আপনি যা পড়ছেন
মূলপাতা > প্রাণ > উদ্ভিদ > বৃক্ষ > কলকে এপোসিনাসি পরিবারের একটি আলংকারিক ফুল

কলকে এপোসিনাসি পরিবারের একটি আলংকারিক ফুল

[otw_shortcode_info_box border_type=”bordered” border_color_class=”otw-red-border” border_style=”bordered” shadow=”shadow-inner” rounded_corners=”rounded-10″]বৈজ্ঞানিক নাম: Cascabela thevetia, (L.) Lippold. সমনাম: Vinca rosea L. (1759), Cascabela peruviana (Pers.) Raf.; Cerbera linearifolia Stokes; Cerbera peruviana Pers.; Cerbera thevetia L.; Thevetia linearis Raf.; Thevetia linearis A. DC.; Thevetia neriifolia Juss. ex A.DC.; Thevetia peruviana (Pers.) K.Schum.; Thevetia thevetia (L.) H.Karst. nom. inval. ইংরেজি নাম: yellow oleander, lucky nut. স্থানীয় নাম: হলদি করবী, কলকী ফুল, কানাই ফুল। জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস জগৎ/রাজ্য: Plantae – Plants শ্রেণী: Eudicots উপশ্রেণি: Asterids বর্গ: Gentianales পরিবার: Apocynaceae গণ: Cascabela প্রজাতি: Cascabela thevetia L.[/otw_shortcode_info_box]

ভূমিকা: কলকে (বৈজ্ঞানিক নাম: Cascabela thevetia) এপোসিনাসি পরিবারের কাসকাবেলা গণের একটি সপুষ্পক উদ্ভিদের প্রজাতি। এরা আকারে বৃহৎ গুল্ম বা ক্ষুদ্র বৃক্ষ হতে পারে।

বিবরণ: কলকে গাছের কাণ্ড ও শাখা মসৃণ, কর্কবৎ, তরুক্ষীরবাহী। পত্র সমাকীর্ণ, সর্পিল বা একান্তর, অর্ধবৃন্তক, পত্রফলক ৮-১৫ x ১ সেমি, রৈখিক-বল্লমাকার, সূক্ষ্মাগ্র বা খাটোভাবে দীর্ঘা, নিম্নাংশ ক্রমান্বয়ে সরু, উজ্জ্বল সবুজ ও চকচকে, অর্ধচর্মবৎ, প্রান্ত ঈষৎ পশ্চাদমুখী বক্র, মধ্যশিরা স্পষ্ট, পার্শ্ব শিরা অস্পষ্ট।

এদের সাইম স্বল্প-পুষ্পবিশিষ্ট, প্রান্তীয়, পুষ্পদন্ড অতিক্ষুদ্র, মঞ্জরীপত্র বিষম, আশুপাতী, মঞ্জরীপত্রিকা অনূর্ধ্ব ২.৮ সেমি লম্বা। পুষ্প হলুদ বা কমলা, কদাচ সাদা, মঞ্জরীপত্রিকা ব-দ্বীপ সদৃশ, দীর্ঘায়িত, ২ মিমি লম্বা। বৃতি খন্ড ১.০ x ০.৫ সেমি, ত্রিকোণাকৃতি, বল্লমাকার, সূক্ষ্মাগ্র, মসৃণ, স্থায়ী। দলমণ্ডল ৫ সেমি লম্বা, নিম্নাংশে নলাকার, গলদেশ ঘন্টাকৃতি। পুংকেশরের বিপরীতে ও উপরে কিরীট বিশিষ্ট, রোমশ। চক্র (ফলক) পুরু, পেয়ালা-আকৃতি। প্রতি গর্ভপত্রে ডিম্বক ২টি, গর্ভমুণ্ড প্রশস্ত, কোণাকৃতি। ফল কিছুটা রম্বস-আকৃতির, আড়াআড়িভাবে ৩ সেমি লম্বা, উজ্জ্বল কালো। ফুল ও ফল ধারণ ঘটে সারা বৎসর।

