দেশি জীবন দক্ষিণ এশিয়ার উপকারি গাছ

বৈজ্ঞানিক নাম: Trema orientalis

সমনাম: নেই

বাংলা নাম: দেশি জীবন, জীগনি, গাদুবা

ইংরেজি নাম: Pigeon wood, Indian Charcoal Tree.

আদিবাসি নামঃ

 

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস

জগ/রাজ্য: Plantae – Plants

উপরাজ্য: Tracheobionta – Vascular plants

অধিবিভাগ: Spermatophyta – Seed plants

বিভাগ: Magnoliophyta – Flowering plants

শ্রেণী: Magnoliopsida – Dicotyledons

বর্গ: Rosales

পরিবার: Cannabaeae

গণ: Trema

প্রজাতি: Trema orientalis

পরিচিতি: দেশি জীবন ছোট আকারের চিরসবুজ গাছ এরা ৮-১০ মিটার পর্যন্ত বড় হয় এই গাছের বাকল পাতলা পাতা একান্তর ও সরল কাঠ নরম ও জ্বালানি উপযোগি পাখির মাধ্যমে বীজ ছড়ায়

একটি বিস্তৃত সংস্কৃতির অঞ্চলে এটি ভেষজ ঔষধ হিসাবে এই গাছের বিভিন্ন ব্যবহার আছে। পাতা ও ছাল কফ, গলার ক্ষত, হাঁপানি, ব্রংকাইটিস, গনোরিয়া, হলুদ জ্বর, দাঁতব্যথা, এবং সাধারণ বিষাক্ততার প্রতিষেধক হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

ফল পাকলে কবুতর, ঘুঘুসহ নানা পাখিরা ভিড় করে কবুতর ঘুঘু এর ফল খাবার হিসেবে ব্যবহার করে বিধায় এই গাছের অন্য নাম ‘পিজিওন উড’ গাছ অন্তত ১৪ প্রজাতির প্রজাপতি তাদের লার্ভার খাদ্য হিসেবে এটিকে ব্যবহার করে পাতা ছাগল, গরু, মহিষের খাবার হিসেবে পাতা, ডাল  এবং বীজ ব্যবহার হয় এছাড়াও পাতাগুলোকে খেলার প্রাণীদের শাক খাদ্য হিসাবে ব্যবহার করা যেতে পারে। এই গাছটি এদের আদি নিবাসী অঞ্চলে একটি দ্রুত বর্ধমান প্রজাতি এবং সেসব এলাকায় জংগলের প্রান্তে পাওয়া যায়। এটি একটি অগ্রগামী প্রজাতি যা দুর্বল মাটির উপর দ্রুত বাড়তে পারে এবং বনের শক্ত কাঠের চারাগাছ রক্ষা করে বনভূমিকে বাড়াতে ব্যবহার করা যেতে পারে। জিবন গাছ নাইট্রোজেন সংবদ্ধকরণে (Nitrogen fixation) কাজে লাগে এবং এর ফলে অন্যান্য উদ্ভিদ প্রজাতির জন্য মাটি উর্বরতা উন্নত করতে পারে। 

আরো পড়ুন:  পাহাড়ী শেওড়া মোরাসি পরিবারের কন্টকিত গুল্ম বা বৃক্ষ

বিস্তৃতিঃ দুটি উপপ্রজাতি বাংলাদেশের সর্বত্রই দেখা যায়।

বিবিধঃ Trema গণে প্রায় ১৫টি প্রজাতি রয়েছে পৃথিবীতে

Leave a Comment

error: Content is protected !!