হাজারমনি এশিয়া আফ্রিকা অস্ট্রেলিয়ার বর্ষজীবী গুল্ম

বৈজ্ঞানিক নাম: Phyllanthus maderaspatensis L.

সমনাম: Diasperus gracilis (Roxb.) Kuntze; Diasperus gueinzii (Müll.Arg.) Kuntze; Diasperus maderaspatensis (L.) Kuntze; Nellica maderaspatana Raf. nom. illeg.; Phyllanthus andrachnoides Willd.; Phyllanthus arabicus Hochst. ex Steud.; Phyllanthus brachypodus F.Muell. ex Benth. nom. illeg.; Phyllanthus cuneatus Willd.; Phyllanthus gracilis Roxb.; Phyllanthus gueinzii Müll.Arg.; Phyllanthus javanicus Poir. ex Spreng.; Phyllanthus longifolius Sond. nom. illeg.; Phyllanthus magudensis Jean F.Brunel; Phyllanthus obcordatus Willd.; Phyllanthus stipulaceus Bojer; Phyllanthus thonningii Schumach. & Thonn.; Phyllanthus vaccinioides Klotzsch nom. illeg.; Phyllanthus venosus Hochst. ex A.Rich.

ইংরেজি নাম: জানা নেই।

স্থানীয় নাম: হাজারমনি।

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস

জগৎ/রাজ্য: Plantae

বিভাগ: Angiosperms

অবিন্যাসিত: Eudicots

অবিন্যাসিত: Rosids

বর্গ: Rosales

পরিবার: Elantinaceae

গণ: Phyllanthus.

প্রজাতি: Phyllanthus maderaspatensis L.

বর্ণনা: হাজারমনি ফাইলান্থুস গণের রােমশ বিহীন বর্ষজীবী বা বহুবর্ষজীবী কাষ্ঠল বীরুৎ। কান্ড খাড়া বা আরােহী প্রায়শ বহুল শাখান্বিত, ক্ষুদ্রশাখা স্থায়ী। পত্র সােপপত্রিক, উপপত্র ১.২-১.৭ মিমি লম্বা, ভল্লাকার-তুরপুন আকার, অখন্ড, বৃন্ত ১ মিমি লম্বা, সর্পিলাকারে বিন্যস্ত, পত্রফলক রৈখিক থেকে বিডিম্বাকার, ৮-৩০ x ২-৭ মিমি, সূক্ষ্মাগ্র থেকে স্থূলাগ্র বা গােলাকার, মূলীয় অংশ কর্তিতাগ্র, পার্শ্বীয় শিরা ৪-৮ জোড়া। পুষ্প উভলিঙ্গ, সাইম মঞ্জরীতে বিন্যস্ত, পুংপুষ্প সবৃন্তক, বৃন্ত ১ মিমি লম্বা, বৃত্যংশ ৬টি, ১.০ X ০.৭ মিমি, প্রশস্ত বিডিম্বাকার, বা অর্ধগােলাকার, ১ শিরাল, চাকতিখন্ড ৬টি গােলাকার, চ্যাপ্টা, মসৃণ, পুংকেশর ৩টি, পুংদন্ড নিচের দিকে যুক্ত, পরাগধানী লম্বালম্বি বিদারী, ০.৫ মিমি লম্বা।

স্ত্রীপুষ্প: বৃন্ত ফলে ১.৫-২.৩ মিমি লম্বা, বৃত্যংশ ৬টি, ২ খন্ডিত, অর্ধ-গােলাকার, থেকে চমসাকার, অখন্ড প্রান্ত সাদাটে, ফল ফ্যাকাশে লাল, ১.০-১.৮৯x১.০-১.৫ মিমি, চাকতি খন্ড ৬টি, রৈখিক, গর্ভাশয় ৩ কোষী মসৃণ, গর্ভদন্ড মুক্ত, ২ খন্ডিত, ০.৩ মিমি লম্বা। ফল ক্যাপসিউল, ব্যাস ৩ মিমি, মসৃণ। বীজ ১.১-১.২ মিমি লম্বা ত্রিকোণাকার, গাঢ় বাদামী, গুটিকাকার। ফুল ও ফল ধারণ ঘটে মে-জানুয়ারি।

আরো পড়ুন:  পুতরি দক্ষিণ এশিয়ার দেশসমূহে জন্মানো ভেষজ উদ্ভিদ

ক্রোমোেসােম সংখ্যা: 2n = ৫৬ (Brunel, 1976).

আবাসস্থল: বালুকা যুক্ত কাদামাটি, চুনা পাথরীয় ভূখন্ড, পাথর যুক্ত জমি, অরণ্য, পতিত জমি, সৈকতের উন্মুক্ত গাছপালা যুক্ত জায়গা।

বিস্তৃতি: আফ্রিকা, সৌদি আরব, অস্ট্রেলিয়া, চীন, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, পাকিস্তান এবং শ্রীলংকা। বাংলাদেশ থেকে রিপাের্টকৃত (Roxburgh, 1814)।

অর্থনৈতিক ব্যবহার/গুরুত্ব/ক্ষতিকর দিক: পত্র কাশি সৃষ্টির সহায়ক ও ঘাম সৃষ্টিকারী । বীজ বায়ু-রােগ হর, রেচক ও যকৃতের টনিক। শ্বাসনালির প্রদাহ, অক্ষিপ্রদাহ, কানের ব্যথায় ব্যবহার করা হয়।

জাতিতাত্বিক ব্যবহার: দক্ষিণ ভারতে পাতা মাথা ব্যথায় ব্যবহার করা হয় (Caius, 1998)।

বংশ বিস্তার: বীজে বংশ বিস্তার ।

প্রজাতিটির সংকটের কারণ: আবাসস্থল ধ্বংস।

সংরক্ষণ ও বর্তমান অবস্থা: বিপন্ন (EN)। William Roxburgh ১৮১৪ সালে প্রজাতিটি রেকর্ড করেন। তারপর এই এলাকা থেকে প্রজাতিটি সংগৃহীত বা রেকর্ড হয়নি।

গৃহীত পদক্ষেপ: নেই।

প্রস্তাবিত পদক্ষেপ: যথাস্থানে ও যথাস্থানের বাইরে সংরক্ষণ জরুরি।

তথ্যসূত্র:

১. রহমান, এম অলিউর (আগস্ট ২০১০)। “অ্যানজিওস্পার্মস ডাইকটিলিডনস”  আহমেদ, জিয়া উদ্দিন; হাসান, মো আবুল; বেগম, জেড এন তাহমিদা; খন্দকার মনিরুজ্জামান। বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ ৭ (১ সংস্করণ)। ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। পৃষ্ঠা ৪৭৮। আইএসবিএন 984-30000-0286-0

Leave a Comment

error: Content is protected !!