আদর্শ

উঁচু আঙুরের ঈষৎ আশাও করি না,

লক্ষ্য রেখেছি স্বনামধন্য ধ্রুবকে;

উদাসী হৃদয় সুলভেই পাবে, হরিণা

রুপাের বাসনা মেটাবে জাপানি রূপকে।

 

খুশি আমাদের, দিবানিদ্রার বদলে—

রেডিও তাড়াবে দুপুর মহিলা-আসরে;

ভুখা সমাজকে ভাঁওতা দিয়েছি সবলে। —

নাটক জমে না ও-সংক্ষিপ্ত আদরে?

 

শুনি বটে পাঁঠা যােগ্য প্রেমের প্রদাসী—

চালাও, শ্রীমতী, বৈজয়ন্তী অবাধে;

স্বেচ্ছায় পাবে যুবক সলিল-সমাধি,

দীর্ঘ আড্ডা জমবে জনপ্রবাদে।

 

কৃত্রিম হ্রদ পায়চারি করি, চলাে না।

মনান্তরের ঘটনা নেহাৎ ঘরােয়া,

প্রকাশ্যে হােক পরস্পরকে ছলনা—

লােকলােচনকে অন্তত করি পরােয়া।

 

সংশােধনের পথ বাৎলেছি শুঁড়িকে।

নাস্তিক নই,— নিষ্ঠা সটান ত্রিশূলে।

মার্জনা সব ছুয়েছি যখন বুড়িক— 

নিঃসন্দেহে স্বর্গ, শরীর মিশুলে।

 

বনগমনের বয়সটা নয় নিকটে

নির্বাণ-লােভে মঠ তাে সঠিক—সময়ে।

অসীম সিন্ধু মাপি আজ এক বিঘৎ-এ

নিজগুণে সেই ত্রুটি সামান্য, ক্ষমো হে।

 

মানি অহিংসা, মেনেছি অসহযােগিতা,

নায়ক অধুনা কংগ্রেসি মনােনয়নে—

সাহিত্যে শখ, পড়ি না ভ্রষ্ট কবিতা;

শিব, সুন্দর স্পষ্ট নিমীল নয়নে।

 

জনান্তিকেই বুলি কপচানো খাসা তাে,

চতুষ্পদেই তীর্থ কবে যােজনা,

বহবারম্ভে বজ্র যেদিন হাসাতাে,

সেইদিন ভেবে আমাদের অনুশােচনা।

 

সম্মতি নেই মজুর ধর্মঘটেও,

ভাংচি ঘটায় শৃগালবুদ্ধি ভাড়াটে,

মাথা ঘামাবো না চেক-চীন সংকটেও

তবেই দেখবে ঈর্ষা বাড়বে পাড়াতে।।

আরো পড়ুন:  শ্রেষ্ঠীবিলাপ

Leave a Comment

error: Content is protected !!