Main Menu

বাণিজ্যিক ফল

 
 

কদবেল গ্রীষ্মকালীন জনপ্রিয় ফল

ভূমিকা: কদবেল বা কৎ বেল বা কয়েথবেল (বৈজ্ঞানিক নাম: Limonia acidissima ইংরেজি: Wood Apple, Elephant Apple, Curd Fruit, Monkey Fruit) হচ্ছে রুটেসি পরিবারের লিমোনিয়া গণের বৃক্ষ। ফল হিসেবে অনেকের কাছে প্রিয়। বিবরণ: কদবেল কন্টকিত বৃক্ষ। এদের পত্র একান্তর, সচূড়পক্ষল, পত্রক ৫-৭টি, সাধারণত প্রতিমুখ, পত্রবৃন্ত পক্ষযুক্ত। পুষ্পবিন্যাস শীর্ষক বা পার্শ্বীয় হালকা প্যানিকল বা রেসিম। পুষ্প মিশ্রবাসী। বৃতি ৫-দস্তুর, ছোট, চ্যাপ্টা, ক্ষণস্থায়ী। পাপড়ি ৫টি, কদাচিৎ ৪৬টি, ছড়ানো, প্রান্ত-আচ্ছাদী। পুংকেশর ১০-১২টি, খাটো চাকতির বহির্ভাগে প্রবেশিত, পুংদন্ড চ্যাপ্টা, পাশে এবং সম্মুখে লোমশ, শীর্ষ তুরপুনাকার, পরাগধানী হৃৎপিন্ডাকার বা রেখাকার-আয়তাকার। গর্ভাশয় আয়তাকার, ৫-৬ কোষী, শেষ পর্যন্তRead More


আনারস উষ্ণ মন্ডলীয় অঞ্চলের রসালো ফল

ভুমিকা: আনারস (বৈজ্ঞানিক নাম: Ananas comosus, ইংরেজি নাম: পাইন এ্যাপল)  হচ্ছে সপুষ্পক বিরুৎ। এটি মূলত বিরুৎ বিশিষ্ট্য। এই গণের প্রজাতিটির ফল রসালো।   বর্ণনা: আনারস বর্ষজীবী বীরুৎ। কান্ড খাটো, অশাখ, পুরু ও মাংসল। পত্র লম্বা, ৫০-৭৫ x ৩-৬ সেমি, সরু, বল্লমাকার, পত্রকন্টকিত, তন্তুময়, সমান্তরাল শিরা বিন্যাস, সূক্ষাগ্র, গুচ্ছাকারে কান্ডে সন্নিবেশিত। পুষ্প বিন্যাস শীর্ষীয়, সংক্ষেপিত মঞ্জরী, পুষ্প গুচ্ছাকার, কোণাকৃতি, নীল বর্ণের, মঞ্জরীপত্রের অক্ষে জন্মে। পুষ্প উভলিঙ্গ, সমাঙ্গ। বৃত্যংশ ৩ টি, প্রশস্ত দীর্ঘাগ্র, মুকুল বিন্যাস প্রান্ত আচ্ছাদনের কাছাকাছি, গর্ভশয়ের উপরে মুক্ত। পাপড়ি ৩ টি, ঋজু, পুংদন্ডের নিচে সামান্য যুক্ত, কখনও ২ টিRead More


