You cannot copy content of this page
আপনি যা পড়ছেন
মূলপাতা > Posts tagged "ধর্ম"

একেশ্বরবাদের হচ্ছে সর্বশক্তিমান, সর্ব-বিষয়ে হস্তক্ষেপকারী স্রষ্টা একমাত্র ঈশ্বরের অস্তিত্বের প্রতি বিশ্বাস

এপোলোর মন্দিরে একেশ্বরবাদ ও বহুঈশ্বরবাদের অবস্থান

একেশ্বরবাদ (ইংরেজি: Monotheism) হচ্ছে এক দেবতা বা শুধু একজন ঈশ্বরের প্রতি বিশ্বাস। একেশ্বরবাদের সংক্ষিপ্ত সংজ্ঞা হলো একমাত্র ঈশ্বরের অস্তিত্বের প্রতি বিশ্বাস যেই ঈশ্বর এই বিশ্ব সৃষ্টি করেছিল, এবং সেই ঈশ্বর সর্বশক্তিমান ও পৃথিবীর সর্ব-বিষয়ে হস্তক্ষেপকারী। ইংরেজী শব্দটি হেনরি মোর (১৬১৪-১৬৮৭) প্রথম ব্যবহার করেছিলেন। একেশ্বরবাদ এবং বহুঈশ্বরবাদ প্রায়শই বরং সহজ শর্তে

বহুঈশ্বরবাদ হচ্ছে গোত্রপন্থীদের নিজস্ব ধর্ম ও আচারানুসারে পালিত দেবদেবীদের উপাসনা

এপোলোর মন্দিরে একেশ্বরবাদ ও বহুঈশ্বরবাদের অবস্থান

বহুঈশ্বরবাদ (ইংরেজি: Polytheism) হলো একাধিক দেবদেবীর উপাসনা বা বিশ্বাস, যা সাধারণত তাদের নিজস্ব ধর্ম এবং আচারের সাথে বহু দেবদেবীদের এক মণ্ডপে একত্রিত করে। এক কথায় বহু ঈশ্বরে বিশ্বাসকে বহু ঈশ্বরবাদ বলা হয়। আদি গোত্রভিত্তিক সমাজে অলৌকিক শক্তির আধার হিসেবে মানুষ প্রাকৃতিক জগতের বিভিন্ন সজীব বা আজীব বস্তু কিংবা বস্তুর প্রতীককে

পোপতন্ত্র কাকে বলে?

ক্যাথলিক গির্জার নেতৃত্ব ও কর্মপদ্ধতিকে পোপতন্ত্র (ইংরেজি: Papacy) বলা হয়। এটি মূলত পোপের দরবার। পোপকে রোমের বিশপ বলা হয়। এ পদবির উৎপত্তি ঘটেছে গ্রীক পাপাস এবং ল্যাটিন পাপা থেকে। এই পাপার উৎপত্তি ফাদার বা পিতা থেকে। আরো পড়ুন

সর্বেশ্বরবাদ কাকে বলে?

সর্বেশ্বরবাদ (ইংরেজি: Pantheism) হচ্ছে একটি দার্শনিক অভিমত। এই মত অনুযায়ী ঈশ্বর বলতে বিশ্বজগতের বাইরের কোনো শক্তি বুঝায় না। ঈশ্বর নৈর্ব্যক্তিক বটে। কিন্তু ঈশ্বর বিশ্বের বাইরের নয়। বিশ্ব বা প্রকৃতিজগৎই ঈশ্বর। সবকিছুতেই ঈশ্বর। সবকিছুই ঈশ্বর। কাজেই সর্বেশ্বরবাদের ঈশ্বর অতিপ্রাকৃতিক কোনো সত্তা নয়। প্রকৃতিই ঈশ্বর। অবশ্য সর্বেশ্বরবাদেরও বিকাশ ঘটেছে। আরো পড়ুন

কালাম হচ্ছে ইসলামী মতবাদের অধ্যয়ন

কালাম বা ইলম আল কালামকে (ইংরেজি: Ilm al-Kalām) অনেক সময় "ইসলামি জ্ঞানগত ধর্মশাস্ত্র", যা প্রধানত ইসলামী মতবাদের অধ্যয়নকে বোঝানো হয়। ‘কালাম বা খোদার বাণী’ থেকে ‘মোতাকাল্লিমিন’ শব্দটি এসেছে, অর্থাৎ মোতাকাল্লিমিন হচ্ছে তাঁরা যারা খোদার কালাম বা বাণীকে ভিত্তি ধরে সব কিছুকে ব্যাখ্যা করার চেষ্টা করেছেন। মুসলিম দর্শনে কালামবাদীগণ

