আপনি যা পড়ছেন
মূলপাতা > প্রাণ > উদ্ভিদ > গুল্ম > করবী ভূমধ্যসাগরীয় ও এশীয় অঞ্চলের ঔষধি ও উদ্যানের আলংকারিক উদ্ভিদ

করবী ভূমধ্যসাগরীয় ও এশীয় অঞ্চলের ঔষধি ও উদ্যানের আলংকারিক উদ্ভিদ

করবী

ভূমিকা: কবরী, রক্ত করবী (বৈজ্ঞানিক নামNerium oleander ইংরেজি: Oleander, Roseberry Spurge) এ্যাপোসেনাস পরিবারের,  নেরিয়াম গণের একটি এক প্রকারের ঘন পাতাবিশিষ্ট গুল্ম। এটি ভূমধ্যসাগরীয় ও এশীয় প্রজাতি। চিরসবুজ এই গাছে গোঁড়া থেকে ডাল বের হয়ে ঝোপাল হয়।[১]

বৈজ্ঞানিক নাম: Nerium oleander L., Sp. Pl.: 209 (1753). সমনাম: Nerium indicum Mill. (1786), Nerium odorum Soland (1789), Nerium odoratum Lamk. (1823). ইংরেজি নাম: Oleander, Roseberry Spurge.  স্থানীয় নাম: কবরী, রক্ত করবী। জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae. বিভাগ: Angiosperms. অবিন্যাসিত: Edicots. বর্গ: Gentianales. পরিবার: Apocynaceae. গণ: Nerium  প্রজাতির নাম: Nerium oleander

কবরী গাছের বর্ণনা:

কবরী বা রক্ত করবী শক্ত, দুগ্ধবৎ তরু ক্ষীরবিহীন চিরহরিৎ গুল্ম। পত্র সাধারণত এক আবর্তে ৩টি, পত্রবৃন্ত অনূর্ধ্ব ৯ মিমি লম্বা, পত্রফলকের দৈর্ঘ্য সাড়ে নয় থেকে আঠারো সেমি ও প্রস্থ ২ থেকে সাড়ে তিন সেমি। দেখতে বল্লমাকার, চর্মবৎ, মসৃণ, পার্শ্ব শিরা বহুসংখ্যক। সাইম প্রান্তীয় বা দুই পত্রবৃন্তের মাঝে পার্শ্বীয়, দ্বি-শাখা বিন্যাস, পুষ্পদন্ড ও পুষ্পবৃন্তিকা রোমশ।

এর ফুল লাল বা সাদা রঙের ও সুগন্ধী। এদের বৃতি খন্ডসমূহ বল্লমাকার, সূক্ষ্মাগ্র। দলসমূহের নল অনূর্ধ্ব ১ সেমি লম্বা, নিম্নের অর্ধাংশ বেলনাকার ও উপরের অর্ধাংশ কুপি-আকৃতি, ৫টি মসূরাকার শঙ্ক বিশিষ্ট, মণ্ডল খন্ড সমূহ দলমণ্ডল নলের তুলনায় দীর্ঘ, বিষমাকারভাবে বিডিম্বাকার। মেরোকার্প বেলনাকার, অনূর্ধ্ব ১২ সেমি লম্বা, উলম্ব সংযুক্তি রেখা বরাবর বিভক্ত ও বিদারণ ঘটে। বীজ বহু সংখ্যক ঘন দীর্ঘ রোমাবৃত, এক প্রান্তে গুচ্ছরোম বিশিষ্ট।[২]

ক্রোমোসোম সংখ্যা :

২n = ২২[৩]  

কবরী গাছের বংশ বিস্তার ও চাষাবাদ:

শাখা বা গুটি কলম দ্বারা করবীর বংশ বিস্তার হয়। করবী গাছ উর্ধ্বমুখী। ২-৩ সেমি মি. উচু হলেই ছাঁটাই করে খাটো রাখতে হয়। এদের ফুলের হালকা মৃদু গন্ধ আছে। গ্রীষ্ম ও বর্ষাকালে ফুল ফোটে। তবে বছরের অন্যান্য সময়ও ফুল ফুটতে দেখা যায়। এই গাছ কষ্টসহিষ্ণু উদ্ভিদ। তাই যেকোনো স্থানে যত্ন ছাড়ায় জন্মায়। আমাদের দেশে বাগানে লাগানো হয়।[৪]

