Main Menu

সাম্যবাদ

 
 

সমাজতন্ত্র ও কমিউনিজম — মাও সেতুং

সভাপতি মাও সে-তুঙের উদ্ধৃতি ০৩. সমাজতন্ত্র ও কমিউনিজম *** কমিউনিজম হচ্ছে সর্বহারা শ্রেণির একটা পূর্ণাঙ্গ মতাদর্শের ব্যবস্থা এবং একই সময়ে একটা নতুন সমাজ ব্যবস্থাও। অন্য যে কোনো মতাদর্শের ব্যবস্থা ও সমাজ ব্যবস্থা থেকে এটা ভিন্ন, মানব ইতিহাসে এটাই হচ্ছে সবচেয়ে বেশি সম্পূর্ণ, প্রগতিশীল, বিপ্লবী ও যুক্তিসংগত। সামন্তবাদের মতাদর্শের ব্যবস্থা ও সমাজ ব্যবস্থা ইতিহাসের যাদুঘরেরই দ্রব্য হয়ে গেছে। পুঁজিবাদের মতাদর্শের ব্যবস্থা ও সমাজ ব্যবস্থাও পৃথিবীর এক অংশে (সোভিয়েত ইউনিয়নে) যাদুঘরে স্থান নিয়েছে, অন্যান্য দেশেও এর অবস্থা হয়ে উঠেছে “পশ্চিম পাহাড়ে অস্তমিত সূর্যের ন্যায় দ্রুত ডুবন্ত, মুমূর্ষু ব্যক্তির মতো” এবং শীঘ্রই যাদুঘরেRead More


কমিউনিস্ট আন্তর্জাতিকে অন্তর্ভুক্তির শর্ত — ভি আই লেনিন

কমিউনিস্ট আন্তর্জাতিকের প্রথম প্রতিষ্ঠা কংগ্রেসে বিভিন্ন পার্টির তৃতীয় আন্তর্জাতিকে অন্তর্ভুক্তির সুনির্দিষ্ট সর্ত রচিত হয় নি। প্রথম কংগ্রেস বসার সময় অধিকাংশ দেশেই শুধু কমিউনিস্ট ধারা ও গ্রুপ বর্তমান ছিল। কমিউনিস্ট আন্তর্জাতিকের দ্বিতীয় বিশ্ব কংগ্রেস বসছে ভিন্ন পরিস্থিতিতে। এখন অধিকাংশ দেশে শুধ কমিউনিস্ট প্রবণতা ও ধারাই নয়, কমিউনিস্ট পার্টি ও সংগঠন বর্তমান। এখন কমিউনিস্ট আন্তর্জাতিকের কাছে ক্রমেই ঘন ঘন এমন সব পার্টি ও গ্রুপ আবেদন জানাচ্ছে, যারা কিছু কাল আগেও ছিল দ্বিতীয় আন্তর্জাতিকের অন্তর্ভুক্ত, এখন তৃতীয় আন্তর্জাতিকে যোগ দিতে চায়, কিন্তু প্রকৃতপক্ষে এখনো কমিউনিস্ট হয়ে ওঠে নি। দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক চুড়ান্ত রূপেই ভেঙেRead More


লুই অগ্যুস্ত ব্লাঁকি ফরাসি কল্পলৌকিক সাম্যবাদের বিশিষ্ট প্রবক্তা

লুই অগ্যুস্ত ব্লাঁকি (ফরাসি: Louis Auguste Blanqui) (১ ফেব্রুয়ারি, ১৮০৫- ১ জানুয়ারি, ১৮৮১) ছিলেন ফরাসি সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনে বিখ্যাত বিপ্লবী, ফরাসি কল্পলৌকিক সাম্যবাদের বিশিষ্ট প্রবক্তা। তাঁর প্রতিষ্ঠিত মতবাদ ব্লাঁকিবাদ নামে পরিচিত। ফ্রান্সের আল্প-মেরিটিমের পুগেত তেনেরিতে ব্লাঁকির জন্ম হয়। তাঁর পিতা কঁভঁসিয়ঁর সদস্য ছিলেন। ব্লাঁকি আইন ও চিকিৎসাবিদ্যায় শিক্ষালাভ করেন। কিন্তু এই দুই বিদ্যার একটিতেও তাঁর মন বসেনি। তাঁর মন টেনেছিলো রাজনীতিতে। ১৮৩০ সালের বিপ্লবে তিনি অংশগ্রহণ করেন। কিন্তু লুই ফিলিপের শাসনে অল্পদিনেই তাঁর মোহভঙ্গ হয়। তিনি প্রজাতন্ত্রী সমিতি সংগঠন করতে শুরু করেন। ১৮৩১ ও ১৮৩৬ সালে দুবার তাঁকে জেলে যেতে হয়।Read More


