You cannot copy content of this page
আপনি যা পড়ছেন
মূলপাতা > Posts tagged "কাঠঠোকরা"

বড় মেটেকুড়ালি বিশ্বে বিপদগ্রস্ত এবং বাংলাদেশের বিরল আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Mulleripicus গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৩টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত ও আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে বড় মেটেকুড়ালি। বর্ণনা: বড় মেটেকুড়ালি বিশালদেহী কাঠঠোকরা (দৈর্ঘ্য ৫১ সেমি, ডানা ২৩.৫ সেমি, ঠোঁট ৬.৫ সেমি, পা ৪ সেমি, লেজ ১৫ সেমি)। প্রাপ্তবয়স্ক পাখির ফ্যাকাসে-হলুদ থুতনি ও গলা

কলজেবুটি কাঠকুড়ালি বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের অনিয়মিত পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Hemicircus গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ২টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত ও আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে কলজেবুটি কাঠকুড়ালি। বর্ণনা: কলজেবুটি কাঠকুড়ালি বড় কালো টুপি পড়া কাঠঠোকরা (দৈর্ঘ্য ১৬সেমি, ওজন ৩৬ গ্রাম, ডানা ৯.৭ সেমি, ঠোঁট ২.৩ সেমি, পা ২ সেমি, লেজ ৩.২সেমি)।প্রাপ্তবয়স্ক পাখির পিঠ

তামাটে কাঠকুড়ালি বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের বিরল আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Blythipicus গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ২টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত ও আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে তামাটে কাঠকুড়ালি। বর্ণনা: তামাটে কাঠকুড়ালি লাল ডানায় বাদামি ডোরা দেওয়া পাহাড়ি কাঠঠোকরা (দৈর্ঘ্য ২৭ সেমি, ওজন ১৭০ গ্রাম, ডানা ১৪৫ সেমি, ঠোঁট ৫ সেমি, পা ৩ সেমি, লেজ

ধলামাথা কাঠকুড়ালি বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের বিরল আবাসিক পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Gecinulus গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত ও আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে ধলামাথা কাঠকুড়ালি। বর্ণনা: ধলামাথা কাঠকুড়ালি তিন আঙুলের বাদামি কাঠঠোকরা (দৈর্ঘ্য ২৫ সেমি, ডানা ১৩ সেমি, ঠোঁট ২.৬ সেমি, লেজ ৮.৩ সেমি)। প্রাপ্তবয়স্ক পাখির পিঠ অনুজ্জ্বল লাল-বাদামি ও দেহতল

বড় কাঠঠোকরা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Chrysocolaptes গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ২টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত ও আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে বড় কাঠঠোকরা। বর্ণনা: বড় কাঠঠোকরা তস্করের মত চোখে কালো পট্টি বাঁধা পাখি (দৈর্ঘ্য ৩৩ সেমি, ডানা ১৭ সেমি, ঠোঁট ৪.৮ সেমি, পা ৩.২ সেমি, লেজ ৯.২ সেমি)। প্রাপ্তবয়স্ক

হিমালয়ী কাঠঠোকরা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের বিরল আবাসিক পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Dinopium গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৩টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৪টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি তিনটি হচ্ছে, ১. বাংলা কাঠঠোকরা, ২. পাতি কাঠঠোকরা ও ৩. হিমালয়ী কাঠঠোকরা। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে হিমালয়ী কাঠঠোকরা। বর্ণনা: হিমালয়ী কাঠঠোকরা তিন আঙুলে গাছ আঁকড়ে চলা কাঠঠোকরা (দৈর্ঘ্য ৩১ সেমি, ওৎন ১১০

পাতি কাঠঠোকরা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের দুর্লভ আবাসিক পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Dinopium গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৩টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৪টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি তিনটি হচ্ছে, ১. বাংলা কাঠঠোকরা, ২. পাতি কাঠঠোকরা ও ৩. হিমালয়ী কাঠঠোকরা। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে পাতি কাঠঠোকরা। বর্ণনা: পাতি কাঠঠোকরা লম্বা সাদা ভ্রু আঁকা সোনালী ডানার পাখি (দৈর্ঘ্য ৩০ সেমি, ডানা

বাংলা কাঠঠোকরা বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি

ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Dinopium গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৩টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৪টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি তিনটি হচ্ছে, ১. বাংলা কাঠঠোকরা, ২. পাতি কাঠঠোকরা ও ৩. হিমালয়ী কাঠঠোকরা। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে বাংলা কাঠঠোকরা। বর্ণনা: বাংলা কাঠঠোকরা বাংলাদেশের অতিচেনা কাঠঠোকরা (দৈর্ঘ্য ২৯ সেমি, ওজন ১০০ গ্রাম, ডানা ১৪.২

দাগিগলা কাঠকুড়ালি বিশ্বে বিপদমুক্ত বাংলাদেশের দুর্লভ আবাসিক পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Picus গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৫টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১৫টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি চারটি হচ্ছে, ১. মেটেমাথা কাঠকুড়ালি, ২. ছোট হলদেকুড়ালি, ৩. বড় হলদেকুড়ালি  ৪. দাগিবুক কাঠকুড়ালি ও ৫. দাগিগলা কাঠকুড়ালি। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে দাগিগলা কাঠকুড়ালি। বর্ণনা: দাগিগলা কাঠকুড়ালি সবুজ রঙের মাঝারি আকারের কাঠঠোকরা

দাগিবুক কাঠকুড়ালি বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশের বিরল আবাসিক পাখি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকায় Picus গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৫টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১৫টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি চারটি হচ্ছে, ১. মেটেমাথা কাঠকুড়ালি, ২. ছোট হলদেকুড়ালি, ৩. বড় হলদেকুড়ালি  ৪. দাগিবুক কাঠকুড়ালি ও ৫. দাগিগলা কাঠকুড়ালি। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে দাগিবুক কাঠকুড়ালি। বর্ণনা: দাগিবুক কাঠকুড়ালি সরু সাদা ভ্রু-রেখা আঁকা মাঝারি

Top