You cannot copy content of this page
আপনি যা পড়ছেন
মূলপাতা > Posts tagged "বাংলাদেশের সাপ"

নকশি ঢোড়া দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার সাপ

নকশি ঢোড়া সাপ বা ঢোড়া সাপ বা গুড়ি সাপ বা ধোরা সাপ (বৈজ্ঞানিক নাম: Xenochrophis piscator ইংরেজি: checkered keelback বা Asiatic water snake) কলুব্রিডি পরিবারের জেনোক্রোফিস গণের সাপের একটি প্রজাতি। ঢোড়া সাপের প্রজাতিগুলোর ভেতরে এটি একটি। বাংলাদেশের সাপের তালিকাজেনোক্রোফিস গণে যে দুইটি প্রজাতি পাওয়া যায় এটি তার একটি। আরো পড়ুন

কালো পেট ঢোড়া সাপ দক্ষিণ এশিয়ার সংকটাপন্ন সাপ

কালো পেট ঢোড়া সাপ বা ধোরা সাপ (বৈজ্ঞানিক নাম: Xenochrophis cerasogaster ইংরেজি: Orange-bellied Oriental Slender Snake) কলুব্রিডি পরিবারের জেনোক্রোফিস গণের সাপের একটি প্রজাতি। ঢোড়া সাপের প্রজাতিগুলোর ভেতরে এটি একটি। বাংলাদেশের সাপের তালিকাজেনোক্রোফিস গণে যে দুইটি প্রজাতি পাওয়া যায় এটি তার একটি। আরো পড়ুন

কমলাপেট সরু সাপ দক্ষিণ এশিয়া এবং বাংলাদেশের তথ্য-অপ্রতুল সাপ

কমলা পেট সরু সাপ (বৈজ্ঞানিক নাম: Trachischium tenuiceps ইংরেজি নাম: Orange-bellied Oriental Slender Snake) কলুব্রিডি পরিবারের ট্রাচিসচিয়াম গণের সাপের একটি প্রজাতি। কীট খাওয়া সাপের প্রজাতিগুলোর ভেতরে এটি একটি। বাংলাদেশের সাপের তালিকায় ট্রাচিসচিয়াম গণে যে তিনটি প্রজাতি পাওয়া যায় এটি তার একটি। আরো পড়ুন

আসামী সরু সাপ দক্ষিণ এশিয়া এবং বাংলাদেশের তথ্য-অপ্রতুল সাপ

আসামী সরু সাপ (বৈজ্ঞানিক নাম: Trachischium monticola ইংরেজি নাম: Assam Oriental Slender Snake) কলুব্রিডি পরিবারের ট্রাচিসচিয়াম গণের সাপের একটি প্রজাতি। কীট খাওয়া সাপের প্রজাতিগুলোর ভেতরে এটি একটি। বাংলাদেশের সাপের তালিকায় ট্রাচিসচিয়াম গণে যে তিনটি প্রজাতি পাওয়া যায় এটি তার একটি। আরো পড়ুন

গুন্থারের সরু সাপ দক্ষিণ এশিয়ার বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের তথ্য-অপ্রতুল সাপ

গুন্থারের সরু সাপ (বৈজ্ঞানিক নাম: Trachischium guentheri ইংরেজি নাম: Gunther’s Oriental Slender Snake) কলুব্রিডি পরিবারের ট্রাচিসচিয়াম গণের সাপের একটি প্রজাতি। কীট খাওয়া সাপের প্রজাতিগুলোর ভেতরে এটি একটি। । বাংলাদেশের সাপের তালিকায় ট্রাচিসচিয়াম গণে যে তিনটি প্রজাতি পাওয়া যায় এটি তার একটি। আরো পড়ুন

