You are here
Home > আন্তর্জাতিক > ইউরোপ

স্পেনের গৃহযুদ্ধ প্রসঙ্গ এবং প্রাসঙ্গিক ইতিহাস

স্পেনে ১৯৩১ সালে রাজতন্ত্রের পরিবর্তে প্রজাতন্ত্র স্থাপিত হয়। ১৯৩১ এবং ১৯৩৩ সালের নির্বাচনে ডানপন্থী ও মধ্যপন্থিরা জয়লাভ করে। নতুন সরকার অভিজাত শ্রেণির ক্ষমতা ও প্রতিপত্তি খর্ব করে বিভিন্ন আইন প্রণয়নের চেষ্টা করে। স্পেনে শক্তিশালী মধ্যবিত্ত শ্রেণি না থাকায় এই নতুন গণতান্ত্রিক সরকারের ভিত্তি অত্যন্ত দুর্বল হয়ে পড়ে। বামপন্থী এবং দক্ষিণপন্থী

ফার্মের এনিমেল, জর্জ অরওয়েল

ফ্রিডরিখ এঙ্গেলসের একটি প্রবন্ধের নাম ‘কর্তৃত্ব প্রসঙ্গে’। সেই প্রবন্ধে এঙ্গেলস দেখাচ্ছেন আধুনিক কালের বা শিল্পবিপ্লব পরবর্তীকালের বড় কারখানায় কীভাবে কর্তৃত্বের প্রয়োজন পড়ে। তিনি উদাহরণ হিসেবে স্বাভাবিকভাবেই রেলের জটিল কর্মপ্রক্রিয়াকে উল্লেখ করেছেন।[১] একজন ট্রেন ড্রাইভার স্বাধীনভাবে দশ মিনিটও কি একটি ট্রেন চালাতে পারবেন? একজন সাধারণ জ্ঞান ধারণ করেন এরকম শ্রমিক খুব সহজেই

রাশিয়া এবং তার পূর্বাঞ্চলের মুসলমানদের প্রতি আবেদন — স্তালিন ও লেনিন

---- অনুবাদক : ইভান অরক্ষিত সহযোদ্ধা ও ভাইয়েরা![১] রাশিয়াতে বিশাল বিশাল ঘটনা ঘটছে। অন্যান্য দেশগুলিকে পৃথক করার জন্য যে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ হচ্ছিল সেটার সমাপ্তি সন্নিকটে। মানুষের পৃথিবীতে মানুষকে দাসত্বে আবদ্ধকারী এবং ডাকাতদের শাসন প্রায় সমাপ্তির পথে। রুশ বিপ্লবের জোয়ারে দাসত্ব ও ভূমিদাসত্বের পুরানো পৃথিবীটা ভেঙে টুকরো টুকরো হয়ে যাচ্ছে ... একটি নতুন

কাতালোনিয়ার বিচ্ছিন্নতাবাদী আন্দোলন একটি স্বাধীনতাবিরোধী আন্দোলন

স্বাধীনতা বা মুক্তি শব্দটি আধুনিককালে বহুল ব্যবহৃত এবং বহু বিশ্লেষিত একটি শব্দ। স্বাধীনতা বা মুক্তি শব্দটিকে মার্কসবাদীরা বুর্জোয়াদের অর্থে ব্যবহার করেননি। তাঁদের কাছে স্বাধীনতা মানে প্রধানত পণ্য, পুঁজি, মুনাফা থেকে মুক্তি এবং সাম্রাজ্যবাদের কালে সাম্রাজ্যবাদের আর্থিক লুণ্ঠন থেকে মুক্ত অর্থনৈতিক স্বাধীনতা। এই স্বাধীনতার সাথে যুক্ত হয় নিপীড়িত জাতিসমূহের জাতিগত স্বাধীনতা,

প্যারিস কমিউন পৃথিবীর প্রথম প্রলেতারিয় একনায়কত্ব

প্যারিস কমিউন (ইংরেজি: Paris Commune) হচ্ছে ১৮৭১ সালে ফ্রান্সের প্যারিতে প্রলেতারিয় বিপ্লবীদের দ্বারা প্রতিষ্ঠিত প্রলেতারিয়েত শ্রেণির বিপ্লবী সরকার। সেটি ছিলো ইতিহাসে প্রথম প্রলেতারিয় একনায়কত্বের সরকার, তবে প্যারিসের বীর শ্রমিক শ্রেণি সেটিকে টিকিয়ে রাখতে সমর্থ হয় ৭২ দিন; ১৮৭১ সালের ১৮ মার্চ থেকে ২৮ মে। প্যারিসের কমিউনার্ডগণ পুরনো রাষ্ট্রব্যবস্থাকে ভেঙে চূর্ণবিচূর্ণ

কমিউনিস্ট ইশতেহারের ১৮৮২ সালের রুশ সংস্করণের ভুমিকা

‘কমিউনিস্ট পার্টির ইশতেহার’-এর প্রথম রুশ সংস্করণ, বাকুনিনের অনুবাদে, ষাটের দশকের গোড়ার দিকে (১) “কলোকোল’ (২) পত্রিকার ছাপাখানা থেকে প্রকাশিত হয়েছিল। সেদিন পশ্চিমের কাছে এটা (‘ইশতেহার’—এর রুশ সংস্করণ) মনে হতে পারত একটা সাহিত্যিক কৌতুহলের বিষয় মাত্র। আজ তেমনভাবে দেখা অসম্ভব। তখনও পর্যন্ত (ডিসেম্বর, ১৮৪৭) প্রলেতারিায় আন্দোলন কত সীমাবদ্ধ স্থান জুড়ে ছিলে, সে

ইউরোকমিউনিজম ইউরোপের এক সংশোধনবাদী রাজনৈতিক ধারা

ইউরোকমিউনিজম, ইংরেজিতে Eurocommunism, হলো ইউরোপের কতকগুলো কমিউনিস্ট পার্টি, বিশেষভাবে ইতালি, স্পেন এবং ফ্রান্সের কমিউনিস্ট পার্টি ইউরোপের জন্য যে মার্কসবাদী প্রয়োগকে আলাদাভাবে চিহ্নিত করে তার নাম। মূলত ১৯৫৬ সনের পরে চিন-সোভিয়েত মহাবিতর্ক, হাঙ্গেরির অভ্যুত্থান এবং রুশ অর্থনীতির ব্যাপক পরিবর্তনকে ঘিরে ইউরোপে নানা রকমের ভাবনার সূত্রপাত হয়। আর এক্ষেত্রে ইতালিই এই ভাবনার

সোভিয়েত ইউনিয়নের ইতিহাসে বলশেভিক পার্টির ভূমিকা

সোভিয়েত সমাজতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্রের ইউনিয়ন বা সোভিয়েত ইউনিয়ন ছিল প্রলেতারীয় একনায়কত্ব দ্বারা পরিচালিত প্রথম সমাজতন্ত্র অভিমুখী রাষ্ট্র। এই রাষ্ট্রের অস্তিত্ব ছিল ১৯২২ সাল থেকে ১৯৯১ সাল পর্যন্ত। ১৯৪৫ সাল থেকে ১৯৯১ সালে ভেঙে যাবার আগে পর্যন্ত সোভিয়েত ইউনিয়ন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী পরাশক্তি হিসেবে স্নায়ুযুদ্ধে লিপ্ত ছিল। সোভিয়েত ইউনিয়নের উত্থান

Top