তেঁতুল টকজাতীয় জনপ্রিয় ফল

ভূমিকা: তেঁতুল  হচ্ছে ফেবাসি পরিবারের টামারিন্ডাস গণের একটি সপুষ্পক উদ্ভিদ। এই প্রজাতিটি ফল গাছ হিসাবে লাগানো হয়ে থাকে। বর্ণনা: তেঁতুল বৃহৎ বৃক্ষ, ২৪ মিটার পর্যন্ত উঁচু, শীর্ষ ছাউনি বিস্তৃত, তরুণ অবস্থায় রোমশ, পরবর্তীতে রোম বিহীন, পত্র অচূড় পক্ষল যৌগিক, সোপপত্রিক, উপপত্র ক্ষুদ্র, আশুপাতী, পত্রক অক্ষ বৃন্তসহ ৫-১২ সেমি লম্বা, পত্রক ১০-২০ জোড়া, ৮-২০ X ৩-৬ মিমি, ক্ষুদ্র, রৈখিকদীর্ঘায়ত, অসম এবং মূলীয় অংশ গোলাকার, রোম বিহীন, শীর্ষ তীক্ষাগ্র। পুষ্পবিন্যাস শীর্ষীয় রেসিম, ২-৬ সেমি লম্বা, অক্ষ অণুরোমশ। পুষ্প ফিকে বা সোনালি হলুদ, মঞ্জরীপত্র ডিম্বাকৃতি, ৫x ৩ মিমি, মঞ্জরীপত্রিকা মঞ্জরীপত্র সমতুল্য, ঘন সিলিয়াযুক্ত,Read More


আতা বা নোনা আতা গ্রীষ্মমণ্ডলীয় অঞ্চলের ফলদ গাছ

ভূমিকা: আতা বা নোনা আতা  হচ্ছে এনোনাসি পরিবারের সপুষ্পক একটি উদ্ভিদ। এই প্রজাতিটি ফল গাছ হিসাবে লাগানো হয়ে থাকে। বর্ণনা: নোনা আতা ছোট বৃক্ষ আকৃতির গাছ। এদের কাণ্ড মসৃণ, কচি শাখাসমূহ রোমশ, উচ্চতায় ১.২ থেকে ১.৫ সেমি লম্বা। পত্রবৃন্ত সহ পত্র, পত্রফলক দৈর্ঘ্য ১৩.৫-১৭.০ ও প্রস্থ ২.৫-৪.৫ সেমি লম্বা, বল্লমাকার থেকে বিবল্লমাকার, তলীয় অংশ গোলাকার থেকে কীলকাকার, শীর্ষ সূক্ষ্মাগ্র থেকে দীর্ঘাগ, উপরিভাগ মসৃণ, তলীয় পৃষ্ঠ অল্প পরিমানে বিক্ষিপ্ত রোমশযুক্ত, কচি পাতার উভয় পৃষ্ঠ রোমশ। পুষ্পবিন্যাস পত্র-প্রতিমুখ বা একস্ট্রা-এ্যাক্সিলারী, সাধারণত ২-৩টি পুষ্প বিশিষ্ট, কখনও কখনও শাখা বিশিষ্ট। মঞ্জরীপত্র আশুপাতী, মঞ্জরীপত্রিকা ব-দ্বীপRead More


চালতা এশিয়ার টক জাতীয় ফল

ভূমিকা: চালতা বা চাইলতা বা চালিতা বা চাইলতে (বৈজ্ঞানিক নাম: Dillenia indica) হচ্ছে ডাইলেনিয়াসি পরিবারের ডাইলেনিয়া গণের একটি সপুষ্পক উদ্ভিদ। এই প্রজাতিটি ফল গাছ হিসাবে লাগানো হয়ে থাকে। এই গাছের ফল থেকে বাংলাদেশ ভারতে আচার ও চাটনি প্রস্তুত করা হয় এবং বাণিজ্যিক ফল হিসেবে বাজারে প্রচুর বিক্রি হয়। বর্ণনা: মধ্যম থেকে বৃহৎ আকৃতির চিরহরিৎ বৃক্ষ, ৪০ মিটার পর্যন্ত উঁচু, দেহ কান্ড ১.০ থেকে ১.২ মিটার, ব্যাস বিশিষ্ট, বাকল মসৃণ, কমলা-বাদামী থেকে গাঢ় কমল বর্ণ যুক্ত, ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র শল্ক পতনশীল। এদের পাতা সরল, একান্তর, দীর্ঘায়ত, ১.৫৩০ x ৬-১২ সেমি, সামান্য দস্তুর, চর্মবৎ,Read More