ডুমেরিলের কালোমাথা সাপ বাংলাদেশে অপ্রতুল তথ্যশ্রেণির সাপ

ডুমেরিলের কালোমাথা সাপ কলুব্রিডি পরিবারের সিবিনোফিস গণের একটি সাপের প্রজাতি। বাংলাদেশের সাপের তালিকায় এই গণে বাংলাদেশে রয়েছে ২টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে রয়েছে এই ৯টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত এই গণের দুটি প্রজাতি হচ্ছে ক. ক্যান্টরের কালোমাথা সাপ এবং খ. ডুমেরিলের কালোমাথা সাপ। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটি হচ্ছে ডুমেরিলের কালোমাথা সাপআরো পড়ুন

ক্যান্টরের কালোমাথা সাপ বাংলাদেশে অপ্রতুল তথ্যশ্রেণির সাপ

ক্যান্টরের কালোমাথা সাপ কলুব্রিডি পরিবারের সিবিনোফিস গণের একটি সাপের প্রজাতি। বাংলাদেশের সাপের তালিকায় এই গণে বাংলাদেশে রয়েছে ২টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে রয়েছে এই ৯টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত এই গণের দুটি প্রজাতি হচ্ছে ক. ক্যান্টরের কালোমাথা সাপ এবং খ. ডুমেরিলের কালোমাথা সাপ। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটি হচ্ছে ক্যান্টরের কালোমাথা সাপ। আরো পড়ুন

পপের লাল ফিতে সবুজ বোরা বাংলাদেশের চিরসবুজ বনাঞ্চলের সাপ

ভুমিকা: পপের লাল ফিতে সবুজ বোরা Viperidae পরিবারের Trimeresurus গণের সবুজ বর্ণের আঁইশযুক্ত সরীসৃপ প্রাণী। বর্ণনা: লাল ফিতে সবুজ বোরা এর দৈর্ঘ্য প্রায় ৮০ সেমি তবে দৈর্ঘ্য ১ মিটার বা ১ মিটারের বেশি হতে পারে। দেহের পৃষ্ঠীয়ভাগ সবুজ, আঁইশের মধ্যবর্তী ত্বক নীলাভ। অঙ্কীয়ভাগ ঈষৎ থেকে সাদাটে, দুই উজ্জ্বল রঙযুক্ত দ্বারা পৃথক, কমলা বা বাদামী এবং অঙ্কীয়পার্শ্বীয় দাগ-এর উপরের অংশ সাদা যা সাপের দেহের বহি:আঁইশ সম্পূর্ণ অংশ এবং ২য় সারি আঁইশের অংশ বিশেষ পর্যন্ত বিস্তৃত থাকে। আরো পড়ুন

দাগিলেজা সবুজ বোরা বাংলাদেশের বিপন্ন প্রজাতির সাপ

ভুমিকা: দাগিলেজা সবুজ বোরা Viperidae পরিবারের Trimeresurus গণের সবুজ বর্ণের আঁইশযুক্ত সরীসৃপ প্রাণী। বর্ণনা: পুরুষ সবুজ বোরা সাপের দৈর্ঘ্য ৫৭.৫ সেমি, লেজের দৈর্ঘ্য ১২ সেমি; স্ত্রী সাপের দৈর্ঘ্য প্রায় ১০০ সেমি; লেজের দৈর্ঘ্য ১৬ সেমি (Smith, 1943; Leviton, et al., 2003)। সদ্য পরিস্ফুটিত সাপের দৈর্ঘ্য ২৩-২৬ সেমি (Whitaker and Captain, 2004)। আরো পড়ুন

লালগলা সাপ বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সংকটাপন্ন সাপ

লালগলা সাপ বা ওরোল সাপ কলুব্রিডি পরিবারের রাবডোফিস গণের একটি সাপের প্রজাতি। বাংলাদেশের সাপের তালিকায় এই গণে বাংলাদেশে রয়েছে ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে রয়েছে এই ২২টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত এবং আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটি হচ্ছে লালগলা সাপ। আরো পড়ুন

Top