ইউরোপের যুক্তরাষ্ট্র স্লোগান প্রসঙ্গে — ভি. আই. লেনিন

‘সৎসিয়াল-দেমোক্রাৎ’ পত্রিকারী ৪০ নং সংখ্যায় আমরা জানিয়েছিলাম যে, ‘ইউরোপের যুক্তরাষ্ট্র’ স্লোগানটির অর্থনৈতিক দিকটা সংবাদপত্রে আলোচিত না হওয়া পর্যন্ত আমাদের পার্টির [১] বৈদেশিক বিভাগগুলির সম্মেলন সমস্যাটির আলোচনা মুলতুবী রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সম্মেলনে প্রশ্নটির ওপর যে-বির্তক চলে, সেটা ছিলো একটা নির্ভেজাল রাজনৈতিক চরিত্রের। তার আংশিক কারণ বোধ হয় এই যে, কেন্দ্রীয় কমিটির ঘোষণাপত্রে স্লোগানটিকে সরাসরি রাজনৈতিক স্লোগান হিসেবে রূপ দেয়া হয় (তাতে বলা আছে আশু রাজনৈতিক স্লোগান…’), তাছাড়া প্রজাতান্ত্রিক ইউরোপের যুক্তরাষ্ট্রের কথাই শুধু তাতে তোলা হয় নি, বিশেষভাবে জোর দিয়ে বলা হয়েছে যে, ‘জার্মান, অস্ট্রীয় ও রুশীয় রাজতন্ত্রের বিপ্লবী উচ্ছেদ ব্যতীত স্লোগানটিRead More


যুব লীগের কর্তব্য — ভি. আই. লেনিন

১৯২০ সালের ২ অক্টোবর রাশিয়ার কমিউনিস্ট যুবলীগের তৃতীয় সারা রাশিয়া কংগ্রেসে ভাষণ (লেনিনের উদ্দেশে কংগ্রেসের তুমূল অভিনন্দনোচ্ছাস।)। কমরেডগণ, আমি আজ আলোচনা করতে চাই যুব কমিউনিস্ট লীগের মূল কর্তব্য কী এবং এই প্রসঙ্গেই, সমাজতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্রে সাধারণভাবে যুবজনের কীরূপ সংগঠন হওয়া উচিত তাই নিয়ে। সমস্যাটি আলোচনা করা আরও আবশ্যক এইজন্য যে, কমিউনিস্ট সমাজ সৃষ্টির সত্যিকার কর্তব্য পড়বে যুবজনেরই ওপর। কারণ একথা পরিষ্কার যে কর্মীদের যে-পুরুষ পুঁজিবাদী সমাজে মানুষ হয়েছে তারা শোষণের ওপর প্রতিষ্ঠিত সাবেকী পুঁজিবাদী সমাজ জীবনের বুনিয়াদটাই বড়ো জোর ধ্বংস করতে পারে। বড়ো জোর এমন একটা সমাজব্যবস্থা সৃষ্টির কর্তব্য পালন করতেRead More


সমবায় প্রসঙ্গে — ভি. আই. লেনিন

আমার মনে হয়, আমাদের দেশে সমবায় সম্পর্কে যথেষ্ট মনোযোগ দেওয়া হচ্ছে না। অক্টোবর বিপ্লবের পর এখন এবং নয়া অর্থনৈতিক কর্মনীতির কথা ছেড়ে দিলেও (এই প্রসঙ্গে বরং বলা উচিত, নয়া অর্থনৈতিক কর্মনীতির জন্যই) আমাদের সমবায় আন্দোলন যে একেবারেই ঐকান্তিক গুরুত্ব অর্জন করছে, তা সকলেই বুঝতে পারছে কিনা সন্দেহ। সেকেলে সমবায়ীদের স্বপ্নে অনেক উৎকল্পনা ছিল। উৎকল্পনার দরুন তাদের প্রায়ই হাস্যকর মনে হত। কিন্তু তাদের উৎকল্পনাটা কোনখানে? এইখানে যে শোষকদের প্রভুত্ব উচ্ছেদ করার জন্য শ্রমিক শ্রেণির রাজনৈতিক সংগ্রামের বনিয়াদী মূলে তাৎপর্যটি তারা বোঝত না। আমাদের এখানে বর্তমানে এটার উচ্ছেদ ঘটেছে এবং এখন সেকেলেRead More


মেহনতি ও শোষিত মানুষের অধিকার ঘোষণা — ভি আই লেনিন

সংবিধান সভার সিদ্ধান্ত:[১] ১. ক) রাশিয়া এতদ্বারা শ্রমিক, সৈনিক এবং কৃষক প্রতিনিধিদের সোভিয়েতসমূহের প্রজাতন্ত্র বলে ঘোষিত হলো। কেন্দ্রীয় আর স্থানিক সমস্ত ক্ষমতা ন্যস্ত হলো এইসব সোভিয়েতের হাতে। খ) স্বাধীন জাতিসমূহের অবাধ সম্মিলনের নীতি অনুসারে সোভিয়েত জাতীয় প্রজাতন্ত্রগুলির ফেডারেশন হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হলো রাশিয়া সোভিয়েত প্রজাতন্ত্র। ২. মানুষের উপর মানুষের যাবতীয় শোষণ লোপ করা, সমাজের শ্রেণিবিভাগ সম্পূর্ণভাবে দূর করা, শোষকদের প্রতিরোধ নির্মমভাবে দমন করা, সমাজের সমাজতান্ত্রিক সংগঠন কায়েম করা এবং সমস্ত দেশে সমাজতন্ত্রের বিজয় ঘটানোই এটার মূল লক্ষ্য, তাই সংবিধান সভার আরও সিদ্ধান্ত: ক) ভূমিতে ব্যক্তিগত মালিকানা এতদ্দারা লোপ হলো। সমস্ত ঘরবাড়ি,Read More


