Main Menu

রক্ষিত উদ্ভিদ

 
 

ছোট চমকী অর্কিড বাংলাদেশ, ভারত, ভুটান ও তিব্বতের অর্কিড

ভূমিকা: ছোট চমকী অর্কিড  (বৈজ্ঞানিক নাম: Paphiopedilum venustum) অর্কিড পরিবারের পাফিওপেডিলাম  গণের বিরুৎ। বাংলাদেশের ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনের তফসিল-৪ অনুযায়ী বাংলাদেশে প্রাপ্ত এই প্রজাতিটি সংরক্ষিত এবং বাংলাদেশে মহাবিপন্ন হিসেবে বিবেচিত। বর্ণনা: পত্রময় কান্ড বিশিষ্ট স্থলজ বীরুৎ, ৪০ সেমি পর্যন্ত উঁচু। পাতা ৪-৫টি, ২৫ সেমি পর্যন্ত লম্বা, উপবৃত্তাকারআয়তাকার বা বৃক্কাকার, বিভিন্ন বর্ণের চৌখুপি দ্বারা শোভিত, গাঢ় সবুজ, উপরের পৃষ্ঠ ফ্যাকাশে সবুজ এবং নিম্নপৃষ্ঠ ফ্যাকাশে বেগুনি বর্ণে মর্মর প্রস্তরের ন্যায় রঙ করা । ভৌম পুষ্পদন্ড ১৫-২৩ সেমি লম্বা, ১-২টি পুষ্প সম্বলিত, রোমশ, মঞ্জরীপত্র গর্ভাশয়ের অর্ধেক লম্বা। পুষ্প ৫-৬ সেমিRead More


বড় চমকি অর্কিড বাংলাদেশ, ভারত, ভুটান ও মায়ানমারের অর্কিড

ভূমিকা: বড় চমকি অর্কিড (বৈজ্ঞানিক নাম: Paphiopedilum insigne) অর্কিড পরিবারের পাফিওপেডিলাম গণের বিরুৎ। বাংলাদেশের ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনের তফসিল-৪ অনুযায়ী বাংলাদেশে প্রাপ্ত এই প্রজাতিটি সংরক্ষিত এবং বাংলাদেশে মহাবিপন্ন হিসেবে বিবেচিত। বর্ণনা: স্থলজ বীরুৎ। পাতা ২০-৩০ সেমি লম্বা, তীক্ষাগ্র, ফ্যাকাশে সবুজ, চাবুক আকৃতির, মসৃণ, বিভিন্ন বর্ণের চৌখুপি দ্বারা শোভিত নয়। ভৌম পুষ্পদন্ড ৩০ সেমি লম্বা, ১টি থেকে ২টি পুষ্প বিশিষ্ট, আয়তাকার, চেপ্টা, বৃহদাকার মঞ্জরীপত্র এবং গর্ভাশয় রোমশ, মঞ্জরীপত্র গর্ভাশয়ের সমান। পুষ্প ১০-১২ সেমি ব্যাস বিশিষ্ট, উজ্জ্বল। পৃষ্ঠীয় বৃত্যংশ আপেল সবুজ, বেগুনি দাগ বিশিষ্ট, বৃহৎ ধনুকাকার, বর্তুলাকার-ডিম্বাকার, কিনারা কিঞ্চিৎ নিম্নমুখীRead More


মহা ডেনড্রোবিয়াম দক্ষিণ ও দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার অর্কিড

ভূমিকা: মহা ডেনড্রোবিয়াম (বৈজ্ঞানিক নাম: Dendrobium nobile) অর্কিড পরিবারের ডেন্ড্রোবিয়াম গণের বিরুৎ। এর সৌন্দর্যের কারণে এরা জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। বাংলাদেশের ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনানুসারে রক্ষিত অর্কিডের তালিকায় তফসিল-৪ অনুযায়ী এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত। বর্ণনা: মহা ডেনড্রোবিয়াম উদ্ভিদ বৃক্ষাশ্রয়ী বা শৈলাশ্রয়ী, বৃহদাকার ঝাড় সৃষ্টি করে, মূল গুচ্ছাকার, কাষ্ঠল। কান্ড গুচ্ছাকার, ঘন, পাদদেশ স্ফীত, সীথে আবৃত, শশ্রুময়, ঢেউখেলানো থেকে কিঞ্চিৎ আঁকাবাকা, প্রান্তসহ খাজকাটা, সন্ধিত, হলুদাভ, ৫০ সেমি পর্যন্ত লম্বা, ২.৫ – ৩.৫ x ০.৫-১.২ সেমি, সীথ নলাকার, ২৪ সেমি লম্বা। পাতা আয়তাকার থেকে চমসাকার, খাতা, বহু-শিরাল, অবৃন্তক, চর্মবৎ, দ্বি-সারি, স্থায়ী,Read More