পেয়ারা সারা দুনিয়ায় চাষকৃত একটি ফল

পরিচিতি: পেয়ারা মিরটাসি পরিবারের সিডিয়াম গণের একটি সপুষ্পক উদ্ভিদ। এরা ছোট বৃক্ষ, সুস্পষ্ট ডোরাকাটা দাগবিশিষ্ট, মোটের উপর মসৃণ, ধূসর এবং তামাটে বাদামী বাকলবিশিষ্ট যাহা পাতলা চটা আকারে অবমুক্ত হয়, তন্তুময় নয়। কচি পল্লব চতুষ্কোণী, সবুজ, রোমশ। কচি অংশ এবং ফলকের নিম্নপৃষ্ঠ শিরা বরাবর চেপটা ধূসরাভ বাদামী অণুরোমাবৃত। পাতা খর্বাকার বৃন্তবিশিষ্ট, প্রতিমুখ, কচি পাতা বিপরীত তির্যকপন্ন এবং পুরাতন পাতা বিপরীত উপরিপন্ন, ৬-১৪ x ৩.০-৬.৫ সেমি, দীর্ঘায়ত-ভল্লাকার থেকে উপবৃত্তাকার, সচরাচর দীর্ঘাগ্রবিশিষ্ট, নিম্নপ্রান্ত গোলাকৃতি, কিনারা অখন্ড, উপরের পৃষ্ঠ অর্ধ মসৃণ, নিম্নপৃষ্ঠ অণুরোমশ, পার্শ্বশিরা ১০-২০ জোড়া, নিম্নপৃষ্ঠে সুস্পষ্ট, কিনারার কাছাকাছি অত্যন্ত বাঁকা এবং অন্ত:কিনারীয়Read More


চায়না পেয়ারা সারা দুনিয়ায় চাষকৃত একটি ফল

পরিচিতি: চায়না পেয়ারা মিরটাসি পরিবারের সিডিয়াম গণের একটি সপুষ্পক উদ্ভিদ। এরা বৃহদাকার গুল্ম, বাকল বৈশিষ্ট্যময় ডোরাকাটা দাগযুক্ত, মসৃণ, তামাটে বাদামী যাহা পাতলা চটা আকারে অবমুক্ত হয়। কচি পল্লব চতুষ্কোণী, সবুজ, রোমশ। পাতা বৃন্তক, প্রতিমুখ, কচি পাতা বিপরীত তির্যকপন্ন কিন্তু পরিণত পাতা তির্যক উপরিপন্ন, ২.৫-৬.০ x ০.৯-২.৫ সেমি, দীর্ঘায়ত-ভল্লাকার থেকে উপবৃত্তাকার, অখন্ড, তীক্ষ্ণ থেকে দীর্ঘাগ্র, উপরের পৃষ্ঠ অর্ধ মসৃণ, নিম্নপৃষ্ঠ রোমশ এবং সুস্পষ্ঠ শিরাবিশিষ্ট, গ্রন্থিল, মধ্যশিরা সরু, নিম্নপৃষ্ঠে সুস্পষ্ট, রোমশ, উপরের পৃষ্ঠে খাঁজবিশিষ্ট। পুষ্পমঞ্জরী কাক্ষিক, একক বা কতিপয় (২-৩টি) পুষ্পবিশিষ্ট। পুষ্প সাদা, পুষ্পোদগমকালে আড়াআড়িভাবে ২.৫ সেমি (প্রায়), পুষ্পবৃন্ত ০.৪-০.৮ সেমি লম্বা,Read More