আরো পড়ুন:  সারস লিলি লনের চারদিকে শোভাবর্ধক বহুবর্ষজীবী সপুষ্পক উদ্ভিদ

বিস্তৃতি:

চীন, ভারত, জাপান এবং পারস্য ভূ-মধ্যসাগরীয় অঞ্চল এই গাছ জন্মে। বাংলাদেশে এটি বেশ পরিচিত ফুল এবং সর্বত্র বা বাগানে জন্মায়।

অর্থনৈতিক গুরুত্ব ও ভেষজ গুণ:

শোভাবর্ধক উদ্ভিদ হিসেবে চাষ হয়। করবী গাছের আছে নানা ঔষধি গুনাগুণ উদ্ভিদটির বিশেষভাবে শিকড় বিষাক্ত, উদ্ভিদটির পুষ্প হিন্দু ধর্মের পূজা অর্চনায় প্রয়োজনীয় (Kanjilal et al, 1939)। সন্তান প্রসবজনিত স্ত্রী রোগের চিকিৎসায় টাটকা পাতার নির্যাস ব্যবহৃত হয়। শিকড় চূর্ণ মাথা ব্যথার উপশমে ব্যবহৃত হয়। পাতার নির্যাস সাপের কামড়ে ঔষধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়।(Kapoor, 1990)।

অন্যান্য তথ্য:

বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষের ৬ষ্ঠ খণ্ডে (আগস্ট ২০১০)  কবরী বা রক্ত করবী প্রজাতিটির সম্পর্কে বলা হয়েছে যে, এদের শীঘ্র কোনো সংকটের কারণ দেখা যায় না এবং বাংলাদেশে এটি আশঙ্কামুক্ত হিসেবে বিবেচিত। বাংলাদেশে কবরী বা রক্ত করবী সংরক্ষণের জন্য কোনো পদক্ষেপ গৃহীত হয়নি। প্রজাতিটি সম্পর্কে প্রস্তাব করা হয়েছে যে এই প্রজাতিটির বর্তমানে সংরক্ষণের প্রয়োজন নেই।[১]

তথ্যসূত্র:

১.  দ্বিজেন শর্মা লেখক; বাংলা একাডেমী ; ফুলগুলি যেন কথা; মে ১৯৮৮; পৃষ্ঠা- ৫১, আইএসবিএন ৯৮৪-০৭-৪৪১২-৭

২. এম আতিকুর রহমান (আগস্ট ২০১০)। “অ্যানজিওস্পার্মস ডাইকটিলিডনস” আহমেদ, জিয়া উদ্দিন; হাসান, মো আবুল; বেগম, জেড এন তাহমিদা; খন্দকার মনিরুজ্জামান। বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ। ৬ষ্ঠ (১ সংস্করণ)। ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। পৃষ্ঠা ২০০-২০১। আইএসবিএন 984-30000-0286-0

৩. Kumar, V. and Subramaniam,, B. 1986 Chromosome Atlas of Flowering Plants of the Indian Subcontinent. Vol.1. Dicotyledons Botanical Survey of India, Calcutta. 464 pp.   

৪. ড. মোহাম্মদ মামুনুর রশিদ ফুলের চাষ প্রথম সংস্করণ ২০০৩ ঢাকা, দিব্যপ্রকাশ, পৃষ্ঠা ১০৯-১১০। আইএসবিএন 984-483-108-3

Dolon Prova
জন্ম ৮ জানুয়ারি ১৯৮৯। বাংলাদেশের ময়মনসিংহে আনন্দমোহন কলেজ থেকে বিএ সম্মান ও এমএ পাশ করেছেন। তাঁর প্রকাশিত প্রথম কবিতাগ্রন্থ “স্বপ্নের পাখিরা ওড়ে যৌথ খামারে”। বিভিন্ন সাময়িকীতে তাঁর কবিতা প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়া শিক্ষা জীবনের বিভিন্ন সময় রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক কাজের সাথে যুক্ত ছিলেন। বর্তমানে রোদ্দুরে ডট কমের সম্পাদক।

Leave a Reply

Top
You cannot copy content of this page