ক্রোমোসোম সংখ্যা: ২n = ১৮, ২০ (Kumar and Subramaniam, 1986)।

চাষাবাদ ও আবাসস্থল: বাগানে অথবা মন্দিরের কাছে চাষ করা হয়। বাংলাদেশে সাধারণত সারা দেশব্যাপী চাষ হয়। বীজ দ্বারা বংশ বিস্তার ঘটে।  

বিস্তৃতি: গ্রীষ্মমন্ডলীয় আমেরিকার দেশজ। গ্রীষ্মমন্ডলীয় অঞ্চলে আবাদকৃত এবং প্রকৃতিকরণ করা হয়েছে।

অর্থনৈতিক ব্যবহার ও গুরুত্ব: বীজ এক ধরনের তেল উৎপাদন করে, যা প্রজ্জ্বলনের সময় উজ্জ্বল আলো প্রদান করে (Heinig, 1925)। পাতার লেই ছোট বাচ্চাদের কপালের পীড়ায় ব্যবহৃত হয় (Rahman et al., 2000)।

জাতিতাত্বিক ব্যবহার: বীজ দ্বারা তৈরী মালা শিশুদের হাঁপানী রোগ উপশমে ব্যবহৃত হয়। পুষ্প হিন্দুদের পূজা অর্চনায় ব্যবহৃত হয় (Rahman et al., 2000)।

অন্যান্য তথ্য: বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষের ৬ষ্ঠ খণ্ডে (আগস্ট ২০১০) কলকে প্রজাতিটির সম্পর্কে বলা হয়েছে যে, এদের শীঘ্র কোনো সংকটের কারণ দেখা যায় না এবং বাংলাদেশে এটি আশঙ্কামুক্ত হিসেবে বিবেচিত। বাংলাদেশে নয়নতারা সংরক্ষণের জন্য কোনো পদক্ষেপ গৃহীত হয়নি। প্রজাতিটি সম্পর্কে প্রস্তাব করা হয়েছে যে শীঘ্র সংরক্ষণের পদক্ষেপ গ্রহণের প্রয়োজন নেই।

তথ্যসূত্র:

১. এম আতিকুর রহমান, (আগস্ট ২০১০)। “অ্যানজিওস্পার্মস ডাইকটিলিডনস”  আহমেদ, জিয়া উদ্দিন; হাসান, মো আবুল; বেগম, জেড এন তাহমিদা; খন্দকার মনিরুজ্জামান। বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ। ৬ (১ সংস্করণ)। ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। পৃষ্ঠা ২১৩। আইএসবিএন 984-30000-0286-0

আরো পড়ুন:  শীত মৌসুমের জনপ্রিয় ফুল গাঁদার বাণিজ্যিক চাষ ও পরিচর্যা পদ্ধতি
Anup Sadi
অনুপ সাদির প্রথম কবিতার বই “পৃথিবীর রাষ্ট্রনীতি আর তোমাদের বংশবাতি” প্রকাশিত হয় ২০০৪ সালে। তাঁর মোট প্রকাশিত গ্রন্থ ১১টি। সাম্প্রতিক সময়ে প্রকাশিত তাঁর “সমাজতন্ত্র” ও “মার্কসবাদ” গ্রন্থ দুটি পাঠকমহলে ব্যাপকভাবে সমাদৃত হয়েছে। ২০১০ সালে সম্পাদনা করেন “বাঙালির গণতান্ত্রিক চিন্তাধারা” নামের একটি প্রবন্ধগ্রন্থ। জন্ম ১৬ জুন, ১৯৭৭। তিনি লেখাপড়া করেছেন ঢাকা কলেজ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। ২০০০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে এম এ পাস করেন।

Leave a Reply

Top
You cannot copy content of this page