ভালোবাসার প্রস্তবনা নিয়ে এক আগন্তুক

জানি মন খারাপ, তোমার আঙুল ছুঁয়ে দেওয়ার কেউ নেই পাশে/ নিজেই খেয়াল রাখো কালো কোঁকড়ানো চুলগুলোর/ আসলে কোথাও কোন অপ্রেমী শহর থাকা উচিৎ নয়/
এই কথা আমি বলে আসছি শত শত বছর ধরেই।আরো পড়ুন

বরুণ ফোঁটা দিনে

বরুণ

বরুণের মতো প্রান্তরকে ছেয়ে দিব বলে/ আমার অপেক্ষা করেছি এক দশক,/ তাই আজ সীমানা পেড়িয়ে আসা হাওয়ারা-/ ডেকে এনেছে আবির মেশানো ভালোবাসা।আরো পড়ুন

আবারো স্বাগত তোমায় রঙিন মিছিলে

এখন বসন্ত তোমার দুয়ারের কড়া নেড়েই চলে যায়-/ তুমি হকার ভেবে এক ধাপও এগিয়ে আসো না,/ খবরের কাগজে মুখ গুজে বিশ্বের খোঁজ নাও-

আধুনিক নেতাদের পচনক্রিয়া

নেতারা আকৃষ্ট করেছে আলোর মতো, তার কাছে ছুটে গেছে অনেকেই, যেমন যায় ছোট পোকা আগুনের কাছে মৃত্যুর সাথে সখ্যতার জন্য, আপেক্ষিক জীবনের হিসেবে কতোটুকু ভুল হলে মৃত নক্ষত্রের আলো দেখা যায়, যে নেতা এখনো আছে আমাদের অনুভবে, যে বাড়েনি ভোরের আলোর মতো, যে মিশেছে জনতার সাথে যে চিহ্ন রেখে চলে গেছে নিজের গন্তব্যে সেই তাকে আমি দেখতে চাই আরো পড়ুন

শ্রমিকের বেদনা গীত

শ্রমিকের গীত

রাষ্ট্রের কর্তা নই, আমরা আছি গৃহকর্তা, খবরদারি মাতব্বরি সব ঘরের মধ্যেই, ফেমেলি, পোলাপান, ঝগড়া, গালাগাল যে শিল্প তা আমাদের গ্রামে এলে দেখবেন; এখন নজর টাকার উপর, স্বপ্নে হলেও দেখি সদর দরজায় দারোয়ান, ব্যক্তিগত গাড়ির মধ্যে খেলনা পুতুল, ঘোরানো সিঁড়ি, আকাশে আলোকিত গ্রহ, আমাদের নগর, আরো পড়ুন

কিছু রক্ত এখনো বিদ্রোহী

সিপাহী যুদ্ধ

আমরা শ্রমিককে মজুরি দিয়ে বোঝাতে চাই ঘুম এলেও কবিতা লেখা যায়, এবং কবিতা জীবনের অধিক গুরুত্ব বহন করে, হারানো দিন ফুটিয়ে তোলে নিপীড়িতের অসংগতি, ক্ষমতাহীনের উপর অবিচার, নাটকে প্রদর্শিত রাষ্ট্রীয় নিষ্ঠুরতা, তের হাত লাঠি দিয়ে অভাবীকে নাচানো, গানের মাধ্যমে মানুষের মাঝখানে ফিরে যাওয়া শ্রমিক, আরো পড়ুন

গেরুয়া গরুর দাসত্ব

গেরুয়া

আমাদের বাড়ির এক লেজহীন বানর জিগাইল ‘আমি জানতে চাই’ অথচ সক্রেতিসের কথার সাথে মোরগের কথা কোনোদিনই মিলবে না, কারণ ভাষাই পরম প্রেম ভাষাই প্রতীক তোমাকে ভেবেছে যারা সবাই লিখেছে ভাষা ভাষাই সবার বেড়ে রাজদুলালি ভাষাই সর্বশ্রেষ্ঠ সর্ব শক্তিশালি ভাষাই তোমাকে ডাকে অভিজ্ঞতার ঘরে ভাষাই তোমাকে নেয় রাতদুপুরে ভাষাই শোনায় রাজপথের গল্প সিটি বাজানো হকারের বিকল্প তাঁর যৌনানুভুতি আরো পড়ুন

গর্ততত্ত্ব ও সংগ্রাম

গর্ত

বাঙলার বিচিত্র মানুষের কষ্টকর দিনগুলো আর অট্টহাসির রাতগুলো উচ্ছল আনন্দে কাটছিল; কিশোর বয়সে প্রথম নাটকে অভিনয়; বাঙলা ভাগ, মাকে দ্বিখন্ডিত করা, যৌবনে অভিনয় বাঙলা ভাগ, সম্পত্তিকে খন্ডিত করা, হরিলুট আর এলো ভোট;—যুক্তফ্রন্ট অর্থহীন নিঃস্ব মানুষ একটি গাছ পেল যা দাসযুগের ধর্মীয় বাতাসে লাফাতে লাফাতে সামন্তযুগ অতিক্রম করে ফ্যাসিযুগের সংগে আরো পড়ুন

মৃত্যুকূপের মাঝে বাঁচার ধূর্ততা

বাঙলাদেশের গ্রামে এলো আঠারো বছরের কিশোর, জগতের দুঃসহ বোঝা কাঁধে নেবে। আর সুবিধাবাদীরা হ্যাচারি খুলছে অনেক, প্রতিবাদ ও বামপন্থার হ্যাচারি, প্রতিবাদে আয় প্রচুর, বৈঠকখানায় চর্চা করে ধান্দামুলক বস্তুবাদ, কতো টাকা আয় হলো গোপনে ডলার ব্যবসা করে, কতো টাকা আয় হলো শেয়ারে সফল লগ্নি করে। আরো পড়ুন

পরমাণু ও সাম্প্রদায়িক বোমা

নিজের ধর্মকে ফকফকা ভেবে মারো লাফ,
আহা হা, কী লাফায় দেশের মানুষ, ভরতমাতা জিন্দাবাদ, ফাঁকিস্তা জিন্দাবাদ, বাঁচতে হলে অস্ত্র চাই, ঘাস খেয়েও অস্ত্র চাই, হিন্দুস্তা ফাঁকিস্তার পরমাণু বোম চাই, মারহাবা মারহাবা, জিন্দাবাদ জিন্দাবাদ, পরমাণু বোম জিন্দাবাদ, গান্ধিবোমা জিন্দাবাদ। আরো পড়ুন

error: Content is protected !!