের সভ্যতার ইতিহাস। এই দৃষ্টিকোণ থেকে ইতিহাসকে ব্যাখ্যা করা হচ্ছে ঐতিহাসিক বস্তুবাদ, এই দৃষ্টিকোণের বিপক্ষে দাঁড়ানোই হচ্ছে ঐতিহাসিক ভাববাদ। "ভ্রম ত্যাগ করো, সংগ্রামের জন্য প্রস্তুত হও"

কমিউনিস্ট পার্টি — মাও সেতুং

সভাপতি মাও সেতুং-এর উদ্ধৃতি ১. কমিউনিস্ট পার্টি *** আমাদের কার্যের নেতৃত্বের কেন্দ্র শক্তি হচ্ছে চিনা কমিউনিস্ট পার্টি। আমাদের চিন্তাধারার পথনির্দেশের তাত্ত্বিক ভিত্তি হচ্ছে মার্কসবাদ-লেনিনবাদ। চিনা জনগণের প্রজাতন্ত্রের প্রথম জাতীয় গণ- কংগ্রেসের প্রথম অধিবেশনে প্রদত্ত উদ্বোধনী ভাষণ (১৫ সেপ্টেম্বর, ১৯৫৪) *** যদি বিপ্লব করতে হয়, তাহলে অবশ্যই একটা বিপ্লবি পার্টি থাকতে হবে। একটা বিপ্লবি পার্টি

শৃংখলা — মাও সেতুং

সভাপতি মাও সেতুঙের উদ্ধৃতি ২৬. শৃংখলা *** জনগণের ভেতরে, গণতন্ত্র কেন্দ্রীকতার সংগে সম্পর্কিত এবং স্বাধীনতা শৃংখলার সংগে সম্পর্কিত। এ সবই হচ্ছে একটি একক বস্তুর দুটি বিপরীত দিক, তারা পরস্পর বিরোধী, আবার ঐক্যবদ্ধও; আমাদের একটার উপর একতরফাভাবে জোর দিয়ে অন্যটাকে অস্বীকার করা উচিত নয়। জনগণের ভেতরে, স্বাধীনতা ছাড়া চলে না, শৃংখলা ছাড়াও চলে

Top