You cannot copy content of this page
আপনি যা পড়ছেন
মূলপাতা > Posts tagged "জ্ঞান"

বুদ্ধিবাদ প্রসঙ্গে

বুদ্ধিবাদ (ইংরেজি: Intellectualism) দ্বারা বুদ্ধির ব্যবহার, বিকাশ, এবং ব্যায়ামকে বোঝানো হয়। বুদ্ধিবাদ বলতে কখনো কখনো মনীষী হওয়ার অভ্যাস এবং মনের জীবনকে বোঝায়। জ্ঞানের ক্ষেত্রে বুদ্ধির ভূমিকা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু মানুষের বুদ্ধি তার দেহ এবং বাস্তব পরিবেশ-বিচ্ছিন্ন কোনো স্বাধীন শক্তি নয়। বাস্তব পরিবেশের সঙ্গে ব্যক্তিক প্রত্যক্ষ সম্পর্কের মাধ্যমে ব্যক্তির মানসিক বা বুদ্ধিগত ক্ষমতার জন্ম হয়েছে এবং তার বিকাশ ঘটেছে। বুদ্ধির এই আপেক্ষিক বিচার এবং তার দ্বন্দ্বমূলক বৈশিষ্ট্যের স্বীকৃতি সর্বযুগে সমান নয়। আরো পড়ুন

প্রত্যক্ষ অনুমান প্রসঙ্গে

প্রচলিত যুক্তিশাস্ত্রে প্রত্যক্ষ অনুমান (ইংরেজি: Immediate Inference) বলতে সেই সিদ্ধান্ত বা অনুমানকে বুঝানো হয় যে অনুমান একটিমাত্র হেতু বা দত্ত বাক্য দ্বারা গৃহীত হয়। যেমনঃ সকল মানুষ মরণশীল। অতএব, কোনো মানুষ অমর নয়। এখানে একটিমাত্র হেতু বাক্য ‘সকল মানুষই মরণশীল’ থেকে সুতরাং ‘কোনো মানুষ অমর নয়’ সিদ্ধান্তটি অনুমান করা হয়েছে। একটু

প্রতীকবাদ প্রসঙ্গে

প্রতীকবাদ (ইংরেজি: Theory of Symbols or Hieroglyphs) জ্ঞানের প্রশ্নে একটি বিশেষ তত্ত্ব। ইন্দ্রিয়ের অনুভূতির মাধ্যমে আমরা বস্তু জগতের প্রতিচ্ছবি লাভ করি। এই প্রতিচ্ছবি মিলিয়ে মন বস্তু জগতের জ্ঞান তৈরি করে। এটি হচ্ছে জ্ঞানের সাধারণ গৃহীত তত্ত্ব। কিন্তু প্রতীকবাদ জ্ঞানের এই তত্ত্বকে স্বীকার করে না। প্রতীকবাদের মতে ইন্দ্রিয়ানুভূতি আমাদের মনে বস্তুর

সাধারণীকরণ প্রসঙ্গে

বৈজ্ঞানিক জ্ঞান অন্বেষার প্রয়োজনীয় স্তরসমূহের মধ্যে সাধারণীকরণ (ইংরেজি: Generalisation) অন্যতম। জ্ঞান লাভের প্রক্রিয়াটি সংক্ষেপে এভাবে বিবৃত করা যায়: কোনো প্রশ্নের মীমাংসার জন্য আমরা প্রথমে প্রশ্নের সঙ্গে সম্পর্কিত বিশেষ বিশেষ ঘটনা বা বস্তুকে পর্যবেক্ষণ করি; এটি প্রথম স্তর। দ্বিতীয় স্তরে পর্যবেক্ষিত বস্তু বা ঘটনাকে তুলনা ও বিশ্লেষণ করে পর্যবেক্ষিত বস্তু বা

জ্ঞানতত্ত্ব প্রসঙ্গে

জ্ঞানতত্ত্ব (ইংরেজি: Epistemology) হচ্ছে জ্ঞানলাভের মর্ম, নিয়মাবলী ও রূপ সম্পর্কে শিক্ষা।[১] দর্শনের আলোচ্য বিষয়কে সাধারণত তিন ভাগে বিভক্ত করে দেখানো হয় জ্ঞানতত্ত্ব, পরাতত্ত্ব বা চরম সত্তার তত্ত্ব এবং নীতি বা মূল্যতত্ত্ব। জ্ঞানতত্ত্বের প্রধান প্রশ্ন হচ্ছে জ্ঞান বলতে কি বুঝায়। জ্ঞান কি প্রকারে অর্জিত হয়? মানুষের জ্ঞানের সীমাবদ্ধতা আছে কিংবা নেই ইত্যাদি। আরো পড়ুন

