ব্রহ্মশৈলী

তুই কি থাকবি আমার পাশে?
হাঁটবি আমার সাথে টুকটুকে স্বপ্ন নিয়ে?
জগতের স্বাভাবিক সব সুর সঁপে দেব তোর অঙ্গে
যদি হতে চাস নির্মলধ্বনি।

তোকে সাজাব সূর্য রাঙা পলাশ দিয়ে
তোর পা রাঙাব কৃষ্ণচুড়ার লাল আলপনায়
তোর একান্ত ব্যক্তিগত ঘরে ছড়াব স্বর্ণচাঁপার ঘ্রাণ।
তোর মাঝে থাকবে সোনালুর সোনা বিছানো মাঠ!
তোর চোখ থাকবে বর্ষায় ভেজা কদমের মতো,
তোর মন ছুয়ে যাবে মাঠ জুড়ানো সবুজ ঘাস।

আমি দিতে পারি জোনাকির হয়ে ফোঁটা শ্বেতদ্রোণ,
গাছে বেড়ে ওঠা হরেক অর্কিডে সাজাতে পারি তোকে,
আরো দিতে পারি ব্রহ্মশৈলীর বটতলার শীতল হাওয়া,
ব্রহ্মপুত্রের তীরে গ্রীষ্মের রাতে আলোছায়ায় খেলা কবির কবিতা।

১৩ এপ্রিল, ২০১৪
আকুয়া, জুবিলী কোয়ার্টার, ময়মনসিংহ।

চিত্রের ইতিহাস: কবিতায় ব্যবহৃত অংকিত চিত্রটি ভিনসেন্ট ভ্যান গগ (৩০ মার্চ ১৮৫৩ – ২৯ জুলাই ১৮৯০) আঁকা চিত্র লুক্সেমবার্গের একটি লেন (Lane at the Jardin du Luxembourg)। শিল্পী চিত্রটি আঁকেন জুন-জুলাই ১৮৮৬ সালে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য: কবিতাটি আমার [দোলন প্রভা] রচিত মনন পাবলিকেশন ঢাকা থেকে ২০১৭ সালে প্রকাশিত স্বপ্নের পাখিরা ওড়ে যৌথ খামারে  কবিতাগ্রন্থের ৩৭ পৃষ্ঠা থেকে নেয়া হয়েছে এবং রোদ্দুরেতে প্রকাশ করা হলো।

আরো পড়ুন:  ভুমিতে থাকা স্বপ্ন

Leave a Comment

error: Content is protected !!