Main Menu

হাঁস

 
 

পাতি মার্গেঞ্জার বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের অনিয়মিত পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Mergus গণে পৃথিবীতে ৫টি প্রজাতি রয়েছে এবং বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতিটির নাম হচ্ছে পাতি মার্গেঞ্জার। বর্ণনা: পাতি মার্গেঞ্জার লম্বা দেহ ও লম্বা লেজওয়ালা ছিপছিপে হাঁস (দৈর্ঘ্য ৬৬ সেমি, ওজন ১.২ কেজি, ডানা ২৭ সেমি, ঠোঁট ৫.৩ সেমি, পা ৪.৮ সেমি, লেজ ১১ সেমি)। প্রজননকালে ছেলেহাঁসের পিঠ পাকরা ও দেহতল সাদা; মাথা ঝলমলে সবুজাভ-কালো; ঘাড় সাদা; পিঠের নিচে সাদা অংশ, কোমর, লেজউপরি-ঢাকনি ধূসর; রূপালি-বাদামি লেজ; পাটল বর্ণের আভাসহ সাদা বগল; ডানার প্রান্ত-পালক কালচে ও ডানার ভেতরের অংশ সাদা। মেয়েহাঁসের বগলে সাদা ডোরা এবংRead More


স্মিউ হাঁস বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের অনিয়মিত পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Mergellus গণে পৃথিবীতে ১টি প্রজাতি রয়েছে এবং বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি। পৃথিবীর ও বাংলাদেশের একমাত্র প্রজাতিটি হচ্ছে স্মিউ হাঁস। বর্ণনা: স্মিউ হাঁস বর্গাকার মাথাওয়ালা খুদে হাঁস (দৈর্ঘ্য ৪৬ সেমি, ওজন ৬৮০ গ্রাম, ডানা ১৯ সেমি, ঠোঁট ৩ সেমি, পা ৩ সেমি, লেজ ৭.৫ সেমি)। ছেলে ও মেয়েহাঁসের মধ্যে চেহারায় পার্থক্য রয়েছে। প্রজননকালে ছেলেহাঁসের ঠোঁটের গোড়া ও চোখের মাঝামাঝি অংশ কালো, ঘাড়ে কালো ছিটা-দাগ এবং সাদা ন্যুচাল ঝুঁটি পুরো দেহ সাদা; ডানা কালচে ও বুকের পাশে কালো ডোরা; দেহের পাশ ও লেজ ধূসর; চোখ লালচে এবংRead More


পাতি সোনাচোখ বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের অনিয়মিত পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Bucephala গণে পৃথিবীতে ৩টি প্রজাতি রয়েছে এবং বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি। বাংলাদেশের প্রজাতিটি হচ্ছে পাতি সোনাচোখ। বর্ণনা: পাতি সোনাচোখ মাঝারি আকারের ডুবুরি হাঁস (দৈর্ঘ্য ৪৬ সেমি, ওজন ৮০০ গ্রাম, ডানা ২১ সেমি, ঠোঁট ৩ সেমি, পা ৩.৬ সেমি, লেজ ৮.৫ সেমি)। প্রজনন ঋতুতে ছেলেহাঁসের পিঠ পাকরা ও কালো লেজ ছাড়া দেহতল সাদা; মাথা কালচে-সবুজ; পিঠ, ডানা ও লেজ কালো এবং মুখে সাদা পট্টি রয়েছে; ডানার মধ্য-পালক, বুক, দেহপার্শ্ব ও পেট উজ্জ্বল সাদা। এর ঠোঁট কালো; চোখ সোনালী; পা ও পায়ের পাতা হলুদ বা কমলা। প্রজননকালRead More


বেয়ারের ভুতিহাঁস বিশ্বে মহাবিপন্ন এবং বাংলাদেশের বিরল পরিযায়ী পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায়  Aythya গণে পৃথিবীতে রয়েছে ১২টি প্রজাতি এবং বাংলাদেশে রয়েছে ৫টি প্রজাতি। সেগুলো হচ্ছে, ১. বেয়ারের ভুতিহাঁস, ২. পাতি ভুতিহাঁস, ৩. টিকি হাঁস, ৪. বড় স্কপ ও ৫. মরচেরঙ ভুতিহাঁস। আমাদের আলোচ্য এই হাঁসটি হচ্ছে বেয়ারের ভুতিহাঁস। বর্ণনা: বেয়ারের ভুতিহাঁস মাঝারি আকারের তামাটে-বাদামি হাঁস (দৈর্ঘ্য ৪৬ সেমি, ডানা ২২ সেমি, ঠোঁট ৫ সেমি, পা ৩ সেমি, লেজ ৭ সেমি)। প্রজননকালে ছেলেহাঁসের মাথা চকচকে কালো ও ঘাড়ে সবুজাভ দীপ্তি রয়েছে; বুক মেহগনির মত বাদামি, বগল অনুজ্জ্বল তামাটে এবং পেট ও লেজের নিচের পালক সাদা। কালচে আগা ও নখসহRead More


