ও আলোর পথযাত্রী

ও আলাের পথযাত্রী, এ যে রাত্রি, এখানে থেম না

এ বালুরচরে আশার তরণী তােমার যেন বেঁধাে না,

আমি শ্রান্ত যে, তবু হাল ধরাে,

আমি রিক্ত যে, সেই সান্ত্বনা

তব ছিন্ন পালে জয় পতাকা তুলে  তূর্য তােরণ দাও হানা

ও আলাের পথযাত্রী, এ যে রাত্রি, এখানে থেম না

আহা বুক ভেঙে ভেঙে, পথে থেমে, শােণিত কণা।

কত যুগ ধরে ধরে, করেছে তারা সূর্য রচনা।।

আর কত দূর, ওই মােহনা,

এ যে কুয়াশা, এ যে ছলনা

এই বঞ্চনাকে পার হলেই পাবে, জনসমুদ্রের ঠিকানা।।

আহ্বান, শােন আহ্বান

আসে মাঠ ঘাট বন পেরিয়ে

দুস্তর, বাঁধা প্রস্তর, ঠেলে বন্যার মত পেরিয়ে।

যুগ সঞ্চিত সুপ্তি দিয়েছে সাড়া, হিমগিরি শুনলাে কি সূর্যের ঈশারা?

যাত্রা শুরু উচ্ছল রোলে দুর্বার বেগে তটিনী

উত্তাল তালে উদ্দাম নাচে মুক্ত শত নটিনী।

এই শুধু সুপ্ত যে নবপ্রাণে জেগেছে  রণ সাজে সেজেছে

অধিকার অর্জনে আহ্বান, শােন আহ্বান।।

আরো পড়ুন:  হেমাঙ্গ বিশ্বাস ছিলেন উপমহাদেশের বাংলা গণসংগীতের জননন্দিত মহাযোদ্ধা

Leave a Comment

error: Content is protected !!