পানি কর্পূর দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার বর্ষজীবী উদ্ভিদ

পানি কর্পূর,

বৈজ্ঞানিক নাম: Limnophila aromatica

সমনাম: Limnophila aromaticoides Yang & Yen; Limnophila chinensis subsp. aromatica (Lam.) T. Yamaz.

সাধারণ নাম: rice paddy herb

বাংলা নাম: পানি কর্পূর,

অন্যান্য নাম:

পানি কর্পূর গাছের পাতা ও ফুল, আলোকচিত্র: Vinayaraj

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস

জগৎ/রাজ্য: Plantae

বিভাগ: Angiosperms

অবিন্যাসিত: Eudicots

অবিন্যাসিত: Asterids

বর্গ: Lamiales

পরিবার: Plantaginaceae

গণ:  Limnophila

প্রজাতি: Limnophila aromatica (Lam.) Merr.

পরিচিতি: পানি কর্পূর বর্ষজীবী, সুগন্ধি, জলজ বীরুত। এরা মসৃণ এবং লোমযুক্ত। এই উদ্ভিদটির বৈজ্ঞানিক নাম Limnophila aromatica, এটি Scrophulariaceae পরিবারের উদ্ভিদ। এদের কাছ থেকে লেবু এবং জিরার ঘ্রাণ পাওয়া যায়।

বর্ণনা: পানি কর্পূর উদ্ভিদ ৮০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত খাড়া, চ্যাপটা, খাঁজযুক্ত, ফিকে সবুজ, কদাচিত অনুজ্জ্বল লালচে বেগুনি বর্ণের হয়। এদের কাণ্ড মোটা, নরম ও সরল। গাছ ১৫ থেকে ২০ সেন্টিমিটার উঁচু হয়। এদের পাতা কাণ্ডের বিপরীত দিকে জোড়ায় জোড়ায় হয়, কখনো তিনটি দেখা যায়। পাতার কিনারা করাতের মতো দাঁতযুক্ত, অগ্রভাগ সরু ও অবনত। পাতার সংযোগ স্থল থেকে সবুজের আভাযুক্ত সাদা বর্ণের এক একটি ফুল হয়। ফুলে বেগুনি দাগ আছে। পুষ্পদণ্ড ৩০ সেন্টিমিটার লম্বা। বর্ষাকালে ফুল এবং শীতকালে ফল ধরে।

বিস্তৃতি: পানি কর্পূর চট্টগ্রাম, ঢাকা, দিনাজপুর, গাজীপুর, খাগড়াছড়ি এবং পটুয়াখালী জেলায় পাওয়া যায়। আর্দ্র স্থানে, স্যাঁতসেঁতে এলাকায় বিশেষ করে ধানখেতে প্রচুর জন্মে। গাছের নিচের অংশ পানিতে ডুবে থাকে। আদি নিবাস বাংলাদেশ, ভারত ও ইন্দোনেশিয়া বা দক্ষিণপূর্ব এশিয়া। ভিয়েতনাম যুদ্ধের পর ভিয়েতনামী অভিবাসনের কারণে ১৯৭০-এর দশকে এই উদ্ভিদ উত্তর আমেরিকাতে চালু হয়।

ব্যবহার: পাতার রস কফ নিবারক। যখন মায়ের দুধ টক লাগে তখন পুষ্টির জন্য এর পাতার রস খেতে দেওয়া হয়। আমাশয়ের চিকিত্সায় এই গাছ ব্যবহূত হয়। এটি প্রথাগত কম্বোডিয়ান স্যুপ ডিশ এবং দক্ষিণ ভিয়েতনামের খাবারে ব্যবহৃত হয়।

আরো পড়ুন:  মিষ্টি কুমড়া-এর ভেষজ গুণাগুণের বিবরণ

Leave a Comment

error: Content is protected !!