ঢেঁকি শাক ভেষজ গুণে ভরা বিরুৎ

ঢেঁকি শাক ফার্ন জাতীয় উদ্ভিদ। এদের কান্ড ৩ থেকে ৬ ফুট লম্বা ও লতানো। অগ্রভাগ খাড়া হয়ে থাকে। ভারত, বাংলাদেশের প্রায় সর্বত্র, পাহাড়ী অঞ্চল এবং সমভূতিতে এটিকে দেখতে পাওয়া যায়। ডগাটি গোল হয়ে বাঁকানো। নরম নরম ডগা প্রায় ৮ থেকে ১০ ইঞ্চি লম্বা হয়ে থাকে। শাক হিসেবে বাজারে বিক্রি হয়ে আসে। সেগুলিকে রান্না করে অথবা স্যালাড বানিয়ে খাওয়া হয়। গরমের দিনে গাছগুলো শুকিয়ে যায়। বর্ষায় ঐ শুকনো মূল থেকে গাছ বেরোয় এবং Spore থেকে বংশবিস্তার হয়। ঢেঁকি শাকে albuminoids (4%) এবং carbohydrates (৪%) পাওয়া যায়। এটির বোটানিক্যাল নাম Diplazium esculentum SW., ফ্যামিলী হলো Polypodiaceae.

ঢেঁকি শাক গুণাগুণ:

এটিকে রোগ প্রতিকারে ব্যবহার করতে দেখা যায় না। তবে অনেকে এই শাক গর্ভাবস্থায় খেতে পরামর্শ দেন, তাতে মা ও শিশুর শরীর ও মন ভাল থাকে। এছাড়া প্রসূতির অপুষ্টি, রক্তহীনতা, কোষ্ঠবদ্ধতা প্রভৃতি আসতে পারে না।

সতর্কীকরণ: ঘরে প্রস্তুতকৃত যে কোনো ভেষজ ওষুধ নিজ দায়িত্বে ব্যবহার করুন।

তথ্যসূত্র:

১. আয়ুর্বেদাচার্য শিবকালী ভট্টাচার্য: চিরঞ্জীব বনৌষধি খন্ড ১১, আনন্দ পাবলিশার্স প্রাইভেট লিমিটেড, কলকাতা, সপ্তম মুদ্রণ ১৪২৬, পৃষ্ঠা, ৫৭-৫৮।

বি. দ্র: ব্যবহৃত ছবি উইকিমিডিয়া কমন্স থেকে নেওয়া হয়েছে। আলোকচিত্রীর নাম: Moushomi B.C.

আরো পড়ুন:  চালকুমড়া এশিয়া ও দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার একটি জনপ্রিয় শাক ও সবজি

Leave a Comment

error: Content is protected !!