পাতি ভুতিহাঁস বিশ্বে বিপদগ্রস্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ পরিযায়ী পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায়  Aythya গণে পৃথিবীতে রয়েছে ১২টি প্রজাতি এবং বাংলাদেশে রয়েছে ৫টি প্রজাতি। সেগুলো হচ্ছে, ১. বেয়ারের ভুতিহাঁস, ২. পাতি ভুতিহাঁস, ৩. টিকি হাঁস, ৪. বড় স্কপ ও ৫. মরচেরঙ ভুতিহাঁস। আমাদের আলোচ্য এই হাঁসটি হচ্ছে পাতি ভুতিহাঁস। বর্ণনা: পাতি ভুতিহাঁস গম্বুজ-মাথা রূপালি হাঁস ( দৈর্ঘ্য ৪৮ সে.মি, ওজন ৮২০ গ্রাম, ডানা ২১ সেমি, ঠোঁট ৪.৬ সেমি, পা ৩.৭ সেমি, লেজ ৬.৫ সেমি)। প্রজননকালে ছেলেহাঁসের দেহের উপরিভাগ রূপালি-ধূসর ও দেহতলের বেশীর ভাগই ধূসরাভ-সাদা; মাথা তামাটে, পিঠ রূপালি-ধূসর ও কোমর কালো; ডানায় অনুজ্জ্বল ধূসর ছোট দাগ, লেজের উপরের ওRead More


টিকি হাঁস বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ পরিযায়ী পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায়  Aythya গণে পৃথিবীতে রয়েছে ১২টি প্রজাতি এবং বাংলাদেশে রয়েছে ৫টি প্রজাতি। সেগুলো হচ্ছে, ১. বেয়ারের ভুতিহাঁস, ২. পাতি ভুতিহাঁস, ৩. টিকি হাঁস, ৪. বড় স্কপ ও ৫. মরচেরঙ ভুতিহাঁস। আমাদের আলোচ্য এই হাঁসটি হচ্ছে টিকি হাঁস। বর্ণনা: টিকি হাঁস মাঝারি আকারের ঝুটিয়াল হাঁস (দৈর্ঘ্য ৪৩ সেমি, ওজন৭৫০ গ্রাম, ডানা ২০ সেমি, ঠোঁট ৪ সেমি, পা ৩.৫ সেমি, লেজ ৫.৫ সেমি)।প্রজননকালে ছেলেহাঁসের পিঠ চকচকে কালো ও দেহতল সাদা দেখায়; মাথার চূড়ায়স্পষ্ট সাদা ফোঁটা, মাথা ও ঘাড় ঘন কালো এবং বগল সাদা; মাথার পেছনে বড়ঝুলন্তঝুটি থাকে; লেজ, বুকRead More


মরচেরঙ ভুতিহাঁস বিশ্বে প্রায়-বিপদগ্রস্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ পরিযায়ী পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায়  Aythya গণে পৃথিবীতে রয়েছে ১২টি প্রজাতি এবং বাংলাদেশে রয়েছে ৫টি প্রজাতি। সেগুলো হচ্ছে, ১. বেয়ারের ভুতিহাঁস, ২. পাতি ভুতিহাঁস, ৩. টিকি হাঁস, ৪. বড় স্কপ ও ৫. মরচেরঙ ভুতিহাঁস। আমাদের আলোচ্য এই হাঁসটি হচ্ছে মরচেরঙ ভুতিহাঁস। বর্ণনা: মরচেরঙ ভুতিহাঁস তামাটে মাথা,বুক ও বগলওয়ালা কালচে বাদামি হাঁস (দৈর্ঘ্য ৪১ সেমি, ওজন ৬০০ গ্রাম, ডানা ১৮.৫ সেমি, ঠোঁট ৩.৯ সেমি, পা ৩.১ সেমি, লেজ ৫.৫ সেমি)। প্রজননশীল ছেলেহাঁসের পিঠ ঘন বাদামি। মাথা, ঘাড় ও বুক অতি তামাটে এবং লেজতলের কোভার্ট সাদা। ঠোঁট অনুজ্জ্বল স্লেট-রঙের বা নীলচে-কালো। চোখ সাদাRead More


