Main Menu

ফি বাৎসরিক ভুল ফল অথবা গণ্ডার

একের সংগে একাধিক যোগ করে দেখেছি আমি

শেষকালে সাদা খাতা জমা আছে হাতের তালুতে,

পথের মধ্যখানে দাঁড়িয়েছি, ডেকেছি নতুন সুরে

সবটুকু উজাড় করে,

পাইনি নতুন কোনো সঙ্গী পথিক;

আলাপের কালে বারবার হ্যাঁ সূচক মাথা নেড়ে কিছুই মেলেনি

একঝাঁক আধামানুষ অবলীলায় বলে গেছে শেখানো সব কথা,

দেখেছি সবুজ দ্বীপে সেইসব প্রাণিদের খেলা

যারা ভুল পথে দিয়েছে পাড়ি হাতে নিয়ে আগুনের গোলা,

যারা গড়েছিলো সুন্দর ঘর, এনেছিলো নাগরিক সুবাস

গ্রহণ করেনি কেউ, শোয়নি কেউ, হাঁটেনি কেউ সেই নতুনত্বে,

তারা সব সহজাত পথ খোঁজে অমরত্বে,

আমি তাই তারপর সকালের খোলা রোদে

শুকিয়েছি সবার প্রাণের ডাক, প্রাণ গুঞ্জরন

সভ্যতা বিলাসি আমি পাইনি খুঁজে সভ্যভব্য পথ,

যদি ফের যোগ করি নিজেকে একাধিক জীবনের সাথে

পাবো না পথ পালানোর এই অন্ধকার গলিপথ হতে।

 

২৩ অক্টোবর, ২০০৩; টিচার্স ট্রেনিং কলেজ, চট্টগ্রাম।  

চিত্রের ইতিহাস: কবিতায় ব্যবহৃত অংকিত চিত্রটি আরনেস্ট নরমান্ড (১৮৫৭-১৯২৩) আঁকা চিত্র ‘ভাশতির পদচ্যুতি(Vashti Deposed)। শিল্পী চিত্রটি আঁকেন ১৮৯০ সালে। ছবিটি উপরে নিচে সামান্য ছেঁটে ব্যবহার করা হয়েছে। এখানে ক্ষমতাচ্যুতির পর বিষণ্ণ ভাশতিকে ( খ্রিস্টপূর্ব চতুর্থ শতক) দেখা যাচ্ছে।

আরো পড়ুন






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *