You cannot copy content of this page
আপনি যা পড়ছেন
মূলপাতা > Posts tagged "আন্তর্জাতিক সংগঠন"

আন্তর্জাতিকতাবাদ প্রসঙ্গে

ইন্টারন্যাশনালিজম বা আন্তর্জাতিকতাবাদের (ইংরেজি: Internationalism) একটি সাধারণ অর্থ বিশ্বের জাতিসমূহের মধ্যে সৌহার্দ্যমূলক সম্পর্ক বজায় রাখার নীতি। কিন্তু শব্দটির বিকাশ ঘটেছে আধুনিককালে সংকীর্ণ জাতীয়তাবাদের বিরোধী চিন্তা হিসাবে। সংকীর্ণ জাতীয়তাবাদের প্রবণতা হচ্ছে নিজের জাতি ও রাষ্ট্রের স্বার্থকে প্রধান বলে গণ্য করা এবং অপর জাতি এবং রাষ্ট্রের স্বার্থসমূহকে উপেক্ষা করা। সংকীর্ণ জাতীয়তাবাদের মারাত্মক

শ্রমজীবী মানুষের আন্তর্জাতিক সমিতির সাধারণ নিয়মাবলি

যেহেতু শ্রমিক শ্রেণির মুক্তি শ্রমিক শ্রেণিকেই জয় করে নিতে হবে; শ্রমিক শ্রেণির মুক্তির জন্য যে সংগ্রাম, তার অর্থ শ্রেণিগত সুবিধা ও একচেটিয়া অধিকারের জন্য সংগ্রাম নয়, সমান অধিকার ও কর্তব্যের জন্য এবং সমস্ত শ্রেণি আধিপত্যের উচ্ছেদের জন্য সংগ্রাম। শ্রম করে যে মানুষ, শ্রম উপায়ের অর্থাৎ জীবনধারণের বিভিন্ন উৎসের একচেটিয়া মালিকের কাছে আরো পড়ুন

আরব লিগ আরব দেশসমূহকে নিয়ে গঠিত পুঁজিবাদের সেবাকারী সংগঠন

১৯৪৫ খ্রি বিভিন্ন আরব দেশসমূহকে নিয়ে গঠিত কয়েকটি রাষ্ট্রের সংগঠন বা রাষ্ট্রসমবায়। আগের বছর ১৯৪৪ সালে আলেকজান্দ্রিয়ায় একটি প্রস্তুতি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের মধ্যে ছিল মিশর, ইরাক, লেবানন, সৌদি আরব, সিরিয়া, জর্ডন এবং ইয়েমেন। পরে একের পর এক লিবিয়া, সুদান, তিউনিসিয়া, মরক্কো, কুয়েত, আলজেরিয়া, দক্ষিণ ইয়েমেন, বাহরাইন, কাতার, ওমান এবং পারস্য উপসাগরের উপকূলবর্তী আমিরশাহি রাজ্যগুলি তাতে যােগ দেয়। আরো পড়ুন

আন্তর্জাতিকের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

আন্তর্জাতিক (ইংরেজি: International) হচ্ছে বিভিন্ন দেশের সমাজতান্ত্রিক আন্দোলন ও সংগঠনের আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ধারাবাহিকভাবে গঠিত সংগঠনসমূহের একত্রিত নাম। এই সংগঠনগুলোর উদ্দেশ্য ছিল বিশ্ব সাম্যবাদ প্রতিষ্ঠা করা। এই সংগঠনগুলোকে সাধারণত প্রথম আন্তর্জাতিক, দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক, তৃতীয় আন্তর্জাতিক ও চতুর্থ আন্তর্জাতিক হিসেবে উল্লেখ করা হয়। মূল নিবন্ধ: প্রথম আন্তর্জাতিকের কার্যক্রম ও ভূমিকা প্রথম আন্তর্জাতিক ১৮৬৪ খ্রিস্টবাদে

সাম্যবাদী আন্তর্জাতিক বা তৃতীয় আন্তর্জাতিকের কার্যক্রম ও ভূমিকা

১৯১৮ সালে পেত্রোগ্রাদে আন্তর্জাতিক গড়ে তোলার লক্ষ্যে একটি প্রস্তুতি সভা হয়। অংশ নেয় বলশেভিক পার্টি, বাম সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবী, বিভিন্ন দেশের সমাজ গণতন্ত্রী দল প্রভৃতি। এতে সভাপতিত্ব করেন ম্যাক্সিম গোর্কি। সম্মেলনে ৮২ জন প্রতিনিধি যোগ দেন। মূল বক্তা ছিলেন জিনভিয়েভ। মূল কমিটির সভাপতি হন ভ্লাদিমির লেনিন (রাশিয়া), হিউগো এবারলিন (জার্মানী) প্ল্যাটেন

দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক বা সমাজতন্ত্রী আন্তর্জাতিকের কার্যক্রম ও ভূমিকা

শ্রমিক আন্দোলনে মার্কসবাদের বিজয়ের পক্ষে একান্ত ফলপ্রসূ ছিল প্রথম আন্তর্জাতিকের ক্রিয়াকলাপ, বিভিন্ন দেশে ব্যাপক প্রলেতারিয় পার্টি গড়ার জন্য যা জমিন তৈরি করেছিল। কল্পলৌকিক সমাজতন্ত্র ও কমিউনিজমের নানা শিক্ষা ও ধারার ব্যাপারে উনিশ শতকে মার্কস ও এঙ্গেলস তাঁদের নির্মম সমালোচনা দ্বারা প্রলেতারিয়েতের মধ্যে মার্কসবাদ বিস্তারের পথ পরিষ্কার করেন। শ্রমিক আন্দোলনে মার্কসবাদ বিজয়ের

প্রথম আন্তর্জাতিকের কার্যক্রম ও ভূমিকা

কার্ল মার্কস ও ফ্রিডরিখ এঙ্গেলসের জীবনে তত্ত্ব ও কর্ম সমান্তরালভাবে চলেছে। তত্ত্ব চর্চা ও বৈপ্লবিক ব্যবহারিক ক্রিয়াকলাপ ছিলো একটি আরেকটির সাথে অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত এবং সেগুলো পরস্পরকে সমৃদ্ধ করতো। ১৮৬৪ সালে ‘পুঁজি’র প্রথম খণ্ডের কাজ যখন শেষ হবার পথে, মার্কস তখন তাঁর কাজ থামিয়ে দিয়ে নিজের সর্বশক্তি নিয়োগ করেন প্রথম আন্তর্জাতিক

Top