বাংলাদেশের রক্ষিত উদ্ভিদের তালিকা

বাংলাদেশে প্রায় সাড়ে ছয় হাজার প্রজাতির উদ্ভিদ রয়েছে। এসব প্রজাতির ভেতরে অনেকগুলো বিপন্ন ও বিলুপ্তির পর্যায়ে রয়েছে। এইসব বিপন্ন প্রজাতির উদ্ভিদের ৫৪টি প্রজাতিকে বিলুপ্তির হাত থেকে রক্ষার জন্য ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা আইনের তফসিল ৪ অনুসারে রক্ষিত উদ্ভিদ বা Protected plants ঘোষণা করা হয়েছে। আইনের ধারা ৬ অনুযায়ী এসব উদ্ভিদ কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে উঠানো, উপড়ানো, ধ্বংস বা সংগ্রহ করতে পারবেন না। এছাড়া উক্ত আইনের ১২ নং ধারা অনুসারে উক্ত ৫৪ প্রজাতির উদ্ভিদ বা উদ্ভিদসমূহের অংশ বা উহা হতে উৎপন্ন দ্রব্য দান, বিক্রয় বা অন্য কোন প্রকারে অন্য কোন ব্যক্তিরRead More


সিভিট বাংলাদেশে সংকটাপন্ন দক্ষিণ ও দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার বৃক্ষ

ভূমিকা: সিভিট এনাকার্ডিয়াসি পরিবারের সুইনটোনিয়া গণের একটি বিশালাকারের চিরসবুজ বৃক্ষ। গাছটি বাংলাদেশে সংকটাপন্ন হিসেবে বিবেচিত এবং বাংলাদেশের ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনের তফসিল-৪ অনুযায়ী এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত। বিবরণ: সিভিট ৭ মিটার বা ততোধিক উচ্চতা সম্পন্ন, প্রশস্ত গুঁড়ি বিশিষ্ট, মসৃণ, অতি উচ্চ চিরহরিৎ বৃক্ষ। বাকল উজ্জ্বল গোলাপি, অগভীর উলম্ব ফাটল বিশিষ্ট, মসৃণ, ধূসর বর্ণ, ব্লেজ গোলাপি। পত্র প্রশাখার প্রান্তদেশে গুচ্ছাকারে অবস্থান করে, বল্লমাকার, ১০-১৫ সেমি লম্বা, পাতলা, উপরিভাগ চর্মবৎ ও চকচকে সবুজ, অষ্কীয় পৃষ্ঠ চকচকে, পত্রবৃন্ত অত্যন্ত সরু, ২.৫-৪.০ সেমি লম্বা। পুষ্পবিন্যাস ১৫-৩০ সেমি লম্বা, যৌগিক মঞ্জরী, প্রান্তীয় বাRead More


উদয়পদ্ম বা হিমচাঁপা বাংলাদেশের রক্ষিত উদ্ভিদ

বিবরণ: উদয়পদ্ম বা হিমচাঁপা বাংলাদেশের ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনের তফসিল ৪ অনুযায়ী একটি সংরক্ষিত উদ্ভিদ। আমেরিকার আদি জন্মস্থানে গাছ বড় হলেও আমাদের দেশে ৬ থেকে ১০ মিটার উঁচু হয়। গাছের গড়ন হালকা ও কিছুটা লম্বাটে। উদয়পদ্ম বা হিমচাঁপা ছোট বা মাঝারি আকারের চিরহরিৎ বৃক্ষ, ১০-২০ মিটার উঁচু, কিছু ক্ষেত্রে অত্যন্ত দীর্ঘকায়, ২৭ মিটার পর্যন্ত দীর্ঘ হতে পারে। এদের ঋজু শাখা ও মসৃণ ধূসর বর্ণের বাকলযুক্ত। পাতা সরল, একান্তর, দীর্ঘায়ত থেকে বিডিম্বাকার, ১২-২৫x ৬-১০ সেমি, পুরু এবং চর্মবৎ, উপরের পৃষ্ঠ উজ্জ্বল এবং চকচকে, নিম্ন পৃষ্ঠ তামাটে বাদামী, পত্রমুকুল মরিচাRead More


বাঁশপাতি বাংলাদেশে মহাবিপন্ন এবং বৈশ্বিকভাবে ন্যূনতম বিপদগ্রস্ত বৃক্ষ

বৈজ্ঞানিক নাম: Podocarpus neriifolius বাংলা নাম: বাঁশপাতি বা বাঁশপাতা গাছ জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae – Plants অবিন্যসিত: Angiosperms অবিন্যসিত:Pinophyta অবিন্যসিত: Pinopsida বর্গ: Pinales পরিবার: Podocarpaceae গণ: Podocarpus প্রজাতি: Podocarpus neriifolius D. Don পরিচিতি: বাঁশপাতি বা বাঁশপাতা গাছ হচ্ছে পডোকারপাসি পরিবারের একটি নগ্নবীজি উদ্ভিদ। বাংলাদেশের একমাত্র নরম কাঠের বৃক্ষ। এটি উষ্ণমণ্ডলীয় এবং উপউষ্ণমণ্ডলীয় অঞ্চলের হালকা জলজ বনে, সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৬৫০ থেকে ১৬০০ মিটার উচ্চতায় জন্মায়। এটির সত্যিকারের কোনো ফুল-ফল হয় না, বীজ নগ্নভাবে থাকে। পাতা লম্বাটে। সাধারণত ১২-২৫ সে.মি. পর্যন্ত লম্বা হয়ে থাকে। এর পাতার প্রস্থ ৩-৪ সে.মি.। বাঁশপাতা গাছের উচ্চতাRead More