বড় স্কপ বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের অনিয়মিত পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায়  Aythya গণে পৃথিবীতে রয়েছে ১২টি প্রজাতি এবং বাংলাদেশে রয়েছে ৫টি প্রজাতি। সেগুলো হচ্ছে, ১. বেয়ারের ভুতিহাঁস, ২. পাতি ভুতিহাঁস, ৩. টিকি হাঁস, ৪. বড় স্কপ ও ৫. মরচেরঙ ভুতিহাঁস। আমাদের আলোচ্য এই হাঁসটি হচ্ছে বড় স্কপ। বর্ণনা: বড় স্কপ বা বড় স্কাউপ বাদামি রঙের বড় মাথাওয়ালা হাঁস (দৈর্ঘ্য ৪৬ সেমি, ওজন ১ কেজি, ডানা ২২ সেমি, ঠোঁট ৪.৩ সেমি, পা ৩.৫ সেমি, লেজ ৫.৫ সেমি)। প্রজননকালে ছেলেহাঁসের মাথা ও লেজ ছাড়া পিঠ ধূসর এবং দেহতল বিশেষ করে বুকের নিচের অংশ ও বগল সাদা; কালচে মাথায় সবুজRead More


গোলাপি হাঁস পৃথিবী ও বাংলাদেশ থেকে বিলুপ্ত পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায়  Rhodonessa গণে বাংলাদেশে এবং পৃথিবীতে একটি প্রজাতি ছিলো। আমাদের আলোচ্য এই হাঁসটি হচ্ছে গোলাপি হাঁস। বর্ণনা: গোলাপি হাঁস লম্বা গোলাপি গলার মাঝারি আকারের হাঁস (দৈর্ঘ্য ৬০ সেমি, ওজন ৮৪০ গ্রাম, ডানা ২৬ সেমি, ঠোঁট ৫.৩ সেমি, পা ৪ সেমি, লেজ ১১.৫ সেমি)। ছেলে ও মেয়েহাঁসের চেহারায় বেশ পার্থক্য আছে। ছেলেহাঁসের মাথা, মুখ ও ঘাড় গোলাপি; কপাল কালচে বাদামি; ডানার অনেকটা অংশ গোলাপি: ডানার মধ্য-পালক ও ডানাতল-ঢাকনি; বাকি শরীর কালচে বাদামি। মেয়েহাঁসের ধূসর মাথায় হালকা গোলাপি আভা, চাঁদি ও ঘাড়ের পিছনে বাদামি; ডানার মধ্য-পালক ফ্যাকাসে বাদামি; দেহেরRead More


ধলা বালিহাঁস বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের দুর্লভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায়  Nettapus গণে বাংলাদেশে ও পৃথিবীতে ১টি প্রজাতি রয়েছে। বাংলাদেশ ও পৃথিবীর প্রজাতিটি হচ্ছে ধলা বালিহাঁস বা ভূলিয়া হাঁস। বর্ণনা: ধলা বালিহাঁস খাটো ঠোঁটওয়ালা খুদে হাঁস (দৈর্ঘ্য ৩৩.৫ সেমি, ওজন ২৫০ গ্রাম, ডানা ১৫.৫ সেমি, ঠোঁট ২.৮ সেমি., পা ২.৪ সেমি, লেজ ৭.৩ সেমি)। পুরুষ ও স্ত্রী হাঁসের চেহারায় পার্থক্য আছে। পুরুষ হাঁসের মাথার চাঁদি ও পিঠ কালচে-বাদামি; মুখ, ঘাড় ও দেহতল সাদা; গলায় স্পষ্ট কালো বলয় ও ডানায় সাদা ডোরা; চোখ লালচে-বাদামি; ও ঠোঁট কালো। স্ত্রী হাঁসের দেহতল অনুজ্জ্বল ফিকে সাদা; ডানার প্রান্তÍ সাদা; চোখ বরাবরRead More