You are here
Home > Posts tagged "নারী"

আদর্শবিহীন রাজনীতি দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেয় — সেলিনা হোসেন

সেলিনা হোসেন কথাসাহিত্যিক। তাঁর জন্ম ১৪ জুন, ১৯৪৭ সালে রাজশাহী শহরে। তিনি মূলত গল্প-উপন্যাস লেখক। বাংলাদেশের প্রতিক্রিয়াশীল ধারার রাজনৈতিক দল আওয়ামি লিগের সমর্থক হিসেবে তিনি ২০১০’র বছরগুলোয় পরিচিত হয়ে উঠেছেন। ষাটের দশকের মধ্যভাগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময়ে লেখালেখির সূচনা। তার রচিত উপন্যাসের সংখ্যা ২০টির অধিক। গল্পগ্রন্থ এবং শিশুসাহিত্যও লিখেছেন। শিশুদের

ক্লারা জেটকিন এক মহান জার্মান সাম্যবাদী বিপ্লবী

ক্লারা জেৎকিন একজন কমিউনিস্ট নেত্রী ছিলেন। তার পুরো নাম ক্লারা জেৎকিন এইছ্নার। ১৮৫৭ সালের ১৫ জুলাই জার্মানির উইডারউ-র স্যাক্সোনী শহরে জন্মগ্রহণ করেন এবং লিপজিগ শহরের ”স্টেইবার টিচারস্ কলেজ ফর ওম্যান” এ অধ্যয়ন করেন। উক্ত কলেজে অধ্যয়নকালে তিনি তরুণ বয়স থেকেই একজন সোশ্যালিস্ট হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেন। জার্মান সোশ্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রতিষ্ঠাতা

নারীদের প্রশ্নে লেনিন — ক্লারা জেটকিন

১. কমরেড লেনিন প্রায়ই আমার সঙ্গে নারীদের বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন। অবশ্য কমিউনিজমের কথা বলতে গেলে নারীদের সামাজিক সমান অধিকার যে একটা প্রয়োজনীয় নীতি তা বলাই বাহুল্য। ১৯২০ সালের শরৎকালে ক্রেমলিনে লেনিনে পড়ার ঘরে বসেই সর্বপ্রথম আমাদের এই বিষয়ে দীর্ঘ আলোচনা হয়। লেনিন শুরু করলেন, - “সুস্পষ্ট মতবাদের ভিত্তিতে আমাদের একটি

পুরুষ নারীর শত্রু নয় — সাক্ষাতকারে হাসনা বেগম

আমাদের শত্রু হলো সমাজব্যবস্থা, আমাদের শত্রু হলো, রাষ্ট্রব্যবস্থা; এই সমাজ ও রাষ্ট্রব্যবস্থা পরিবর্তনের লড়াই নারী পুরুষ নির্বিশেষে করতে হবে। --- হাসনা বেগম হাসনা বেগম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক। তিনি ২৪ ফেব্রুয়ারি, ১৯৩৫ সালে জন্মগ্রহণ করেন। আজীবন প্রগতিশীল আন্দোলনের সংগে জড়িত তিনি লিখেছেন দর্শন ও নারী বিষয়ক অনেকগুলো গ্রন্থ। প্রকাশিত

লু স্যুনের গল্পের কয়েকটি চরিত্র

লু স্যুন (২৫ সেপ্টেম্বর ১৮৮১ - ১৯ অক্টোবর ১৯৩৬) ছিলেন  একজন ছোটগল্প লেখক, প্রাবন্ধিক, কবি, অনুবাদক, সামাজিক সমালোচক, একজন শিক্ষক এবং একজন বিপ্লবী। চীনা জনগণের বিপ্লবের সঙ্গে তাঁর সাহিত্য ও মতাদর্শ নিবিড়ভাবে জড়িয়ে আছে। লু স্যুনের সাহিত্য চীনের রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি এবং সমাজতান্ত্রিক চিন্তার প্রতিফলন। লু স্যুনের গল্পে ১৯১১ সালের বিপ্লবের

কামিনী রায়ের কবিতা: ব্যর্থতা ও হতাশার ভেতর জীবনের জয়গান

কামিনী রায় (অক্টোবর ১২, ১৮৬৪ - সেপ্টেম্বর ২৭, ১৯৩৩) কবিতা লিখেছিলেন বাঙালির রাজনীতি সূচনা হওয়ার প্রথম বছরগুলোতে, যখন নারীরা ঘর হতে বেরই হতে পারেনি। বাঙালির বা ভারতের প্রথম অনার্স পাস নারী গ্রাজুয়েট তিনি। কামিনী রায় প্রচলিত শিক্ষা গ্রহণ করেই নিজেকে প্রচলিত পথে বিলীন করেননি; একটি অসাধ্য সাধনে তৎপর হয়েছিলেন, লিখতে

নারী পুরুষ ও শ্রমবিভাগ — জে. ভি. স্তালিন

ইতিহাসের শিক্ষা থেকেই আমরা জানতে পারি যে সমাজে যে শ্রেণি বা গোষ্ঠী উৎপাদনের ক্ষেত্রে মুখ্য ভূমিকা গ্রহণ করে, এবং উৎপাদনের প্রধান কাজগুলো করে থাকে, কালে কালে তাদেরই যে উৎপাদন ব্যবস্থার উপর আধিপত্য স্থাপিত হবে সে কথা অবশ্যম্ভাবী। মাতৃপ্রধান সমাজে এমন একটা সময় ছিলো যখন উৎপাদন ব্যবস্থার উপর নারীদেরই প্রাধান্য মেনে

সোভিয়েত প্রজাতন্ত্রে নারী শ্রমিক আন্দোলনের কর্তব্য — ভি আই লেনিন

কমরেডগণ, নারী শ্রমিক এই সম্মেলনকে অভিনন্দিত করতে পেরে আমি অতি আনন্দিত। প্রতিটি মেহনতি নারী এবং মেহনতি জনগণের প্রতিটি সচেতন সদস্য যে সব বিষয় ও প্রশ্নে স্বভাবতই আগ্রহী, তা নিয়ে আমি কিন্তু আলোচনা করব না। সে প্রশ্ন হলো সবচেয়ে জরুরি— এ প্রশ্ন হলো রুটি এবং আমাদের সামরিক পরিস্থিতির প্রশ্ন। কিন্তু আপনাদের

Top