নারী শ্রমিকদের প্রতি

কমরেডগণ, মস্কো সোভিয়েতের নির্বাচনে শ্রমিক শ্রেণির মধ্যে কমিউনিস্টদের পার্টির শক্তিবৃদ্ধি দেখা গেল।

নারী-শ্রমিকরা যাতে নির্বাচনে বেশি ভূমিকা নেয় তা দরকার। যে সব সাবেকী, বুর্জোয়া, জঘন্য আইনে পুরুষের তুলনায় নারীদের সমাধিকারহীন করে রেখেছিল, দৃষ্টান্তস্বরূপ বিবাহ অধিকার বা সন্তানের সঙ্গে সম্পর্কের ক্ষেত্রে পুরুষদের যা বিশেষ সুবিধা দিত, বিশ্বে প্রথম ও একমাত্র সোভিয়েত সরকার তা সব পুরোপুরি বিলুপ্ত করে। মেহনতী সরকার হিসাবে বিশ্বে প্রথম ও একমাত্র সোভিয়েত সরকারই সম্পত্তি সংশ্লিষ্ট সেই সব বিশেষ সুবিধা নাকচ করে দেয়, যা সমস্ত এমন কি সবচেয়ে গণতান্ত্রিক বুর্জোয়া প্রজাতন্ত্রেও পারিবারিক অধিকারের ক্ষেত্রে পুরুষের অনুকূলে বজায় থাকে।

যেখানে জমিদার, পুঁজিপতি, বণিক বর্তমান সেখানে এমন কি আইনের ক্ষেত্রেও পুরুষের সঙ্গে নারীর সমতা হতে পারে না।

যেখানে জমিদার, পুঁজিপতি বণিক নেই, যেখানে এই সব শোষক ছাড়াই মেহনতীদের ক্ষমতা নতুন জীবন গড়ে তুলছে, সেখানে আইনের ক্ষেত্রে পুরুষের সঙ্গে নারীর সমতা বর্তমান। কিন্তু এটা যথেষ্ট নয়। আইনের সমতা মানেই জীবনের ক্ষেত্রেও সমতা নয়।

আমরা চাই যেন নারী-শ্রমিকেরা শুধু আইনের ক্ষেত্রে নয় জীবনের ক্ষেত্রেও পুরুষ-শ্রমিকদের সঙ্গে সমতা অর্জন করে। তার জন্য দরকার নারী-শ্রমিকেরা যেন আরো বেশি বেশি করে অংশ নেয় সামাজিক উদ্যোগ ও রাষ্ট্রের পরিচালনায়।

পরিচালনার কাজ চালানোর মাধ্যমে নারীরা দ্রুত শিক্ষালাভ করবে ও পুরুষদের পাল্লা ধরবে।

কমিউনিস্ট ও পার্টি-বহির্ভূতা উভয় নারী-শ্রমিকদেরই আরো বেশি সংখ্যায় নির্বাচিত করুন সোভিয়েতে। কেবলমাত্র সৎ  শ্রমিকা, সবিবেকে ও বিচক্ষণতার সঙ্গে কাজ চালাতে পারলেই হলো- হোক সে পার্টি-বহির্ভূতা, মস্কো সোভিয়েতে নির্বাচিত করুন তাকে।

আরো নারী-শ্রমিক চাই মস্কো সোভিয়েতে! মস্কো প্রলেতারিয়েত দেখিয়ে দিক যে তারা বিজয়ের সংগ্রামের জন্য, সাবেকী অসাম্যের বিরুদ্ধে, সাবেকী বুর্জোয়া নারী লাঞ্ছনার বিরুদ্ধে সংগ্রামের জন্য সবকিছু করতে প্রস্তুত এবং করছে!

নারীদের পূর্ণ স্বাধীনতা প্রতিষ্ঠা না করে প্রলেতারিয়েত কখনো নিজেদের পূর্ণ স্বাধীনতা অর্জন করতে পারে না।

আরো পড়ুন:  পুঁজিবাদ ও নারী শ্রমিক

ন, লেনিন

২১শে ফেব্রুয়ারি, ১৯২০

‘প্রাভদা’, ৪০ সংখ্যা ২২শে ফেব্রুয়ারি, ১৯২০

ভ. ই. লেনিন, রচনাবলী ৪র্থ রুশ সংস্করণের পাঠ থেকে অনুদিত

৩০শ খণ্ড, ৩৪৬-৩৪৭ পঃ

বি. দ্র. এখানে নিবন্ধটি ভ. ই. লেনিন রচিত নারী-মুক্তি গ্রন্থ প্রগতি প্রকাশন, মস্কো তারিখহীন-এর ৯১-৯২ পৃষ্ঠা থেকে নেয়া হয়েছে।

Leave a Comment

error: Content is protected !!