নয়নতারা উদ্ভিদের সাতটি কার্যকরী ভেষজ গুণাগুণ

নয়নতারা আসলে একটি বর্ষজীবী সোজা কাণ্ডযুক্ত গুল্মজাতীয় উদ্ভিদ। অবশ্য কিছু কিছু ক্ষেত্রে এটি বহু বছর ধরে নানা প্রতিকূল অবস্থায়র মধ্যে বেঁচে থাকে। নয়নতারা গাছ লম্বায় খুব একটা বড় হয় না। সাধারণভাবে দেড় থেকে দু’ফুটের মতো লম্বা হয়। সমগ্র গাছ কুইন্সল্যান্ড, নাটাল তথা দক্ষিণ আফ্রিকার অন্যান্য অংশে, ভারতে ও সিংহলে মধুমেহ রোগে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। এ ছাড়া সমগ্র গাছের রস রক্তস্রাবে ও বহুমূত্র রোগে হিতকর। ঠাণ্ডা অথবা গরম জলে পাতা রাত্রে ভিজিয়ে রেখে পরদিন সেটাকে ছেকে ঐ জলটা খেলে অত্যধিক রক্তস্রাবে অথবা রক্তপ্রদরে উপকার পাওয়া যায়।

কাঁচা পাতার রস বৃশ্চিক প্রভৃতি হুল ফোটালে এবং অন্যান্য কীট দংশনে দষ্টস্থানে লাগানো হয়। সমগ্র গাছ (মূল-পত্র সমেত) রক্তচাপ হ্রাসকারক, অবসাদক, স্নায়ুর উত্তেজনানাশক ও নিদ্রাকারক। মূল বিষাক্ত, পাচকগুণবিশিষ্ট। সমগ্র গাছের রসে প্রায় ৭০টি উপক্ষার (alkaloid) পাওয়া যায়। তার মধ্যে ভিনক্রিস্টিন ও ভিনগ্লাস্টিন নামক উপক্ষার দু’টি লিউকেমিয়া রোগের ঔষধ হিসেবে বিশেষভাবে গণ্য। এর মধ্যে ডেলটা-ইহোহিম্বিন নামে যে রাসায়নিক পদার্থটি পাওয়া যায়, সেটির চাহিদা খুবই বেশি। সমস্ত উপক্ষারগুলি নানারোগে হিতকর। মূত্রহ্রাসকর গুণের সন্ধান পাওয়া যায় গাছটির (alkaloids এর) মধ্যে।[১]

রোগ নিরাময়ে নয়নতারা-এর ব্যবহার:

১. বহুমূত্র রোগ: ডায়াবেটিস বা বহুমূত্র রোগ প্রতিদিন সকালে নয়নতারার সাদা ফুল ও গাছের দু’টি পাতা খালিপেটে চিবিয়ে খেলে রোগ মোটেই বাড়তে পারে না। যাদের দাঁত নেই তারা পাতাকে সামান্য পানি দিয়ে বেটে এক চামচ পরিমান রস খাবেন। এ রোগটি সম্পর্কে মনে রাখা দরকার, বহুমূত্র রোগে একবার আক্রান্ত হলে সারা জীবনের নানা রকম চিকিৎসাও রোগী সম্পূর্ণ নিরাময় হয় না। কেবলমাত্র খাদ্যদ্রব্য গ্রহণ করার ক্ষেত্রে পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ এবং নিয়মিত ঔষধ খেলে রোগ আংশিক নিরাময় হতে পারে। এক্ষেত্রে নয়নতারা পাতা নিয়মিত খেলে রোগ নিয়ন্ত্রণে থাকে।

২. উচ্চ রক্ত চাপ: ব্লাড প্রেসার বা রক্তের চাপ বাড়লে নয়নতারা গাছের টাটকা মূলের রস মাত্র পাঁচ মি. লি. সকালে খালিপেটে একবার করে খেতে হবে। রস তিন থেকে চারদিন খেলেই কিছুটা উপকার নিশ্চয়ই পাওয়া যাবে। তবে চার-পাঁচ দিন বাদে চিকিৎসকের কাছে রক্তের চাপ পরীক্ষা করে অবশ্যই দেখা দরকার।

আরো পড়ুন:  শিউলি বা শেফালী বাংলাদেশ ভারতের আলংকারিক সুগন্ধি ফুল

৩. ঘা: বিষাক্ত ঘা কিংবা পুরাতন ঘায়ে নয়নতারা গাছের রস উভয় রোগে প্রয়োগ করলে খুব ভাল ফল পাওয়া যায়।