অভিজ্ঞতাবাদ প্রসঙ্গে

‘অভিজ্ঞতাবাদ’ (ইংরেজি: Empiricism) হচ্ছে একটি জ্ঞান-তত্ত্ব। মানুষের জ্ঞানের উৎস কি এবং জ্ঞানের ক্ষমতা এবং সীমাবদ্ধতা কি, এ বিষয়ে দর্শনে বিভিন্ন তত্ত্ব আছে। সাধারণভাবে অভিজ্ঞতাবাদ বলতে এরূপ তত্ত্বকে বুঝায় যে, মানুষের ইন্দ্রিয়-অভিজ্ঞতাই হচ্ছে জ্ঞানের একমাত্র উৎস। তবে অভিজ্ঞতা কথাটি দর্শনে একটি ব্যাপক ব্যবহৃত শব্দ। ভাববাদ এবং বস্তুবাদ উভয় তত্ত্বে অভিজ্ঞতার

সামঞ্জস্যবাদ কাকে বলে?

সামঞ্জস্যবাদ (ইংরেজি: Coherentism) নামটি আধুনিক জ্ঞানতত্ত্বের মধ্যে কয়েকটি দার্শনিক মতবাদের ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা হয়। দর্শনে সত্যের মাপকাঠি নিয়ে তর্ক আছে। একটা কথা বা বক্তব্য সত্য –এরূপ দাবির অর্থ কি? কেউ যদি বলে, সে ভূত দেখেছে তা হলে তার সে কথাকে মিথ্যা বলে অভিহিত করি। কিন্তু ‘ওখানে একটি চেয়ার আছে’ এ কথাকে আমরা সত্য বলি। কিসের ভিত্তিতে

জ্ঞান প্রক্রিয়া প্রসঙ্গে

জ্ঞান প্রক্রিয়া বা সংজ্ঞান (ইংরেজি: Cognition) হচ্ছে “চিন্তাধারা, অভিজ্ঞতা এবং ইন্দ্রিয়ের মাধ্যমে জ্ঞান এবং বুদ্ধি অর্জনের মানসিক পদক্ষেপ বা প্রক্রিয়া”। জ্ঞানীয় প্রক্রিয়া বিদ্যমান জ্ঞান ব্যবহার করে এবং নতুন জ্ঞান উৎপন্ন করে। ‘আমাদের জ্ঞান আছে, আমরা জ্ঞান আহরণ করি’ ইত্যাদি কথা আমরা সব সময়ই ব্যবহার করি। জ্ঞানের দ্বারাই মানুষ আদিকাল থেকে

শ্রেণিবদ্ধকরণ কাকে বলে?

শ্রেণীবদ্ধকরণ বা সূত্রায়ন বা জ্ঞানসূত্রায়ন (ইংরেজি: Categorization) হচ্ছে এমন কিছু যা মানুষ এবং অন্যান্য প্রাণসমূহ করে: “সঠিক জিনিসটি দিয়ে সঠিক জিনিসটি করা।” এই করা বাচনিক বা অবাচনিক হতে পারে। মানুষের জন্য, মূর্ত বস্তু এবং বিমূর্ত ধারণা উভয়ই স্বীকৃতি, পার্থক্যকরণ, এবং শ্রেণীকরণের মাধ্যমে বোঝা হয়। আরো পড়ুন

বিরোধাভাস কাকে বলে?

বিরোধাভাস বা বিরোধী সিদ্ধান্তের সমস্যা (ইংরেজি: Antinomy) হচ্ছে একই যুক্তি থেকে পরস্পর-বিরোধী সিদ্ধান্তের উদ্ভব হলে যে সিদ্ধান্তের সমস্যার সৃষ্টি হয়। প্লেটো, এ্যারিস্টটল, জেনো প্রমুখ প্রাচীন গ্রিক দার্শনিকের রচনায় পরস্পর-বিরোধী সিদ্ধান্তমূলক দৃষ্টান্তের সাক্ষাৎ পাওয়া যায়। গতি এবং সংখ্যার যুক্তিতে যে পরস্পর-বিরোধীতার অবকাশ রয়েছে, দর্শিনিক জেনো তা দৃষ্টান্ত সহযোগে প্রমাণ করেন। গতি

Top