সমাজতন্ত্র প্রলেতারিয়েতের মুক্তির পদ্ধতি সংক্রান্ত মতবাদ

সমাজতন্ত্র বা সমাজবাদ (ইংরেজি: Socialism) হচ্ছে এমন একটি সামাজিক এবং অর্থনৈতিক ব্যবস্থা যার বৈশিষ্ট্য হচ্ছে উৎপাদনের উপকরণের সামাজিক মালিকানা এবং অর্থনীতির একটি সমবায়ভিত্তিক ব্যবস্থাপনা। এছাড়াও একই সাথে এটি একটি রাজনৈতিক মতবাদ ও আন্দোলন যার লক্ষ্য হচ্ছে এই ধরনের সমাজব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করা। অর্থাৎ এটি এমন একটি সামাজিক ও অর্থনৈতিক ব্যবস্থা যেখানে সম্পদ ও অর্থের মালিকানা সামাজিক বা রাষ্ট্রীয় নিয়ন্ত্রণাধীন অর্থাৎ এতে কোনো ব্যক্তিমালিকানা থাকে না। সমাজতান্ত্রিক ব্যবস্থায় জনসাধারণের প্রয়োজন অনুসারে দ্রব্য উৎপাদন হয়। সমাজতান্ত্রিক অর্থনীতিতে একটি দেশের কলকারখানা, খনি, জমি ইত্যাদি সামাজিক, সর্বজনীন বা রাষ্ট্রীয় সম্পত্তি হিসেবে পরিগণিত হয়। সর্বজনীন ভূমি,Read More


সমাজতন্ত্রের ব্যুৎপত্তিগত অর্থ ও ধারনার উদ্ভব,

সমাজতন্ত্রের ইংরেজি ‘socialism’ শব্দটি ল্যাটিন শব্দ sociare থেকে এসেছে। ল্যাটিন শব্দটির অর্থ সংযুক্ত করা বা অংশীদার করা। এই সম্পর্কিত, রোমান ভাষায় এবং পরবর্তীতে মধ্যযুগের আইনে আরো কুশলী শব্দ হল societas. পরের societas শব্দটি দ্বারা বোঝাতো সাহচর্য এবং সংঘ বা সহযোগিতা। এছাড়াও শব্দটি দ্বারা আরো আইনানুগ ধারণায় বোঝাতো মুক্তমানুষের মধ্যে সম্মতিসূচক চুক্তি।[১] সেইন্ট সাইমন ছিলেন একজন কল্পলৌকিক সমাজতন্ত্রী যিনি সমাজতন্ত্র শব্দটি তৈরি করেন। ফরাসি বিপ্লবোত্তরকালে ব্যক্তিবাদের উদার তত্ত্বের বৈসাদৃশ্য বোঝাতে সমাজতন্ত্র শব্দটি তৈরি করা হয়। ব্যক্তিবাদ মূলত জোর দেয় যে জনগণকে একজন আরেকজনের থেকে বিচ্ছিন্ন থেকে ক্রিয়া করতে হয় বা ক্রিয়াRead More


সমাজতন্ত্র ও সাম্যবাদের পার্থক্যরেখাগুলো কোথায় ও কীভাবে?

সাম্যবাদী সমাজের গঠনের ধারনা গড়ে উঠেছে তার দুটি পর্ব বা স্তর বা ধাপ সমাজতন্ত্র (Socialism) ও সাম্যবাদের (Communism) বৈশিষ্ট্যকে নিয়ে। এই দুই পর্বের মধ্যে অনেক মিল আছে যেহেতু সেগুলো হলও একই ব্যবস্থার দুটি পর্ব। এই দুই পর্বের ভেতরে বেশ কিছু পার্থক্যও বিরাজমান, এবং এই পার্থক্যগুলো সাম্যবাদী সমাজের বিকাশের নিম্নতম ও উচ্চতম পর্বের প্রকাশ। পুঁজিবাদের পতনের পর সামাজিক সম্পর্কের নতুন সাম্যবাদী পর্যায়ে পৌঁছতে হলে প্রথম পর্যায় সমাজতন্ত্রকে অতিক্রম করতে হবে। সাম্যবাদী সমাজে পৌঁছতে হলে সমাজতান্ত্রিক সম্পর্ক সম্পূর্ণকরণের এক জটিল দীর্ঘ, এবং নানাভাবে বৈর এক প্রক্রিয়া পাড়ি দিতে হয়। অন্যভাবে বললে সমাজতন্ত্রেরRead More