চিকনপাতা বেলী একটি শোভাবর্ধনকারী গুল্ম

বৈজ্ঞানিক নাম: Cestrum parqui L’Herit.,

সমনাম: জানা নেই

ইংরেজি নাম: green cestrum or willow-leaved jessamine.

স্থানীয় নাম: চিকন-পাতা বেলী।

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস

জগৎ/রাজ্য: Plantae – Plants

 শ্রেণী: Eudicots

উপশ্রেণি: Asterids

বর্গ:  Solanales

পরিবার: Solanaceae

গণ: Cestrum

প্রজাতি: Cestrum parqui L’Herit.

বর্ণনা: চিকন-পাতা বেলী সোলানাসি পরিবারের কেস্ট্রাম গণের একটি গুল্ম। এরা ২.৫ মিটার পর্যন্ত উঁচু, উইলো সদৃশ পত্রবিশিষ্ট, বিস্তৃত শাখাসহ প্রায় মসৃণ। পত্র ৫.০-৭.৫ x ১.৫-২.০ সেমি, বল্লমাকার হতে উপবৃত্তাকার, ঝিল্লিময়, পত্রবৃন্ত ০.৫-১.০ সেমি লম্বা। পুষ্পবিন্যাস একটি উন্মুক্ত প্যানিকল। পুষ্প অবৃন্তক, গন্ধহীন। বৃতি প্রায় ০.৫ সেমি লম্বা, লোমশ, খন্ডক প্রায় ০.১ সেমি লম্বা, ত্রিকোণাকার। দলমন্ডল ২.০-২.৫ সেমি লম্বা, মসৃণ, ফ্যাকাশে হলুদ, খন্ডক প্রায় ০.৫ সেমি লম্বা, বল্লমাকার। পুংকেশর সামান্য অন্তর্মুখী। গর্ভাশয় মসৃণ, গর্ভদন্ড ২ সেমি লম্বা, গর্ভমুন্ড ডিস্ক-আকৃতির, আড়াআড়িভাবে ০.৫-১.০ সেমি, মসৃণ। ফুল ও ফল ধারণ ঘটে জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর মাসে।

ক্রোমোসোম সংখ্যা: ২n = ১৬ (Fedorov, 1969)।

আবাসস্থল: মাঝে মাঝে বাগানে আবাদ করা হয়।

বিস্তৃতি: চিলিতে স্থানীয়। বাংলাদেশে ইহা ঢাকা জেলা (বলধা গার্ডেন) থেকে রিপোর্ট করা হয়েছে।

অর্থনৈতিক ব্যবহার/গুরুত্ব/ক্ষতিকর দিক: শোভাবর্ধক উদ্ভিদ হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ।

জাতিতাত্বিক ব্যবহার: কোন জাতিতাত্বিক ব্যবহার জানা নেই।

বংশ বিস্তার: কান্ডের শাখা কলম দ্বারা।

প্রজাতিটির সংকটের কারণ: সংখ্যা স্বল্পতা।

সংরক্ষণ ও বর্তমান অবস্থা: কিছুটা দুর্লভ।

গৃহীত পদক্ষেপ: সংরক্ষণের কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি।

প্রস্তাবিত পদক্ষেপ: বাগানে সংখ্যা বৃদ্ধি প্রয়োজন।

তথ্যসূত্র:

১. এম মতিয়ুর রহমান, (আগস্ট ২০১০)। “অ্যানজিওস্পার্মস ডাইকটিলিডনস”  আহমেদ, জিয়া উদ্দিন; হাসান, মো আবুল; বেগম, জেড এন তাহমিদা; খন্দকার মনিরুজ্জামান। বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ। ১০ (১ সংস্করণ)। ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। পৃষ্ঠা ২৯৮-২৯৯। আইএসবিএন 984-30000-0286-0

1 thought on “চিকনপাতা বেলী একটি শোভাবর্ধনকারী গুল্ম”

Leave a Comment

error: Content is protected !!