নাইচিচা উদাল বাংলাদেশের রক্ষিত মহাবিপন্ন উদ্ভিদ

বৈজ্ঞানিক নাম: Firmiana colorata (Roxb.) সমনাম: Sterculia colorata (Roxb.) Erythropsis colorata (Roxb.) Burk. Firmiana rubriflora Kosterm. Erythropsis roxburghiana Schott & Endl. বাংলা ও স্থানীয় নাম: নাইচিচা উদাল, পাতা-গোটা (ঢাকা-ময়মনসিংহ), সামাররী, পিসি, ফিউবান (মগ), বল অজুন (গারো)। ইংরেজি নাম:  Bonfire tree, Colored Sterculia and Indian Almond, ইত্যাদি।   জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae – Plants  শ্রেণী: Eudicots উপশ্রেণি: Rosids বর্গ:  Malvales পরিবার: Malvaceae উপপরিবার: Sterculiaceae গণ: Firmiana প্রজাতি: Firmiana colorata বিবরণ: নাইচিচা উদাল মাঝারি আকৃতির ডালপালায় বিস্তৃত পাতাঝরা বৃক্ষ, উচ্চতায় ১৫-২০ মিটার এবং গাছের বেড় ১ মিটার পর্যন্ত হয়। এদের গুঁড়ি কাণ্ড সরল, সোজা, গোলাকার এবংRead More


ফাইশ্যা উদাল বাংলাদেশের রক্ষিত মহাবিপন্ন উদ্ভিদ

বৈজ্ঞানিক নাম: Sterculia villosa Roxb. সমনাম: Sterculia ornata, Sterculia armata; Sterculia lantsangensis Hu বাংলা ও স্থানীয় নাম: ফাইশ্যা উদাল, ছহালা (ঢাকা), উদাল (সিলেট), ফিউ বান (মগ/মারমা), উমাক (গারো), নামসিং (ম্রো) ইংরেজি নাম: Elephant rope tree, Hairy Sterculia. জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae – Plants  শ্রেণী: Eudicots উপশ্রেণি: Rosids বর্গ:  Malvales পরিবার: Malvaceae উপপরিবার: Sterculiaceae গণ: Sterculia প্রজাতি: Sterculia villosa বিবরণ: ফাইশ্যা উদাল ছোট থেকে মাঝারি আকৃতির পাতাঝরা বৃক্ষ, উচ্চতায় ১০-১৫ মিটার পর্যন্ত হয়। এদের গুঁড়ি কান্ড সরল, সোজা, গোলাকার এবং ডালপালাগুলো চক্রাকারে বিস্তৃত। কান্ড ও ডালপালাতে ঝরে পড়া পাতার হৃদপিন্ডার চিহ্ন দেখা যায়। বাকল ধূসরRead More


টালি বাংলাদেশের রক্ষিত মহাবিপন্ন বৃক্ষ

বিবরণ: টালি মাঝারি থেকে বড় আকারের অনুভূমিকভাবে বিস্তৃত ডালপালা বিশিষ্ট চিরসবুজ বৃক্ষ, উচ্চতায় প্রায় ২০ মিটার পর্যন্ত হয়। এদের  গুঁড়ি বা কাণ্ড সরল, সোজা এবং গোলাকার। বাকল মসৃণ, গাঢ় বাদামি বর্ণের এবং বাকলে রয়েছে দুধ সাদা কষ। টালির পাতা আয়তাকার, লম্বায় ১৫-৩০ সেন্টিমিটার এবং পাতাগুলো ডালপালার মাথায় গুচ্ছবদ্ধভাবে চক্রাকারে সজ্জিত। কচি পাতাগুলো বাদামি বর্ণের মখমলের মতো মোলায়েম লোমশে আবৃত। পাতার কিনারা মসৃণ এবং আগা সূচালো। টালি বৃক্ষে মার্চ-এপ্রিল মাসে পাতার কক্ষে সাদা বর্ণের ঘ্রাণযুক্ত ফুল ফোটে। এদের ফল বেরি জাতীয়, ডিম্বাকার, লম্বায় প্রায় ৪.০ সেন্টিমিটার,বাদামি বর্ণের মখমলের মতো মোলায়েম লোমশযুক্ত।Read More