সপ্তকোটি জনরঙ্গভূমি

সপ্তকোটি জনরঙ্গভূমি

বঙ্গদেশ বীর-প্রসবিনী

হতনাম শৃঙ্খলিত দলিতা, শতাব্দীর সঞ্চিত ভীরু জড়তা,

দীনতা ত্যজি নবযৌবন ভরে জাগো জাগো রে।

চাঁদ কেদার রায় সন্তান     

ইসলাম তিলক ঈশা খান

প্রতাপাদিত্য সেন বল্লাল

রাণী ভবানী কন্যা দুলাল

বারভূইয়া বীর গাথা স্মরিয়া জাগো জাগো রে।

কোথা সুখ সমৃদ্ধি আজ

স্বাধীন রাজ নবাব সিরাজ

পলাশীর আম্রকুঞ্জ হ’ল কাল

সফল হ’ল দেশবৈরীকৃত জাল

রাখিল বীর মীর মদন-মোহনলাল সম্মান।

শুরু হ’ল দেশ জোড়া

রাজ্য ভাঙাগড় – ঘোর অন্ধকার

পশে সস্তা পণ্য সাথে ।

গোরা সৈন্য সাথে – বণিকের কারবার (পশিল )

গেল মসলিনের ব্যাওগার, সেথা আসে ‘ল্যাঙ্কাশায়ার’

নীলকর সাহেবের কুঠি কৃষকের হ’ল কারাগার।

গোলামির সর্বগ্রাসী জঠরে।

বণিকী অত্যাচারে লাজে ভয়ে ভরে

দেশের দশে মরে ঘোর হতাশায়

তথাপি আশার আলো ঝালকায়

বঙ্গবাসী মোহনিদ্রা ত্যজি জাগে পুনরায় ।

জরাজীর্ণ সমাজে ব্রাহ্মরূপ দিল রাজা রামমোহন,

দীনবন্ধু রচিল নীলকুঠি স্মরি নাটক নীল-দর্পণ।

হাজী মহম্মদ মহসীন, এলো বিদ্যাসাগর নবীন

বঙ্কিম বঙ্গজনে বন্দে মাতরম্ করিল অর্পণ।

আরো পড়ুন:  হেমাঙ্গ বিশ্বাস ছিলেন উপমহাদেশের বাংলা গণসংগীতের জননন্দিত মহাযোদ্ধা

Leave a Comment

error: Content is protected !!