সরুমুখো বামন ব্যাঙানু হচ্ছে বাংলাদেশের ক্ষুদ্রতম এবং দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার ব্যাঙ

ব্যাঙের প্রজাতি

সরুমুখো বামন ব্যাঙানু

বাংলা নাম: সরুমুখো বামন ব্যাঙানু, ইংরেজি নাম: Narrow-mouthed froglet, বৈজ্ঞানিক নাম: Micryletta inornata,
জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Animalia, বিভাগ: Chordata, শ্রেণী: Amphibia, বর্গ: Anura, পরিবার: Microhylidae, গণ: Micryletta, Dubois, 1987; প্রজাতি: Micryletta inornata, (Boulenger, 1890)

বিবরণ: বাংলাদেশের ব্যাঙের তালিকায় সরুমুখো বামন ব্যাঙানু বাংলাদেশের সবচেয়ে ক্ষুদ্র ব্যাঙ। বাউলেন্জার ১৮৯০ সালে এর আকার মাত্র ২০ মিলিমিটার বা দুই সেন্টিমিটার বলে উল্লেখ করেন। তবে ইন্টারনেটে পাওয়া তথ্যে বলা হয়েছে, এর দৈর্ঘ্য ২৩ থেকে ৩৩ মিলিমিটার বা এক ইঞ্চির কমবেশি।[১]

বিস্তৃতি: ভারতীয় বিজ্ঞানী পিল্লেই ১৯৭৭ সালে আন্দামান দ্বীপপুঞ্জ থেকে সংগৃহীত একটি নমুনাকে সনাক্ত করেন যা পরে এ প্রজাতির বলে গবেষকেরা জানাচ্ছেন।[১] এই প্রজাতি ভারতের আন্দামান দ্বীপপুঞ্জ, চীনের দক্ষিণ ইয়ুনানের মেংলা, থাইল্যান্ডে, লাওস, কম্বোডিয়া, ভিয়েতনাম এবং মালয়েশিয়ার দ্বীপ যেমন ফুকেট (ফ্রেথ 1977)-এ পাওয়া যায়। এটা মায়ানমার থেকে রেকর্ড করা হয় নি কিন্তু এটি সম্ভবত মায়ানমারের পূর্ব ও দক্ষিণ অংশে দেখা যায়। এটা সিঙ্গাপুর থেকে পাওয়া যায়নি। সম্প্রতি এটি লাহাট, দক্ষিণ সুমাত্রা, ইন্দোনেশিয়া (Mumpuni pers. comm.) থেকে পুনরায় দেখা গেছে।[২] জুন-জুলাই ২০১৪-তে লাউয়াছড়ায় পাওয়া একটি ব্যাঙকে বিজ্ঞানী রেজা খান এই প্রজাতির বলে চিহ্নিত করেছেন।[১]

আবাসস্থল: এটা সাধারণত বন প্রান্তে এবং অন্যান্য গতিশীল অবস্থায় পাওয়া যায়, তবে এটি কদাচিৎ কৃষি বা আবাসিক এলাকাসমূহে থাকে। এটি ক্ষুদ্র অস্থায়ী বৃষ্টির পুলের মধ্যে জন্ম নেয় এবং এটি একটি সুবিধাভোগী, দারুণ জন্মদানকারী।[২]

তথ্যসূত্র:

১. রেজা খান, দৈনিক প্রথম আলো, “দেশের ক্ষুদ্রতম ব্যাঙের সন্ধান”,  ০৪ জুলাই ২০১৪, সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান, http://www.prothomalo.com/we-are/article/258016

২. van Dijk, P.P., Jarujin Nabhitabhata, Datong, Y., Shunqing, L. & Dutta, S. 2004. Micryletta inornata. 2006 IUCN Red List of Threatened Species. সংগৃহীত ১৭ জুন, ২০১৮.

আরো পড়ুন:  বাংলাদেশে প্রাপ্ত ১৯৯ প্রজাতির উভচর ও সরীসৃপের তালিকা

Leave a Comment

error: Content is protected !!