টক পেয়ারা সারা দুনিয়ায় চাষকৃত একটি ফল

পরিচিতি: টক পেয়ারা মিরটাসি পরিবারের সিডিয়াম গণের একটি সপুষ্পক উদ্ভিদ। এরা বৃহদাকার গুল্ম এবং বৈশিষ্ট্যময় ডোরাকাটা দাগযুক্ত, মসৃণ এবং তামাটে বাকলবিশিষ্ট যাহা পাতলা এবং ছোট ছোট টুকরা আকারে উঠে যায়। কচি পল্লব চতুষ্কোণী, রোমশ, সবুজ। পাতা বৃন্তক, বৃন্ত ৫-৮ মিমি লম্বা, গোলাকৃতি, রোমশ, উপরের পৃষ্ঠ খাঁজকাটা, কচি পাতা বিপরীত তির্যকপন্ন কিন্তু পরিণত পাতা বিপরীত উপরিপন্ন, ৬-১২ x ৩-৬ সেমি, দীর্ঘায়ত-ভল্লাকার থেকে উপবৃত্তাকার, অখন্ড, শীর্ষ সুক্ষ্ম খর্বাগ্রবিশিষ্ট থেকে তীক্ষ, সচরাচর খর্ব দীর্ঘাগ্র, পাদদেশ স্থূলাগ্র, উপরের পৃষ্ঠ অর্ধ মসৃণ, নিম্নপৃষ্ঠ রোমশ এবং সুস্পষ্ট শিরাবিশিষ্ট, পার্শ্বশিরা ৫-৯ জোড়া, উপসমান্তরাল, ঢেউখেলানো অন্ত:কিনারীয় শিরার সহিতRead More


দেশি আমড়া বাংলাদেশ ভারত মায়ানমারের ফলদায়ী বৃক্ষ

ভূমিকা: আমড়া এনাকার্ডিয়াসি পরিবারের স্পনডিয়াস গণের একটি ফলদ বৃক্ষ। এটি বাংলাদেশে জনপ্রিয় ফলদায়ী গাছ। দেশি আমড়ার ফল আচার ও খাবারে যথেষ্ট ব্যবহৃত হয়। আমড়া গাছ ২৫ থেকে ৩০ ফুট পর্যন্ত উচু হতে দেখা যায়। একটি ডাঁটায় সমান্তরালভাবে কয়েক জোড়া পাতা ও ডাঁটার আগায় ১টি পাতা থাকে। অগ্রহায়ণের শেষ থেকেই পাতা ঝরতে শুরু করে, তারপর মাঘ-ফাল্গুনে গাছে মুকুল হয়, তারপর ফল; কচি অবস্থায় ফলের বীজ নরম থাকে, পরে পুষ্ট হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আঁটি শক্ত হয়ে যায়। বাংলাদেশের প্রায় সব স্থানে এটি পাওয়া যায়, অনেকে বেড়ার ধারে এটাকে লাগিয়ে রাখেন। কার্তিক-অগ্রহায়ণেই ফলRead More


লাল আমড়া এশিয়া ও আমেরিকার ফলদ বৃক্ষ

ভূমিকা: লাল আমড়া এনাকার্ডিয়াসি পরিবারের স্পনডিয়াস গণের একটি ফলদ বৃক্ষ। এটি বাংলাদেশে জনপ্রিয় ফলদায়ী গাছ। লাল আমড়ার ফল আচার ও খাবারে যথেষ্ট ব্যবহৃত হয়। বিবরণ: লাল আমড়া একটি পর্ণমোচী বৃক্ষ যারা অনূর্ধ্ব ২৫ মিটার লম্বা। এদের কাণ্ড মসৃণ। পত্র একান্তর, সাধারণত শাখার প্রান্তদেশে গুচ্ছাকারে অবস্থান করে। পুষ্পমঞ্জরী অক্ষ ৬-১২ সেমি লম্বা, পত্রবৃন্ত ২.৫-৪.০ সেমি দীর্ঘ, পত্রক কাগজ সদৃশ, তির্যকভাবে উপবৃত্তাকার বা উপবৃত্তাকার-আয়তাকার, ২.০-৫.৫ X ১.০-২.৫ সেমি, মধ্যশিরা অণুরোমশ, নিচের মধ্যশিরা ও শিরা এবং উপরের মধ্যশিরা মসৃণ, তলীয় অংশ তির্যকভাবে কীলকাকার, শীর্ষ সূক্ষ্মাগ্র থেকে দীর্ঘাগ্র, অখন্ড, শিরা ৬-১০ জোড়া। প্রান্তীয় অনিয়তাকারRead More