অলিখিত পঞ্জিকার গপ্পো

কোন সাল এটা? জানার দরকার নাই!
তোমরা শুধু দেখে যাও ধ্বংসস্তূপ নির্মাণকারীর কাজ
ওরা সুশৃঙ্খলভাবে অন্ধকারময় ধৈর্যশীল জীবন রচনা করে,
তারা গীত গায় তোমাদের একাকীত্ব বাড়ানোর জন্য
ওরা কাছে আসে, মধুর প্রলাপ গায় এবং আবর্জনাস্তূপে নিয়ে যায়
আর মগজহীন দেহ বানিয়ে কুঠরিতে সাজায়।
এই সবকিছুই একদিন অভ্যাস হয়ে যায় আধুনিক সভ্যদের
সিসাময় জীবনকে স্বাগত জানায়
উজ্জ্বল কংক্রিটকে স্বাগত জানায়
পরাজিত যৌবনকে স্বাগত জানায়।

ধরে নাও তুমিও ছাদে দাঁড়িয়ে আকাশের কথা ভাবো
বসন্ত কিন্তু সেখানে গুরত্বহীন,
তোমার গড়া প্রভুত্বরা বারবার ঘা মারছে চিত্তে
ভুলে গেছো বর্ষায় ভিজতে
প্রকৃতির উজাল ঘৃণা তাই দাঁত ক্যালায়
তখনো তুমি নিরেট অবয়ব।

আমার কাছে মনে হচ্ছে পুরাতন নগরটা উঠতি যৌবনা
যত্রতত্র খোঁড়াখুঁড়ি, হড়মড়ি শব্দ, মেশিনের দুমদুম কম্পন
ধ্বংসের স্তূপে আলো ক্ষীণ হয়ে যায়
কতশত দেহ চাপা পড়ে লাশ হয়ে থাকে গোপনে।

আমি চাই এই স্তূপ থেকে একটি হলেও মুখ উজিয়ে যাক
বিরল উচ্ছ্বাস ছিড়ে ফেলুক পোষমানা খাঁচার শিকল
নিথর অতীত ফ্রেম ছেঁটে বেরিয়ে আসুক গণশক্তি
দেখুক প্রিয় হাতে আপন প্রতিচ্ছবি
সব ভবঘুরে যুক্তি উড়ে যাক।

১৬. ০৩. ২০২৩
সারদাঘোষ রোড়, ময়মনসিংহ

আরো পড়ুন:  সভ্যতা

Leave a Comment

error: Content is protected !!