৪. ক্ষত: রোজ একবার করে কচি ডাল ও পাতাকে বেটে তার রস দিয়ে শরীরের ক্ষত, ঘা ধুয়ে বেধে রাখতে হবে। সাতদিন ব্যবহার করলে বিষদোষ নষ্ট হয়ে যাবে এবং ঘা শুকিয়ে যাবে।

৫. আঘাতে: কোন কিছুর আঘাতে কেটে গেলে একইভাবে কাটা জায়গায় রস প্রয়োগ করে বেঁধে রাখতে হবে। ৩-৪ দিনের মধ্যেই কাটা জায়গা জুড়ে যাবে।

আরো পড়ুন: নয়নতারা এপোসিনাসি পরিবারের একটি আলংকারিক ফুল

৬. ব্লাড ক্যান্সার: ব্লাড ক্যান্সার একটি জটিল রোগ। এ রোগটি আজও মানুষের কাছে আতঙ্কের কারণ হয়ে আছে। এ রোগে আক্রান্ত রক্তে লোহিত কণিকার সংখ্যা উল্লেযোগ্যভাবে কমে যায়। নয়নতারা গাছের কচি ডালের রস সকালে ও বিকালে ১০ মিলিমিটার পরিমাণ খেলে রোগের কিছুটা উপশম হয়।

৭. বোলতা প্রভৃতির হুলের জ্বালায় বা কীট দংশনে: বোলতা, ভীমরুল, মৌমাছি, (ভোমরা, পিঁপড়ে, কাঠপিঁপড়ে প্রভৃতির হুলের জ্বালায় ও কামড়ে যন্ত্রণার হাত থেকে আশু উপকার পেতে হলে নয়নতারার পাতা থেঁতো করে সেই রসটা লাগাতে হবে। পাতার বাটা লাগালেও চলবে।

বর্তমানে পৃথিবীর বহু দেশে এ ব্যাপারে নয়নতারা গাছ সম্পর্কে পরীক্ষা চলছে। কারণ , বিজ্ঞানীরা নয়নতারা গাছের পাতা ও ডালের রস থেকে প্রায় ৭০টি ঔষধ ইতিমধ্যেই আবিষ্কার কররেছে।[২]

CHEMICAL COMPOSITION

Syn. Vinca rosea Linn., Lochnera rosea (Linn.) Reichb.

Leaves Contain: 2 glycosidal principles and ursolic acid; alkaloids like leurosine, isoleurosine, perivine, mitraphylline, lochnerine, perosine, sitsirikine, perividine and canvincine etc.; two alcohols (lochnerol and lochnerallol), tannin, carotenoids, sterols, Sesquiterpenes, a flavone derivative and an oleoresin. Whole Plant contains: Ursolic acid and about 44 alkaloids (isoleurosine, lochneridine, sitsirikine, vincamicine, catharine, vindolicine, vindorosinelichnerinine, reserpine, akuammine, tetrahydroalstonine, vincaleucoblastine, vindoline, virocine, catharanthine etc.). Root contains: 24 alkaloids isolated so far from the roots. It contains alkaloids like ajmalicine (5-yohimbine), Vinosidine, lochnerivine, leurosivine, cavincine etc. Root-bark contains: Alkaloids (Serpentine, ajmalicine, lochnericine, alstonine), a phenolic resin 2%, d-camphor 3%, a neutral substance. Rose-purple flowers contain: anthocyanine.[১]

আরো পড়ুন:  দুব্বিশাক বাংলাদেশের সর্বত্রে জন্মানো ভেষজ বিরুৎ

সতর্কীকরণ: ঘরে প্রস্তুতকৃত যে কোনো ভেষজ ওষুধ নিজ দায়িত্বে ব্যবহার করুন।

তথ্যসূত্রঃ

১. আয়ুর্বেদাচার্য শিবকালী ভট্টাচার্য: চিরঞ্জীব বনৌষধি খন্ড ৯, আনন্দ পাবলিশার্স প্রাইভেট লিমিটেড, কলকাতা, তৃতীয় মুদ্রণ ১৪০৫, পৃষ্ঠা, ১৮ ও ২২।

১. মাওলানা জাকির হোসাইন আজাদী: ‘গাছ-গাছড়ায় হাজার গুণ ও লতাপাতায় রোগ মুক্তি, সত্যকথা প্রকাশ, বাংলাবাজার, ঢাকা, প্রথম প্রকাশ ২০০৯, পৃষ্ঠা, ১৪৭-১৪৮।

বি. দ্র: ব্যবহৃত ছবি উইকিমিডিয়া কমন্স থেকে নেওয়া হয়েছে। আলোকচিত্রীর নাম: Biswarup Ganguly

Leave a Comment

error: Content is protected !!