জাদু বলতে প্রাচীনকালের কতকগুলি আচার অনুষ্ঠানকে বুঝায়

জাদু বা ইন্দ্রজাল বা মায়াবিদ্যা (ইংরেজি: Magic) বলতে প্রাচীনকালের কতকগুলি আচার অনুষ্ঠানকে বুঝায়। আদিম মানুষ বিশ্বাস করতো, এ সকল আচার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মানুষ, পশু, প্রেত ইত্যাদি শক্তিকে ইচ্ছানুযায়ী বশ করা যায়। জাদুর মূলে মানুষের মনে এই ধারণা কাজ করত যে, প্রাকৃতিক জগতের সঙ্গে মানুষ একটা অলৌকিক বন্ধনে আবদ্ধ। আদিম মানুষের বিভিন্ন প্রয়োজন,

ইহুদি ধর্ম বা ইহুদিবাদ প্রসঙ্গে

ইহুদি ধর্ম বা ইহুদিবাদ (ইংরেজি: Judaism বা Jewish religion) ইহুদি মানুষের জাতিগত ধর্ম। এটি একটি প্রাচীন, একেশ্বরবাদী, আব্রাহামিক ধর্ম। এই ধর্মের ভিত্তিগত পাঠ হচ্ছে তাওরাত বা তোরাহ গ্রন্থ। প্রাচীন ইহুদী গোত্রসমূহের বহু ঈশ্বরে বিশ্বাস থেকে খ্রিষ্টপূর্ব সপ্তদশ শতাব্দীতে একেশ্বরবাদী ইহুদী ধর্মের উদ্ভব ঘটে। ইহুদীবাদের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এক ঈশ্বরে বিশ্বাস, জেহোভাকে ঈশ্বর বলে মনে

জাতক বা জাতক গল্প প্রসঙ্গে

জাতক বা জাতক গল্পসমূহ (ইংরেজি: Jataka বা Jataka Tales) হচ্ছে গৌতম বুদ্ধের পূর্বজন্মসমূহের কাহিনী ভান্ডার। ‘জাতক’ অর্থ জন্মগ্রহণকারী। এ সমস্ত কাহিনী পালি সাহিত্যের সূত্ত পিটকের অঙ্গীভূত। বৌদ্ধধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাস, বুদ্ধদেব ৫৫০টি পূর্বজন্মের পরিণামে তাঁর সর্বশেষ জীবন লাভ করেন। এই সমস্ত পূর্বজন্মে তিনি কিভাবে জীবন যাপন করেছেন তার কাহিনী নিয়েই জাতক গ্রন্থ। জীবনে ব্যক্তির

জৈন মতবাদ প্রসঙ্গে

জৈন (ইংরেজি: Jainism) মতবাদের দুটি দিক। একটি ধর্মীয়, অপরটি তত্ত্বগত। ধর্ম হিসাবে জৈন ধর্মের উদ্ভব ও প্রসার ঘটে বৌদ্ধধর্মের উদ্ভবের সমসাময়িক কালে। বৌদ্ধ ধর্মের ন্যায় জৈন ধর্মেও প্রচলিত ব্রাহ্মণ্য ধর্মের বিরুদ্ধে বিদ্রোহের প্রকাশ ঘটে। মহাবীরকে জৈনধর্মের প্রতিষ্ঠাতা বলে মনে করা হয়। মহাবীর বা জীন অর্থাৎ বিজয়ী, — জৈন ধর্মের

ইসলাম ধর্ম প্রসঙ্গে

বিশ্বধর্মসমূহের অন্যতম হচ্ছে ইসলাম বা ইসলামবাদ (ইংরেজি: Islam বা Islamism)। অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ ধর্মের মধ্যে খ্রিষ্টান, বৌদ্ধ ও হিন্দু ধর্মের নাম উল্লেখযোগ্য। ইসলামের অনুসরণ দেখা যায় প্রধানত মধ্যপ্রাচ্য, উত্তর আফ্রিকা এবং এশিয়া ভূখন্ডসমূহে। ইসলামের উদ্ভবকাল ৭ম শতাব্দী। আরব দেশের বিখ্যাত কোরাইশ বংশের আব্দুল্লাহর পুত্র হযরত মুহম্মদ কে (৫৭০-৬৩২ খ্রিঃ) ইসলামের অনুসারীগণ

Top