আয়াপান ভেষজ গুণসম্পূর্ণ বর্ষজীবী বিরুৎ

আয়াপান

বৈজ্ঞানিক নাম: Eupatorium ayapana Vent., Jard. Malm. 3: t. 3 (1804). সমনাম: Ayapana triplinervis, Eupatorium triplinerve M.Vahl. ইংরেজি নাম: Ayapan. স্থানীয় নাম: আয়াপান।
জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Plantae, বিভাগ: Angiosperms. অবিন্যাসিত: Edicots. অবিন্যাসিত: Asterids. বর্গ: Asterales. পরিবার: Asteraceae. গণ: Chromolaena প্রজাতি: Eupatorium ayapana.

ভূমিকা: আয়াপান (বৈজ্ঞানিক নাম: Eupatorium ayapana) ক্রোমলেনা গণের অ্যাাস্টেরেসিয়া পরিবারের একটি বিরুৎ। এই প্রজাতি শোভাবর্ধন না। ভেষজ কাজে এর ব্যবহার বেশি হয়।

আয়াপান-এর বর্ণনা:

আয়াপান বহুবর্ষজীবী ও মসৃণ বিরুৎ। এটি ৬০ সেমি লম্বা বা ততোধিক দৈর্ঘ্যের হয়। পাতা অবৃন্তক, বল্লমাকার। পুষ্পবিন্যাস শিরমঞ্জরী, পুষ্পদন্ডবিশিষ্ট, শিথিল সমভূমঞ্জরী, ব্যাস ৮ মিমি, সমপরিণত, চাকতি-আকৃতি, মঞ্জরী পত্রাবরণ, অর্ধ-গোলাকার। মঞ্জরীপত্র বহু-স্তরে সজ্জিত, সূক্ষ্মাগ্র, রোমশ, পুষ্পধার সমতল, উন্মুক্ত। সকল পুষ্পিকা নলাকার, সমাঙ্গ, উভলিঙ্গ, ৫-খন্ডিত দলফলক বিশিষ্ট। দলমণ্ডল সাদা, উপাঙ্গবিশিষ্ট। পরাগধানীর নিম্নাংশ অখন্ড, স্থূলা। গর্ভদন্ডীয় বাহু সূচ্যগ্র, চ্যাপ্টা। ফল সিপসেলা, ২ x ১ মিমি, কমবেশী কৌণিক, মসৃণ, বৃতিরোম কেশ অতি স্বল্প সংখ্যক, খর্ব, সরু, সাদা।

আবাসস্থল ও চাষাবাদ: বাগান জন্মে। বীজ ও মূলাকার কাণ্ড দ্বারা বংশ বিস্তার হয়। ফুল ও ফল ধারণ ফেব্রুয়ারি থেকে মার্চ।

বিস্তৃতি: আমেরিকার স্থানীয়, কলকাতা ও ভারতের অন্যান্য বাগানে প্রবর্তিত (Hooker, 1881)। বাংলাদেশে এটি বাগানে আবাদ করা হয়।

আয়াপান-এর ব্যবহার:

এটি ডায়রিয়ার ক্ষেত্রে অতিঘর্ম হিসেবে প্রদান করা হয় এবং ফুসফুসের অসুখের জন্য এবং আভ্যন্তরীণ রক্তক্ষরণের জন্য অত্যন্ত উপকারি বলা হয়। পাতা যদি পরিস্রুত হয়, তাতে হালকা সবুজ তেলও পাওয়া যায়, যা বাতজ্বরের ক্ষেত্রে বহিস্থঃভাবে ব্যবহৃত হয়।

অন্যান্য তথ্য:

বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষের  ৬ষ্ঠ খণ্ডে (আগস্ট ২০১০) আয়াপান প্রজাতিটির সম্পর্কে বলা হয়েছে যে, এদের শীঘ্র কোনো সংকটের কারণ দেখা যায় না এবং বাংলাদেশে এটি আশঙ্কামুক্ত হিসেবে বিবেচিত। বাংলাদেশে আয়াপান সংরক্ষণের জন্য কোনো পদক্ষেপ গৃহীত হয়নি। প্রজাতিটি সম্পর্কে প্রস্তাব করা হয়েছে যে এই প্রজাতিটির বর্তমানে সংরক্ষণের প্রয়োজন নেই তবে বাগানে আবাদ বাড়ানো দরকার। 

আরো পড়ুন:  শিম-এ আছে শরীরের বল বৃদ্ধিসহ নানা ভেষজ গুণাগুণ

তথ্যসূত্র ও টীকা:

১. এ বি এম এনায়েত হোসেন (আগস্ট ২০১০) “অ্যানজিওস্পার্মস ডাইকটিলিডনস” আহমেদ, জিয়া উদ্দিন; হাসান, মো আবুল; বেগম, জেড এন তাহমিদা; খন্দকার মনিরুজ্জামান। বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ (১ সংস্করণ)। ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। খন্ড ৬ষ্ঠ, পৃষ্ঠা ৩৩৩-৩৩৪। আইএসবিএন 984-30000-0286-0

বি. দ্র: ব্যবহৃত ছবি উইকিমিডিয়া কমন্স থেকে নেওয়া হয়েছে। আলোকচিত্রীর নাম: Challiyan

Leave a Comment

error: Content is protected !!