বাতাবি লেবু বা জাম্বুরা সমগ্র গ্রীষ্মমন্ডলে আবাদী জনপ্রিয় ফল

ফল

বাতাবি লেবু বা জাম্বুরা

বৈজ্ঞানিক নাম: Citrus maxima (Burm.) Merr., Interp. Rumph. Herb. Amb.: 296 (1918). সমনাম: Citrus aurantium L. var. grandis L. (1753), Citrus grandis (L.) Osbeck (1757), Citrus decanana L. (1767). ইংরেজি নাম: Pummelo, Shaddock, Bitter Orange. স্থানীয় নাম: বাতাবি লেবু, জাম্বুরা।
জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Plantae বিভাগ: Angiosperms অবিন্যাসিত: Eudicots অবিন্যাসিত: Rosids বর্গ: Sapindales পরিবার: Rutaceae গণ: Citrus প্রজাতির নাম: Citrus maxima

ভূমিকা: বাতাবি লেবু (বৈজ্ঞানিক নাম: Citrus maxima ইংরেজি নাম: Pummelo, Shaddock, Bitter Orange) হচ্ছে  রুটেসি পরিবারের সাইট্রাস গণের একটি সপুষ্পক উদ্ভিদ। এই প্রজাতিটি ছোট বৃক্ষ আকারে হয়ে থাকে। এবং এর ফল টক স্বাদ যুক্ত।  

বর্ণনা: বাতাবি লেবু বা জাম্বুরা ছোট চিরহরিৎ বৃক্ষ, ৫-৯ মিটার উঁচু, অপরিণত। বিটপ রোমশ, কন্টক যদি থাকে ভোঁতা। পত্র বৃন্তক, পত্রবৃন্ত প্রশস্ত পক্ষযুক্ত, প্রায় ১৫ মিমি প্রশস্ত, বিহৃৎপিন্ডাকার, পত্রক। প্রশস্ত ডিম্বাকার-উপবৃত্তাকার, ৬.৫-১০.০ x ৩-৭ সেমি, চর্মবৎ, নিম্ন গাত্র মসৃণ, প্রান্ত তরঙ্গায়িত, অর্ধসূক্ষ্মাগ্র-স্থূলা, ভোঁতাদর, গোড়া গোলাকার।

পুষ্পবিন্যাস কাক্ষিক, একল পুষ্পক বা স্বল্প পুষ্পের গুচ্ছ, পুষ্পবৃন্ত ২.৫ সেমি পর্যন্ত লম্বা, রোমশ। পুষ্প উভলিঙ্গ, কুঁড়ি আয়তাকার। বৃতি। পেয়ালাকার, প্রায় ১.০ x ১.৫ মিমি, অনিয়মিতভাবে খন্ডিত, খন্ডক সবুজাভ-সাদা, রোমশ। পাপড়ি আয়তাকারবিডিম্বাকার, প্রায় ২.৫x১.৩ সেমি, স্থুলাগ্র, অবতল, মসৃণ, ক্রীম-সাদা।

পুংকেশর ১৬-২৪টি, পুংদন্ড অনিয়মিতভাবে গোড়ায় বহুগুচ্ছক, উপরিভাগ মুক্ত, সাদা, পরাগধানী আয়তাকার, সূক্ষ্মাগ্র, প্রায় ১ মিমি লম্বা। গর্ভাশয় বিডিম্বাকার, চাকতিতে গভীরভাবে প্রবেশিত, ১০-১৪ প্রকোষ্ঠী, মসৃণ, গর্ভদন্ড বেলনাকার, স্থুল, উপরিভাগ চ্যাপ্টা, প্রায় ১ সেমি লম্বা, গর্ভমুন্ড প্রশস্ত মুন্ডাকার, গ্রন্থিল আঠালো।

ফল গোলাকার, ডিম্বাকার, নাশপাতি আকার, ১৩ সেমি বা অধিক চওড়া, খোসা স্থূল, সাধারণত ছোট সবুজ গ্রন্থিল দাগযুক্ত, রসালো অংশ হলুদ বা গোলাপী-গাঢ় লাল, রসালো অংশের ভ্যাসি হালকা, অম্লীয় বা সামান্য তিক্ত। বীজ চ্যাপ্টা, অভ্যন্তরে সাদা।

আরো পড়ুন:  পানি লেবু উষ্ণমন্ডলীয় অঞ্চলের ফল

ফুল ও ফল ধারণ: ফেব্রুয়ারি-নভেম্বর। ক্রোমোসোম সংখ্যা : 2n = ১৮, ৩৬ (Kumar and Subramaniam, 1986).

আবাসস্থল ও চাষাবাদ: বাগানে লাগানো হয়। বীজ এবং বাডিং দ্বারা।

বিস্তৃতি: দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় উৎপত্তি বলে ধারণা করা হয়। বর্তমানে সমগ্র গ্রীষ্মমন্ডলে আবাদী। এর ভক্ষণযোগ্য ফলের জন্য বাংলাদেশের অধিকাংশ জেলায় চাষ করা হয়।

অর্থনৈতিক ব্যবহার ও গুরুত্ব: ফলের রস শীতলকারক, পুষ্টিকর এবং হৃৎপিন্ডের টনিক, এবং সাধারণত ইনফ্লুয়েঞ্জা ও সর্দিতে ব্যবহৃত হয় (Ghani, | 2003).এর মিষ্টি রস পানীয় হিসেবেও ব্যবহৃত হয়। কাঠ যন্ত্রপাতির হাতল তৈরীতে ব্যবহৃত হয়।

জাতিতাত্বিক ব্যবহার: ভিয়েতনামে সুগন্ধি পুষ্প আতর তৈরীতে ব্যবহৃত হয় (Verheij and Coronel, 1992).

অন্যান্য তথ্য: বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষের খণ্ডে ১০ম(আগস্ট ২০১০)   বাতাবি লেবু প্রজাতিটির সম্পর্কে বলা হয়েছে যে, এদের শীঘ্র কোনো সংকটের কারণ দেখা যায় না এবং বাংলাদেশে এটি আশঙ্কামুক্ত হিসেবে বিবেচিত। বাংলাদেশে বাতাবি লেবু সংরক্ষণের জন্য কোনো পদক্ষেপ গৃহীত হয়নি। প্রজাতিটি সম্পর্কে প্রস্তাব করা হয়েছে এটি সংরক্ষণের তেমন প্রযোজন নেই।[১]

তথ্যসূত্র:

১.  এম. আমান উল্লাহ  (আগস্ট ২০১০)। “অ্যানজিওস্পার্মস ডাইকটিলিডনস”  আহমেদ, জিয়া উদ্দিন; হাসান, মো আবুল; বেগম, জেড এন তাহমিদা; খন্দকার মনিরুজ্জামান। বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ। ১০ (১ সংস্করণ)। ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। পৃষ্ঠা ১৬৯-১৭০। আইএসবিএন 984-30000-0286-0

বি. দ্র: ব্যবহৃত ছবি উইকিপিডিয়া কমন্স থেকে নেওয়া হয়েছে। আলোকচিত্রীর নাম: Vmenkov

Leave a Comment

error: Content is protected !!